মধুমতির ভাঙনের কবলে নদী পাড়ের মানুষ

প্রকাশিত: ১০:৪১, ২১ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১১:৫২, ২১ নভেম্বর ২০১৯

ফরিদপুর সংবাদদাতা: মধুমতি নদী ভাঙনে চরম দুর্ভোগে পড়েছে নদী পাড়ের হাজারো মানুষ। গত দুই মাসে ভাঙনের কবলে পড়েছে ফরিদপুরের মধুমতি পাড়ের চারটি ইউনিয়নের বিস্তীর্ণ এলাকা। হুমকির মুখে বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি যাদুঘর ও তার বসত বাড়ি। বীর শ্রেষ্ঠের বাড়ি ও যাদুঘরে যাওয়ার একমাত্র রাস্তাটি নদী গর্ভে চলে যাওয়ায় কমছে দর্শনার্থীর সংখ্যা।

মধুমতি নদীর ভাঙন ভয়াবহ রূপ নিয়েছে। হুমকির মুখে পড়েছে ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মুন্সী আব্দুর রউফ স্মৃতি যাদুঘর ও তার বসত বাড়ি। গত দুই মাসে মুন্সী আব্দুর রউফ নগরীতে যাতায়াতের একমাত্র সড়কটির তিন’শ মিটার এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে  গেছে। সড়কটি পুনর্নির্মাণ না করায় ১০ থেকে ১২টি গ্রামের কয়েক হাজার মানুষের চলাচলে বিঘ্ন ঘটছে। এমনকি যাদুঘর দেখতেও যেতে পারছেনা দর্শনার্থীরা। সড়কটি পুনর্নির্মাণসহ নদী ভাঙন রোধে স্থায়ী সমাধান চান এলাকাবাসী।

নদীতে বিলীন হয়েছে এলাকার স্কুল, মাদ্রাসা, বাজারসহ বেশকিছু স্থাপনা। একটি গুচ্ছ গ্রামের পুরোটাই চলে গেছে নদীগর্ভে। এছাড়াও আলফাডাঙ্গা উপজেলার গোপালপুর, পাঁচুরিয়া ও টগরবন্দ ইউনিয়নের ৩ শতাধিক পরিবার নদী ভাঙ্গনের শিকার হয়েছে।

এদিকে, ভাঙন রোধে একটি সমন্বিত প্রকল্প নেয়া হয়েছে বলে জানান ফরিদপুর পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সুলতান মাহমুদ। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে নদী ভাঙ্গন প্রতিরোধ করা যাবে বলে জানান এই কর্মকর্তা।

এই বিভাগের আরো খবর

সারাদেশে নৌ ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক : গেজেট অনুযায়ী বেতন...

বিস্তারিত
উত্তরাঞ্চলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের...

বিস্তারিত
পণ্যবাহী নৌযান শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক : চাকরি স্থায়ীকরণ,...

বিস্তারিত
নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি, লঞ্চ চলাচল বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক: সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *