একাত্তরে প্রথম প্রতিরোধ গড়ে ওঠে গাজীপুরে

প্রকাশিত: ১০:২৮, ১৯ মার্চ ২০২০

আপডেট: ১১:০৫, ১৯ মার্চ ২০২০

কাজী বাপ্পা: একাত্তরের ২৬শে মার্চ বঙ্গবন্ধুর ডাকে দেশব্যাপি সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ শুরু হলেও ১৯শে মার্চ গাজীপুরে পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ গড়ে ওঠে। সেই লড়াইয়ে অংশ নেন তৎকালীন বাঙ্গালি রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ ও সেনা কর্মকর্তারাসহ গাজীপুরের বিভিন্ন  শ্রেনী পেশার মানুষ। এই প্রতিরোধ কর্মসূচীকে সমর্থণ দিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

সাতচল্লিশে দেশ ভাগের পর থেকেই পশ্চিম পাকিস্তানি সামরিক শাসকগোষ্ঠীর অবর্ণনীয় নিপীড়ন ও নির্যাতনের শিকার হয় বাংলাদেশ অর্থাৎ তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানের জনগণ। যার বিরুদ্ধে প্রথম থেকেই প্রতিবাদী ভূমিকা পালন করেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তাঁর চূড়ান্ত আঘাতও শুরু হয় একাত্তরের মার্চে। বাঙ্গালির অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে একাত্তরের ২রা মার্চ থেকেই বঙ্গবন্ধুর ডাকা অসহযোগ আন্দোলন পালিত হতে থাকে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানজুড়ে। বাঙ্গালির ন্যায় সঙ্গত সেই আন্দোলন প্রতিহত করতে পঁচিশে মার্চ রাতে পাকিস্তানি সামরিক জান্তা দেশে বাঙ্গালি নিধনযজ্ঞ শুরু করলে স্বাধীনতার জন্য বঙ্গবন্ধুর ডাকে ২৬শে মার্চ শুরু সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধ। কিন্তু এর আগেই ১৯শে মার্চ গাজীপুরে প্রতিরোধ গড়ে তোলে নির্যাতিত বাঙ্গালিরা।

সেই প্রতিরোধ কর্মসূচীতে অংশ নেয়া আন্দোলনকারীদের বয়ানে উঠে আসে সে সময়ের নানা ঘটনার বিস্তারিত।

গাজীপুরের প্রতিরোধ কর্মসূচীতে সমর্থণ দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

১৯শে মার্চ গাজীপুরে শুরু হলেও তার ঠিক এক সপ্তাহ পর দেশজুড়ে শুরু স্বাধীনতার জন্য বাঙ্গালির সশস্ত্র যুদ্ধ।

এই বিভাগের আরো খবর

৬ দফাকে চূড়ান্ত লক্ষ্যে পৌঁছান বঙ্গবন্ধু

গোলাম মোর্শেদ: সব ভেদাভেদ ভুলে দেশের...

বিস্তারিত
‘৬-দফাই জাতির মুক্তির সনদ’

কাজী বাপ্পা: জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *