একাকিত্ব মৃত্যুর আশঙ্কা বাড়ায়

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

আপডেট: ১১:৪৬, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: বলার অপেক্ষা রাখে না যে, জীবনে চলার পথে সঙ্গির গুরুত্ব অপরিসীম। অপরদিকে জীবনে সম্পূর্ণ ভাবে একা হয়ে যাওয়া যে শারীরিক ও মানসিক স্বাস্থ্যের জন্য খুব একটা ভাল নয়, সেই বিষয়ে কমবেশি সব মানুষেরই ধারণা রয়েছে। কিন্তু একাকিত্ব যে কতটা ক্ষতিকর, তা সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় আবারও সামনে এসেছে। মার্কিন মনস্তত্ত্ববিদ এফ ডায়ান বার্থ আধুনিক জীবনযাত্রার এই সঙ্কটের দিকে আলোকপাত করে একটি প্রতিবেদনে বলেছেন, ‘‘একাকিত্বের কারণে যেমন স্বাস্থ্যের অবনতি হতে পারে, তেমনই একাকিত্ব থেকে অকালমৃত্যুর প্রবল আশঙ্কা রয়েছে।’’

বার্থ তাঁর প্রতিবেদনে ২০১৬ সালে ‘নেচার’ পত্রিকায় প্রকাশিত একটি গবেষণা রিপোর্টের উল্লেখ করেছেন। ওই গবেষণা রিপোর্টে বলা হয় যে একাকিত্বের কারণে মানুষের শরীরে কিছু বিশেষ ধরনের রাসায়নিকের মাত্রা হ্রাস পায়। যে রাসায়নিকগুলি আঘাত ও অসুস্থতা প্রতিরোধে শরীরকে সাহায্য করে। যত একাকিত্ব বাড়বে, ততই কমবে শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা এবং তার ফলে বড় ধরনের অসুখবিসুখ নিরাময় হওয়ার সম্ভাবনাও কমবে।

তবে একাকিত্ব যে সব সময় সঙ্গীর অনুপস্থিতি বা অভাবের কারণে আসে তা কিন্তু নয়। অনেক মানুষই কিন্তু স্বেচ্ছায় একাকিত্ব বেছে নেন। আবার যাঁরা স্বভাবগতভাবেই অন্তর্মুখী, তাঁদের কাছে একাকিত্ব অনেকটা স্বাভাবিক। অন্তর্মুখী মানেই যে তিনি একাকিত্ব উপভোগ করবেন, এমনটা নয় অবশ্য। এমন অনেক অন্তর্মুখী মানুষ রয়েছেন, যাঁরা সঙ্গী বা সঙ্গিনীর মানসিক-শারীরিক উপস্থিতি চেয়ে থাকেন মনে মনে কিন্তু পান না।

মোট কথা হল, সঙ্গী বা সঙ্গিনী পাশে থাকলে একজন মানুষের জীবনে যন্ত্রণা কমে এবং স্বস্তি বাড়ে। দীর্ঘ সময় ধরে তেমনটা না হলে প্রতিরোধ ক্ষমতা যেমন নষ্ট হয়, তেমনই মানুষের বাঁচার ইচ্ছেও একটু একটু করে নষ্ট হতে থাকে। সামগ্রিক ভাবেই মনের উপর চাপ পড়তে থাকে, ডিপ্রেশন গাঢ় হতে থাকে। সেখান থেকে হৃদযন্ত্রের সমস্যা যেমন হতে পারে, তেমনই উদ্বেগ থেকে জন্ম নিতে পারে অ্যাজমার মতো অসুখ।

ডায়ান বার্থ বলছেন, যদি বন্ধু, সঙ্গী, আত্মীয়স্বজন কেউ না থাকে অথবা তেমন কারও সঙ্গে যোগাযোগ রাখতে না চান কেউ, তাহলে অন্ততপক্ষে যেন সোশ্যাল মিডিয়া বা অনলাইন কমিউনিটিগুলির সঙ্গে যুক্ত থাকেন একা মানুষেরা। এতে একাকিত্বের চাপ কমবে অনেকটা। তবে সোশ্যাল মিডিয়াতে এলেই যে একাকিত্ব উবে যাবে ম্যাজিকের মতো তা নয়। পাশাপাশি সঙ্গী নির্বাচনে একটু সতর্কও থাকতে হবে।

ডায়ানের মতে, সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রথমেই খুব গভীর সম্পর্কে না গিয়ে বরং নিজের প্রোফাইলেই শেয়ার করুন মনের কথা। সেখানে বাড়ুক কমেন্টস, আলোচনা। হোক মত বিনিময়। একাকিত্ব কাটাতে এটা হতে পারে দারুণ একটা উপায়। 

এই বিভাগের আরো খবর

স্ত্রীর অভিমান ভাঙাবেন যে ভাবে

অনলাইন ডেস্ক: দাম্পত্য জীবনের শুরুতে...

বিস্তারিত
ঘরে বসেই তৈরি করুন মজাদার ফ্রুট পুডিং

অনলাইন ডেস্ক: হালকা নাস্তার জন্য...

বিস্তারিত
সারাদিন সতেজ থাকতে গোসলে যা করবেন

অনলাইন ডেস্ক: শীত যেতে না যেতেই...

বিস্তারিত
যেভাবে বানাবেন মজাদার ‘ফিশ কেক’

অনলাইন ডেস্ক: ফিশ কেক খুবই সুস্বাদু...

বিস্তারিত
তারুণ্য ধরে রাখে ডাবের পানি

অনলাইন ডেস্ক: ডাবের পানি আমাদের...

বিস্তারিত
ভেজা চুলে ঘুমালে যে সমস্যা হয় 

অনলাইন ডেস্ক: ছোটখাটো কিছু ভুলের...

বিস্তারিত
চিকেন চাপলি কাবাব বানাবেন কিভাবে

অনলাইন ডেস্ক: সেই মুঘল আমল থেকেই...

বিস্তারিত
রাশিয়ান সালাদ বানাবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক: একই রকমের বোরিং সালাদ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *