বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিন ইভিএম মেশিন: আমির খসরু

প্রকাশিত: ০৪:৫২, ১৩ জানুয়ারি ২০২০

আপডেট: ০৪:৫২, ১৩ জানুয়ারি ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: যারা প্রযুক্তি বুঝে, যারা প্রযুক্তির জন্ম দেয় সেই সমস্ত দেশে ইভিএম বন্ধ করে দিয়েছে। এই ইভিএম ব্যবহার করলে তাদের ভোট অধিকার নিয়ে শঙ্কা আছে এই জন্য তারা এটাকে বাদ দিয়েছেন। বাংলাদেশের মানুষের অধিকারের স্বার্থে দয়া করে মেশিনগুলোকে বঙ্গোপসাগরে ফেলে দিন। এই জাতিটাকে এবার মাফ করে দেন বলে আক্ষেপ জানিয়েছেন, বিএনপি’র স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।  

আজ সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবে নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরাম আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

খসরু বলেন,  কোনো অনুমোদন ছাড়া নির্বাচন কমিশন এলসি খুলে সম্পূর্ণ বেআইনিভাবে ইভিএম মেশিন কিনেছেন। এতে দেশের জনগণের ৪ হাজার কোটি টাকা অপচয় হয়েছে। কোনো গণতান্ত্রিক দেশে যেখানে সামান্য পরিমাণ জবাবদিহিতা আছে সেখানে যারা মূল স্টেকহোল্ডার তাদের মতামত সম্পূর্ণ অগ্রাহ্য করে নির্বাচন কমিশন এরকম কাজ করতে পারে না। আর সবচাইতে বড় কথা হলো, আমাদের পার্শ্ববর্তী দেশ যেখানে ২১ হাজার টাকা করে ইভিএম মেশিন কিনেছে সেই ইভিএম মেশিন আমাদের নির্বাচন কমিশন কিনেছে দুই লাখ ৩০ হাজার টাকা দামে। অর্থাৎ প্রায় ১১ গুন বেশি দাম দিয়ে কিনেছে।

আমির খসরু আরও বলেন, ব্যালট বাক্সে প্রিজাইডিং কর্মকর্তার সই দিয়ে দিনের বেলা ভোট চুরি করা এতোটা সহজ নয় সেটা আওয়ামী লীগ ৩০ তারিখের নির্বাচনে বুঝতে পেরেছিল। তাই ২৯ তারিখ রাতে ভোট ডাকাতি করেছিল।

চট্টগ্রামের উপ-নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ইতোমধ্যে চট্টগ্রামের উপনির্বাচনে প্রায় সব কেন্দ্র ক্ষমতাসীনরা দখল করে নিয়েছে। অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে ভয়-ভীতির মাধ্যমে তারা কেন্দ্র দখল করে নিয়েছে। ভোটাররা ভোট দিক বা না দিক তারা তাদের ইভিএমের মাধ্যমে সুন্দরভাবে ভোটগুলো তাদের পক্ষে নিয়ে নিচ্ছে। কেন্দ্র দখল করে ইভিএমের মাধ্যমে সরকারি দল তাদের পক্ষে ভোটগুলো নিয়ে নিচ্ছে। ঢাকাতেও একই কার্যক্রম শুরু হয়েছে।

নাগরিক অধিকার আন্দোলন ফোরামের সহ সভাপতি কৃষিবিদ মেহেদী হাসান পলাশের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এম জাহাঙ্গীর আলমের সঞ্চলনায় মতবিনিময় সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপরি ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহমেদ আজম খান, যুগ্ন মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য বিলকিস ইসলাম, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমতউল্লাহ, জমিয়তে ওলামায়ে বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা সোয়াইব আহমেদ, মহানগর কৃষক দলের আহ্বায়ক অ্যাডভোকেট নাসির হায়দার, তাতী দলের যুগ্ন আহ্বায়ক কাজী মনিরুজ্জামান মনির প্রমুখ।

এই বিভাগের আরো খবর

কেঁচো খুঁড়লে সাপ বের হবে, বিএনপিকে কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: পিলখানা ইস্যুতে...

বিস্তারিত
অপরাধীদের প্রশ্রয় দেয় না আওয়ামী লীগ: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: মুখে নয়, বাস্তবে...

বিস্তারিত
৩ মামলায় পাপিয়া দম্পতি ১৫ দিনের রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক: নরসিংদী জেলা যুব...

বিস্তারিত
পাপিয়ার পেছনে কারা খুঁজে বের করা হবে: কাদের

নিজস্ব প্রতিবেদক: অস্ত্র, মাদক ও নারী...

বিস্তারিত
খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের শুনানি শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক: জিয়া দাতব্য সংস্থা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *