ভুল বুঝাবুঝি এড়াতে ভারতকে ভূমিকা রাখার আহবান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ০২:৪৬, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৯:৩৯, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগের যে কোন সময়ের তুলনায় বাংলাদেশ ও ভারতের সম্পর্ক এখন দৃঢ় বলে মনে করেন বিশিষ্টজনেরা। তবে এখনো একটি গোষ্ঠি এই সম্পর্ক নষ্ট করতে তৎপর রয়েছে বলে অভিযোগ তাদের।

আজ (শুক্রবার) সকালে জাতীয় যাদুঘরে ‘একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি’র আলোচনা সভায় এসব কথা বলেন বিশিষ্টজনেরা। এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, দুই দেশের সম্পর্ককে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে ভারতকে আরো ভূমিকা রাখতে হবে।

মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের জনগণের প্রত্যাশা, বন্ধুপ্রতিম ভারত এমন কিছু করবে না যাতে উভয় দেশের জনগণের মধ্যে দুশ্চিন্তা বা আতঙ্কের পরিবেশ সৃষ্টি হয়। বরং বন্ধুত্বের মাধ্যমে বাংলাদেশ ও ভারত এগিয়ে যাবে। উভয় দেশের জনগণের প্রত্যাশা পূরণ করবে।

স্বাধীনতা যুদ্ধের পর বাংলাদেশ ও ভারতের এক সাথে পথচলার ৪৮ বছর পূর্তিতে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি। শুক্রবার জাতীয় যাদুঘরে এই অনুষ্ঠানে যোগ দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী, বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার সহ বিশিষ্টজনেরা।

এ সময় অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিকসহ বক্তারা বলেন, স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের অকৃত্রিম বন্ধু হিসেবে ভারত যে পরিচয় দিয়েছে তা চিরস্মরনীয় হয়ে থাকবে। তবে এখনো একটি গোষ্ঠি এসব অস্বীকার করে ভারতকে শত্র্রুতে পরিণত করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাই কমিশনার রিভা গাঙ্গুলী বলেন, প্রতিবেশি দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশকে অগ্রাধিকার দেয় ভারত। বাংলাদেশের উন্নয়নে ভারত সবসময় পাশে থাকতে চায়। 

এ সময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, দুই দেশের বন্ধুত্বের সম্পর্ক আরো উচ্চতায় নিতে এক সাথে কাজ করতে হবে। এক্ষেত্রে ভারততে আরো ভূমিকা রাখার আহবান জানান তিনি।

বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে আত্মদানকারী ভারতীয়দের পর্যায়ক্রমে স্বীকৃতি দেয়ার কথাও জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এই বিভাগের আরো খবর

শোকাবহ ১৫ আগস্ট আজ

জয়দেব দাস : আজ শোকাবহ ১৫ আগস্ট। জাতীয়...

বিস্তারিত
গত ২৪ ঘন্টায় মৃত্যু ৩৪, শনাক্ত ২৭৬৬

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে করোনাভাইরাসে...

বিস্তারিত
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সবার কণ্ঠ রুদ্ধ : ফখরুল

নিজস্ব প্রতিবেদক: ডিজিটাল নিরাপত্তা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *