ফিলিস্তিনি ফটো সাংবাদিকের চোখ গুলিবিদ্ধ, অভিনব কায়দায় প্রতিবাদ

প্রকাশিত: ০৪:৩৫, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৪:৩৫, ১৯ নভেম্বর ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: ইসরায়েলি হামলায় ফিলিস্তিনি এক ফটো সাংবাদিকের চোখ(বাম) গুলিবিদ্ধ হওয়ায় বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সাংবাদিকরা এর প্রতিবাদ করেছেনআর তাই প্রতিবাদের অংশ হিসেবে ফিলিস্তিনের দুই সংবাদ পাঠক এক চোখে ব্যান্ডেজ পড়ে টেলিভিশনে খবর পড়েছেন

সোমবার (১৮ নভেম্বর) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এসব তথ্য জানায়

সংবাদে বলা হয়, শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) ফিলিস্তিনের পশ্চিম তীরে সুরিফ গ্রামে ফিলিস্তিনিদের একটি বিক্ষোভ কভারেজ করছিলেন মুয়াথ আমারন নামে (৩৫) এক ফ্রিল্যান্স ফটো সাংবাদিক।  গ্রাম দখল করার চেষ্টার প্রতিবাদে ইসরায়েলি সেনাদের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছিলেন গ্রামের বাসিন্দারাএসময় বিক্ষোভ ছত্রভঙ্গ করতে ইসরায়েলি বাহিনী গুলি ছোড়লে বাম চোখে গুলিবিদ্ধ হন মুয়াথবর্তমানে তিনি জেরুজালেমে অবস্থিত হাদাসাহ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেনডাক্তাররা জানান, মুয়াথের বাম চোখ রক্ষা করা যায়নি, অপারেশন করে তা অপসারণ করতে হয়েছে

এ ঘটনার প্রতিবাদে, সোমবার (১৮ নভেম্বর) ফিলিস্তিন টিভিতে রাত ৯টার সংবাদে দুই সংবাদ পাঠককে বাম চোখে ব্যান্ডেজ করে খবর পড়তে দেখা যায়এছাড়া বিভিন্ন সংবাদিক ও ফিলিস্তিনি কর্মীদের নিজেদের এক চোখ হাতে বা ব্যান্ডেজে ঢেকে ছবি আপলোড করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিবাদ করে

সাংবাদিক মুয়াথ বলেন, আমি সাংবাদিকের স্পষ্ট আইডি কার্ড ও হেলমেট পরে এক পাশেই দাঁড়িয়ে ছিলামহঠাৎ কিছু একটা জোরে এসে আমার বাম চোখে আঘাত করেআমি চোখের ওপর আমার হাত চেপে ধরে দেখি কিছুই নেইপরে আমি কিছুই দেখতে পাচ্ছিলাম না, আমার বাম চোখ একদম শেষ হয়ে গেছে

এই বিভাগের আরো খবর

দেশজুড়ে বৈশাখীর জন্মদিন উদযাপন

ডেস্ক প্রতিবেদন: বৈশাখী টেলিভিশনের...

বিস্তারিত
দিনভর ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত বৈশাখী টেলিভিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৪ বছরের পথ চলা শেষ...

বিস্তারিত
গৌরবের ১৫ বছরে বৈশাখী টেলিভিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক: সাফল্য ও গৌরবের ১৫...

বিস্তারিত
১৫ বছরে পদার্পণ করলো বৈশাখী টেলিভিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক: ১৫ বছরে পদার্পন...

বিস্তারিত
কাল ১৫ বছরে পদার্পণ করছে বৈশাখী টেলিভিশন

নিজস্ব প্রতিবেদক: মুক্তিযুদ্ধের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *