দুদকের প্রতি আস্থা বেড়েছে মানুষের

প্রকাশিত: ১০:৫৬, ২১ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১২:৪৩, ২১ নভেম্বর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রতিষ্ঠার ১৫ বছরেও বড় বড় দুর্নীতির ক্ষেত্রে জনপ্রত্যাশা অনুযায়ী কাঙিক্ষত সাফল্য না পাওয়ার আক্ষেপ আছে দুর্নীতি দমন কমিশনের। তবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে সচেতনতা তৈরি হয়েছে এবং প্রতিষ্ঠানটির প্রতি মানুষের আস্থা বেড়েছে বলে মনে করেন দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ। দুর্নীতিবিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা টিআইবি বলছে- দুর্নীতির গভীরতা এতটাই বেড়েছে, তা দুদকের একার পক্ষে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব না।

২০০৪ সালের ২১ নভেম্বর ব্যুরো থেকে একটি স্বাধীন কমিশন হিসেবে যাত্রা শুরু করে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক। মূলত রাজনৈতিক প্রভাব মুক্ত রেখে দুর্নীতি দমন, নিয়ন্ত্রণ, প্রতিরোধ এবং সমাজে সততা ও নিষ্ঠাবোধ সৃষ্টির দায়িত্ব বর্তায় দুদকের ওপর।

২০০৭ সালে এক এগারোর সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় প্রভাবশালী রাজনৈতিক ব্যক্তিদের দুর্নীতির তদন্ত করতে নেমে আলোচনায় আসে সংস্থাটি। কিন্তু রাজনৈতিক পালাবদলে কিছুটা হলেও ভাটা পড়ে সেই কার্যক্রমে।

তবে এখন সেই অবস্থা আর নেই বলে মনে করছেন সংস্থাটির কর্মকর্তারা। ফিরতে শুরু করেছে মানুষের আস্থা। তাই অভিযোগ আসার সংখ্যা যেমন বাড়ছে, তেমনি বাড়ছে মামলা ও সাজার হার। তারপরও আক্ষেপের সুর দুদক চেয়ারম্যানের কণ্ঠে।

দুদক চেয়ারম্যান ইকবাল মাহমুদ এও বলেন, দুদক কিছু ক্ষেত্রে মানুষের আস্থা অর্জন হয়েছে, কিন্তু বড় বড় দুর্নীতির ক্ষেত্রে আমরা আকাঙ্খা পূরণে ব্যর্থ হয়েছি।

দুর্নীতি ও অনিয়মের বিরুদ্ধে সরকারের চলমান শুদ্ধি অভিযান দুদকের কার্যক্রমের ব্যাপ্তি আরও বাড়িয়েছে বলে জানালেন দুদক চেয়ারম্যান। তালিকায় যোগ হচ্ছে প্রভাবশালী দুর্নীতিবাজদের নাম।

তবে এই সফলতা দুদক কতুটুকু ধরে রাখতে পারবে, তা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেছেন দুর্নীতি বিরোধী আন্তর্জাতিক সংস্থা টিআই এর বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান।

দুর্নীতি ও অনিয়ম কমাতে জনসচেতনতার পাশাপাশি রাজনৈতিক, ব্যবসায়িক ও প্রশাসনিক প্রভাব দূর করার বিকল্প নেই বলেও মত দিয়েছেন তিনি।

চার বছরের দুদকের মামলা ও সাজার হার:

২০১৫        ৩৭ শতাংশ

২০১৬           ৫৪ শতাংশ

২০১৭        ৬৮ শতাংশ

২০১৮           ৬৩ শতাংশ

২০১৯        ৭০ শতাংশ

দুদকে আসা অভিযোগ

২০১৮           ১৬,৬০৬

২০১৭        ১৭,৯৫৩

২০১৬           ১২,৯৯০

২০১৯        ১৫,৪৯৭  (৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত)

এই বিভাগের আরো খবর

হাসপাতালগুলোতে রােগীদের চরম ভোগান্তি

আশিক মাহমুদ: হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে...

বিস্তারিত
করোনার বিরুদ্ধে ঘরে বসেই যেভাবে লড়েছি

প্রবীর বড়ুয়া চৌধুরী: চীনের উহানে...

বিস্তারিত
ওয়েব সিরিজের নামে অশ্লীল ভিডিও

ফাহিম মোনায়েম: মূলধারার সম্প্রচার...

বিস্তারিত
খোঁজ মিললো করোনায় জীবনরক্ষাকারী ওষুধের

অনলাইন ডেস্ক : করোনায় আক্রান্ত হয়ে...

বিস্তারিত
করোনা ঝুঁকি, সীমিত রয়েছে পাসপোর্ট কার্যক্রম

মাবুদ আজমী : সাধারণ ছুটির পর পাসপোর্ট...

বিস্তারিত
বাজেট পাশের আগেই শুল্ক কার্যকর !

নাঈম আল জিকো : বাজেটে সম্পুরক শুল্ক...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *