স্পেনে আক্রান্ত ও মৃত্যু বেশি যেসব কারণে

প্রকাশিত: ০৯:১৮, ৩০ মার্চ ২০২০

আপডেট: ০৯:১৮, ৩০ মার্চ ২০২০

আফিয়া জ্যোতি : করোনা ভাইরাসে চীনের দ্বিগুণেরও বেশি মানুষ মারা গেছে স্পেনে। মোট মৃত্যুর হিসেবে এখন পর্যন্ত বিশ্বে ইতালির পর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয়েছে ইউরোপের এই দেশটিতে। সংক্রমণের হার বেড়েছে পাঁচগুণ। কিন্তু কেন এত মানুষের মৃত্যু স্পেনে। কেন এত সংক্রমণ?

ভাইরাসের প্রকোপ সবচেয়ে বেশি ছাড়িয়েছে রাজধানী মাদ্রিদে। তবে উত্তর-পূর্বের কাতালোনিয়া অঞ্চলে দ্রুতবেগে বাড়ছে সংক্রমণের হার। চিকিৎসা দিতে গিয়ে দেশটির ১৬.৫ শতাংশ চিকিৎসকও এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। যেখানে ইতালিতে আক্রান্ত হয়েছেন আট শতাংশ।

স্পেনে কেনো এত সংক্রমন আর মৃত্যু, বিশেষজ্ঞদের বিশ্লেষণের প্রেক্ষিতে আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়- দ্রুত সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কারণ স্বাস্থ্য সেবার প্রয়োজনীয় সরঞ্জামের ঘাটতি। পাশাপাশি জনস্বাস্থ্য সেবার সরঞ্জামের অসম বণ্টনের কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। দেশটির বিশেষজ্ঞরা এটিকে সম্ভাব্য একটি কারণ হিসেবে বললেও অন্যান্য আরো কিছু বিষয়ের দিক তুলে ধরেছেন।

ইউরোপে রোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রের বরাত দিয়ে নাভারা বিশ্ববিদ্যালয়ের জনস্বাস্থ্য ও প্রতিরোধ মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক সিলভিয়া কার্লোস চিলেরন বলেন, কোভিড-১৯ এর প্রভাব একটি দেশের প্রস্তুতির ধরণ ও দ্রুত প্রতিরোধ ব্যবস্থা প্রয়োগের ক্ষমতার ওপর নির্ভর করে।

তিনি আরো বলেন, স্পেনে যে হারে সংক্রমণ বাড়ছে যদি এটি অব্যাহত থাকে তাহলে জনবল ও সরঞ্জামাদি দিয়ে তা প্রতিহত করা যাবে কিনা তা নিশ্চিত নয়। ফলে এর প্রভাব হবে আরো গুরুতর। মৃতের সংখ্যা বেড়ে যেতে পারে আরো বেশি, বিশেষ করে যখন চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিতরাই আক্রান্ত হয়ে পড়ছেন। মানুষে মানুষে যোগাযোগ যত বেশি হবে, সংক্রমণের আশংকা তত বেশি।

গ্রানাডা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক আলবার্তো মাতারান বলেন, স্পেনের জনসংখ্যার ঘনত্ব করোনা বিস্তারের একটি কারণ হতে পারে। ভূমধ্যসাগরীয় উপকূলীয় অঞ্চল এবং মাদ্রিদের মতো শহরে জনসংখ্যার ঘনত্ব অনেক বেশি। অন্যান্য দেশের তুলনায় স্পেনে সামাজিকতা বেশি পালন করা হয়। তাই তারা যখন মিলিত হয় তখন সবসময় হাত মিলানো,আলিঙ্গন করা এবং চুম্বন করে থাকে। এটিও করোনা দ্রুত বিস্তারের একটি কারণ। পাশাপাশি স্পেনের জনসংখ্যার একটি বড় অংশ প্রবীণ। যারা খুবই ঝুঁকিতে আছেন এবং বয়স্ক নিবাসগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঔষধের সরবরাহ নেই।

দক্ষিণ স্পেনের একটি হাসপাতালের চিকিৎসক বলেন, সাধারণ মানুষ লকডাউন মেনে চলছে।  ছোটখাটো অসুস্থতা নিয়ে হাসপাতালে না আসার চেষ্টা করছেন তারা। এতে করে সংক্রমণের ঝুঁকি কমছে। কিন্তু করোনার সংকট মোকাবেলায় হাসপাতালগুলোতে স্যানিটারি সামগ্রির ঘাটতি রয়েছে। ফলে স্বাস্থ্যকর্মীদের সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা বহুগুণ বেড়ে যাচ্ছে। এটি সংক্রমণের বড় একটি কারণ হতে চলেছে।

স্পেনের মেডিক্যাল ইউনিয়ন দেশটির সুপ্রিম কোর্টে একটি আবেদন জানিয়েছে। এতে যতদ্রুত সম্ভব স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী প্রদানের নির্দেশ দেওয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে।

কর্ডোবা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞানের গবেষক হোসে হার্নান্দেজ বলেন, করোনভাইরাস সম্পর্কে কিছুদিন আগেও পর্যাপ্ত তথ্য ছিল না। করোনা ভাইরাস যে কতটা ঝুঁকিপূর্ণ সে বিষয়েও জনগণ জানত না। সতর্কতা জারির আগেই স্পেনে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

জনগণের মধ্যে সচেতনতা না থাকায় কিছুদিন আগেও (৮ মার্চ) স্পেনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস পালিত হয় ব্যাপক জনসমাগমের মধ্য দিয়ে। এই মাসের মাঝামাঝি সময় পর্যন্তও সেখানকার সাধারণ জনগণ বারগুলোসহ বিভিন্ন পার্টিতে অংশ নিয়েছিলেন।

দেশটির আবহাওয়াও করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। সেখানে তাপমাত্রা বৃদ্ধি এবং উচ্চ আর্দ্রতার কারণে ভাইরাসের বিস্তার হতে পারে কি না সে বিষয়ে গবেষণা চলছে।

সিএনএন এর প্রতিবেদনে আরেকটি কারণও উল্লেখ করা হয়েছে। গত ১৯ ফেব্র“য়ারি ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়ন্স লীগের খেলা দেখতে ভ্যালেন্সিয়া ফুটবল ক্লাবের অন্তত ৩০০০ সমর্থক স্পেন থেকে ইতালির মিলান সফর করেন। তাদের বেশিরভাগ বারজামো ও আশপাশের শহরের বাসিন্দা। এরার স্পেনে ফেরার পর একেকজন করোনা ভাইরাসের গোপন বাহক হয়ে থাকতে পারেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

করোনায় বিশ্বে প্রাণহানি ৩ লাখ ৮৮ হাজার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনা ভাইরাসে...

বিস্তারিত
কাল থেকে কলকাতার রাস্তায় নামছে গণপরিবহন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: পুরনো ভাড়াতেই...

বিস্তারিত
পেরুতে করোনায় ২০ সাংবাদিকের মৃত্যু

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: প্রাণঘাতী...

বিস্তারিত
চীনে ১৯ দিনে করোনা শনাক্ত হয়নি

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: করোনাভাইরাস চীনে...

বিস্তারিত
যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে বিক্ষোভ অব্যাহত, নিহত ১১

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শ্বেতাঙ্গ পুলিশ...

বিস্তারিত
পূর্ব লাদাখে ঢুকে পড়েছে চীনা সেনাবাহিনী

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: চীনা সেনাবাহিনী...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *