অপপ্রচারে কান না দেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত: ০২:১৮, ২১ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৫:০৭, ২১ নভেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশে কোন খাদ্য ঘাটতি নেই, বরং উদ্বৃত্ত আছে। বরাবরের মতই একটি গোষ্ঠী দেশ বিরোধী অপতৎপরতা চালাচ্ছে জানিয়ে গুজবে কান না দিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

আজ বৃহস্পতিবার (২১ নভেম্বর) সকালে সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষ্যে ঢাকা সেনানিবাসে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের সম্মানে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

একাত্তরে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় ২১শে নভেম্বর দেশের সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনী সম্মিলিতভাবে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণ করে। স্বাধীনতার পর থেকে এই দিনটি সশস্ত্র বাহিনী দিবস হিসেবে পালন করা হচ্ছে।

দিবসটি উপলক্ষে সকালের শুরুতেই স্বাধীনতা সংগ্রামে আত্মদানকারী শহীদ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সদস্যদের স্মরণে ঢাকা সেনানিবাসের শিখা অনির্বাণে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পরে সেনানিবাস মাল্টিপারপাস হলে খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের সম্মানে আয়োজিত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন প্রধানমন্ত্রী। এসময় খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারীদের হাতে উপহার ও সম্মানী ভাতা তুলে দেন তিনি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্যের শুরুতেই প্রতিটি মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের পাশে থাকার আশ্বাস দেন শেখ হাসিনা। বলেন, পঁচাত্তরে জাতির জনককে হত্যার মধ্যদিয়ে দেশ যে সম্মান হারিয়েছিল তা আবার ফিরিয়ে আনতে সক্ষম হয়েছে সরকার।

একটি মহল দেশকে অশান্ত করতে অপপ্রচার চালাচ্ছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “পেঁয়াজ নেই, লবণ নেই, এটা নেই, সেটা নেই নানা ধরনের কথা প্রচার হয় এবং এভাবে মানুষকে বিভ্রান্ত করে ফেলার চেষ্টা করা হয়। এটা করবে আমি জানি। এটা স্বাভাবিক। কিন্তু সেটাকে মোকাবেলা করেই আমাদের চলতে হবে। আমরা সেভাবেই চলছি।”

এ সময় স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাস সংরক্ষণের তাগিদ দিয়ে নিজ নিজ এলাকার মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস তুলে ধরতে মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

তিনি বলেন, আপনারা আপনাদের সন্তান, নাতি-পুতিদের কাছে মুক্তিযুদ্ধের গল্প বলবেন। তারা যেন মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে জানতে পারে। দেশকে ভালোবাসতে পারে। যুদ্ধ করে আমরা এ দেশ স্বাধীন করেছি। বাঙালি বীরের জাতি, এ কথা যেন নতুন প্রজন্মের সন্তানরা জানতে পারে। ভবিষৎ প্রজন্ম বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে চলবে। কারণ, আমরা বীরের জাতি। বঙ্গবন্ধু তার ৭ মার্চের ভাষণে বলেন, ‘বাঙালি জাতিকে কেউ দাবায়ে রাখতে পারবে না।’

এর আগে, শান্তি-শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ সেনাবাহিনী প্রধানসহ সেনা-নৌ ও বিমান বাহিনীর ১৪ কর্মকর্তার হাতে শান্তিকালীন পদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী।

এই বিভাগের আরো খবর

নতুন পেঁয়াজ বাজারে এলেও কমছে না দাম

তারেক সিকদার: নতুন পেঁয়াজ বাজারে এলেও...

বিস্তারিত
রাজধানীতে কৃষকের বাজার উদ্বোধন

নিজস্ব প্রতিবেদক: নিজ ক্ষেতে উৎপাদিত...

বিস্তারিত
নারীর প্রতি সহিংসতার প্রতিবাদে পদযাত্রা

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘নারী পুরুষের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *