কেরানীগঞ্জে আগুনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪

প্রকাশিত: ১২:৫৬, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৯:৩৯, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের চুনকুটিয়া এলাকায় প্লাস্টিক কারখানায় আগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ জনে। বুধবার বিকেলে এই অগ্নিকাণ্ডে ঘটনাস্থলেই একজন মারা যান। পরে ভোর থেকে আজ বিকাল পর্যন্ত বিভিন্ন সময় তাদের মৃত্যু হয়। নিহতরা হলেন- জাহাঙ্গীর, ইমরান, বাবুল, রায়হান, খালেক, সালাউদ্দিন, সুজন, জিনারুল ইসলাম, আলম, জাকির হোসেন ও ফয়সাল।

এছাড়া গুরুতর দগ্ধ অবস্থায় চিকিৎসা নিচ্ছেন আরো ২৪ জন। তাঁদের সবার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন এ ইউনিটের জাতীয় সমন্বয়ক সামন্ত লাল সেন। তিনি জানান, এই ব্যক্তিদের সর্বনিম্ন ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে। তাঁদের সবারই শ্বাসনালি পুড়ে গেছে।

বুধবার বিকেল ৪টার দিকে কেরাণীগঞ্জের হিজলতলী বাজারে প্রাইম পেট এন্ড প্লাস্টিক কারখানায় আগুন লাগে।

কেন্দ্রীয় ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের ডিউটি অফিসার এরশাদ জানান, বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ১০টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে। সন্ধ্যা পৌনে ৬টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

এ অগ্নিকাণ্ডে প্রায় ১০ হাজার স্কয়ার ফিট কারখানাটির ভেতরের সব মালামাল ও যন্ত্রাংশ পুড়ে যায়। অগ্নিকাণ্ডের ধ্বংসস্তুপের ভেতর থেকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জাকির হোসেন (২২) নামে একজনের মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় প্রায় ৩৫ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। পরে আহতদের মধ্য থেকে রাত থেকে দুপুর পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে দশ জনের মৃত্যু হয়।

‘প্রাইম পেট অ্যান্ড প্লাস্টিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’র কারখানার গত দুই বছরে তিনবার অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে, যার দুটোই ঘটেছে চলতি বছরে। প্রতিটি অগ্নিকাণ্ড ছিল ভয়াবহ।

২০১৬ সালের ২৮ নভেম্বর কারখানাটিতে প্রথম অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। এরপর চলতি বছরের ২৫ এপ্রিল দ্বিতীয়বারের মতো আগুন লাগে। তবে ওই দু’টি অগ্নিকাণ্ডে কারখানার ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হলেও কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি।  সর্বশেষ বুধবার তৃতীয়বারের মতো আগুন লাগে কারখানাটিতে।

এই বিভাগের আরো খবর

ভূমিকম্পে কেঁপে উঠলো সিলেট

সিলেট সংবাদদাতা: সিলেটে মৃদু...

বিস্তারিত
হাসপাতালে আইসোলেশন ইউনিট খোলার নির্দেশ

অনলাইন ডেস্ক: সম্প্রতি চীনে দেখা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *