রাজধানীতে মশার উপদ্রব, নগর কর্তৃপক্ষের পদক্ষেপ অপ্রতুল

প্রকাশিত: ০৯:৫২, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ০৪:২৪, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০

মাবুদ আজমী: শীতের শেষে রাজধানীতে বেড়েছে মশার উপদ্রব। এতে আবারো চিকুনগুনিয়া ও ডেঙ্গুর মত রোগের আতংকে ভুগছেন নগরবাসী। দুই সিটি কর্তৃপক্ষ মশা নিয়ন্ত্রণে নানা পদক্ষেপের কথা বললেও প্রয়োজনের তুলনায় তা অপ্রতুল বলে মনে করেন শহরবাসী। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আগে বছরের নির্দিষ্ট একটি সময়ে মশাবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিলেও এখন সারা বছরই এসব রোগ ছড়ানোর আশংকা রয়েছে।

প্রকৃতিতে কমেছে শীতের তীব্রতা। বাড়ছে তাপমাত্রা। এরই সাথে পাল্লা দিয়ে মৌসুমের শুরুতেই রাজধানীতে বেড়ে গেছে মশার উৎপাত।

মশার এমন উপদ্রব নগরবাসীর মনে ভয়ও বাড়িয়ে দিয়েছে। কারণ, গেলো বছরে মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারায় ১৫৬ জন। গোটা দেশে ডেঙ্গু আক্রান্ত হন অনেকে।  

সরকারী পরিসংখ্যান বলছে, গেলো বছর জানুয়ারি তুলনায় এ বছর ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা বেড়েছে প্রায় পাঁচ গুণ। এখন পর্যন্ত সারাদেশের হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ২৩৭ জন। অথচ গতবছর এই সময়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন মাত্র ৫৬ জন।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা যায় মশার প্রজনন ক্ষেত্র হিসেবে চিহ্নিত স্থানগুলো ধ্বংসে নেই কোন কার্যকর পদক্ষেপ। মশার লার্ভা মারার ওষুধের প্রয়োগও বন্ধ। ফলে, সন্ধ্যার পর মশার উপদ্রবে টেকা দায় নগরবাসীর।

তবে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের দাবি, এ বছর আগেভাগেই মশা নিধন কার্যক্রম শুরু করেছে তারা। নাগরিকদের আশ্বস্ত করে ঢাকা উত্তর সিটির ভারপ্রাপ্ত মেয়র জানান, সারাবছরই অগ্রাধিকার ভিত্তিতে চালানো হবে এই কার্যক্রম।

সিটি কর্পোরেশনের পাশাপাশি নাগরিকদেরও বাড়ির আশপাশ এলাকা পরিস্কার রাখার আহবান জানান সিটি করপোরেশন কর্তৃপক্ষ।

এই বিভাগের আরো খবর

সোমবার ঢাকায় আসছে চীনা চিকিৎসক দল

কাজী বাপ্পা: করোনা ভাইরাস মোকাবেলায়...

বিস্তারিত
এখনই শুরু হচ্ছে না এইচএসসিতে ভর্তি কার্যক্রম

রীতা নাহার: করেনা সংকটের কারণে এবছর...

বিস্তারিত
দেশে করোনা সংক্রমণ দীর্ঘমেয়াদী হওয়ার আশংকা

শাহনাজ ইয়াসমিন: প্রতিরোধ ব্যবস্থা বা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *