রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে সকালে যা খাবেন

প্রকাশিত: ০৮:৫০, ০৬ জুন ২০২০

আপডেট: ০৮:৫০, ০৬ জুন ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি করোনভাইরাসের প্রতিষেধক বা টিকা এখনও আবিষ্কার হয়নি। প্রতিদিনই আক্রান্ত ও মৃতের সংখা বেড়ে যাচ্ছে। তাই বিশেষজ্ঞরা বারবার বলছেন, এই ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো সবচেয়ে জরুরি। 

এখন প্রশ্ন হলো শরীরে রোগ প্রতিরাধ ক্ষমতা বাড়াবেন কিভাবে। এমন কিছু খাবার রয়েছে, যা সকালের নাস্তায় খেলে শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে। 

বিশেষজ্ঞদের মতে, সকালের নাস্তা হতে হবে পুষ্টিগুণসমৃদ্ধ ও খনিজে ভরা। এজন্য সকালের নাস্তায় যা খাবেন-

১. খেতে পারেন বাড়িতে বানানো কেক ও সালাদ। এই দুই খাবারেই মাখন বা তেলের পরিবর্তে মেশাতে পারেন পাকা কলা। পুষ্টিবিদদের মতে, এক কাপ মাখনে যেখানে ১হাজার ৬২৮ ক্যালোরি ও ১১৬ গ্রাম স্যাচুরেটেড ফ্যাট রয়েছে, সেখানে এক কাপ পাকা কলায় রয়েছে ২০০ ক্যালোরি ও আধা গ্রামেরও কম স্যাচুরেটেড ফ্যাট। সঙ্গে রয়েছে উপকারী পটাশিয়াম, ভিটামিন বি ও ফাইবার। 

২. সকালের নাস্তায় খেতে পারেন সিদ্ধ ডিম। পুষ্টিগুণে ভরপুর ও প্রোটিনের সবচেয়ে সস্তা উৎস হওয়ায় বিশেষজ্ঞরা সকালের নাস্তায় ডিম রাখার পরামর্শ দিয়েছেন। প্রোটিনসমৃদ্ধ এই খাবার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াবে। তবে যাদের বয়স চল্লিশের বেশি তাদের ক্ষেে তেলে ভাজা ডিম না খেয়ে সিদ্ধ ডিম খাওয়া ভালো। ডিমে রয়েছে উচ্চমানের প্রোটিন। এছাড়া ডিমে আছে এমন কিছু অ্যামিনো অ্যাসিড, যা শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে মানসিক স্থিরতা বাড়ায়।

৩. সাদা পাউরুটি না খেয়ে বাদামি রঙের ব্রেড খান। এতে ফাইবার ও পুষ্টিগুণ বেশি। আর অতিরিক্ত চর্বি জমবে না।

৪. শরীরে প্রোটিন বাড়াতে পাতে রাখুন চিকেন স্যুপ। দোকান থেকে চিকেন কিনে তা দিয়ে বাড়িতেই সব রকম সবজি দিয়ে এ খাবার তৈরি করতে পারেন। 

৫. সকালে খেতে পারেন ফলের রস। তবে প্যাকেটজাত ফলের রসে প্রচুর কৃত্রিম চিনি ও লবণ মেশানো থাকে। তাই বাজার থেকে কেনা ফল দিয়ে তৈরি জুস বা ফল কেটেও খেতে পারেন। চিবিয়ে ফল খেলে তার ফাইবারও অনেক বেশি পাওয়া যায়।

৬. সকালের নাস্তায় চিনির পরিবর্তে মধু ও গুড়ের বাতাসা রাখতে পারেন রান্নার সাথে। চিনিযুক্ত খাবার শরীরে মেদ জমিয়ে দেয়।

৭. পান করতে পারেন গ্রিন টি। এতে রয়েছে ফ্লেভোনয়েড নামক একটি উপাদান, যা আসলে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট। এটি এমন একটি শক্তিশালী উপাদান, যা সব দিক থেকে শরীরকে চাঙ্গা রাখে। গ্রিন টি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়। এ ছাড়া কেটেচিন নামেও একটি উপাদান থাকে এই চায়ে, যা ভিটামিন 'ই' ও 'সি'র থেকেও বেশি শক্তিশালী। যার রয়েছে একাধিক উপকারি গুন। 

এই বিভাগের আরো খবর

ভিন্ন স্বাদের ভাপা ডিমের কারি

অনলাইন ডেস্ক: ডিম তো কতভাবেই খাওয়া...

বিস্তারিত
ছাগলের বর্জ্য থেকে সবচেয়ে দামি তেল!

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বের সবচেয়ে দামি তেল...

বিস্তারিত
বয়স্কদের যত্নে করণীয়

অনলাইন ডেস্ক: করোনাভাইরাস...

বিস্তারিত
কাঁঠালের যেসব পুষ্টি গুণ

অনলাইন ডেস্ক: বাংলাদেশের জনপ্রিয় ও...

বিস্তারিত
সকালের ৪ ব্যায়াম সুস্থ রাখে শরীরকে

অনলাইন ডেস্ক: শরীর-স্বাস্থ্য ভালো...

বিস্তারিত
শিশুদের দিন ঘরের তৈরি চকলেট  

অনলাইন ডেস্ক:  এই করোনায় শিশুদের...

বিস্তারিত
ভেষজ উপাদানে খুশকি দূর

অনলাইন ডেস্ক:  শুষ্ক আবহাওয়া ও...

বিস্তারিত
ক্লান্তি দূর করতে আনারসের সালাদ

অনলাইন ডেস্ক: আনারস ভিটামিন এ, বি ও সি...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *