ওয়ান্ডারার্স ক্লাবের গর্ব বঙ্গবন্ধু ছিলেন খেলোয়াড়

প্রকাশিত: ০৯:৩৭, ০৪ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১২:২২, ০৪ নভেম্বর ২০১৯

ইমদাদুল্লাহ বাবু: সাম্প্রতিক ক্যাসিনো কেলেংকারি শুধু রাজনীতি নয়, সমালোচনা ও বিতর্কের মুখে ফেলেছে দেশের ক্রীড়াঙ্গনকেও। 

ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব। নামটি শুনে বয়সে যারা প্রবীণ তাদের স্মরণে আসবে ক্লাবটির ফুটবল দলের দুর্দান্ত খেলার কথা। সেই স্মৃতি যাদের নেই সেই নবীনরা চিনছেন এখন অবৈধ ক্যাসিনোর জন্য। 

নবাব হাসান আসকারী তার বাবা ঢাকার চতুর্থ নবাব খাজা হাবিবুল্লাহ’র সহায়তায় ১৯৩৭ সালে ওয়ান্ডারার্স ক্লাব গঠনের উদ্যোগ নেন। প্রথম সভাপতি ছিলেন মোতালেব ঠিকাদার ও সাধারণ সম্পাদক ছিলেন কালু ব্যাপারি। এই ক্লাবের সংরক্ষিত সব ইতিহাস পুড়ে যায় ১৯৬৯ সালে। তখন বায়তুল মোকাররম মসজিদের পূর্ব গেটে ক্লাবের কার্যালয় ছিলো। 
        
১৯৪০ থেকে ১৯৬০ সাল পর্যন্ত ফুটবলে সোনালী সময় ছিলো ওয়ান্ডারার্সের। তারুণ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান এই ক্লাবের ফুটবলার ছিলেন। একসময় আরেক প্রাচীন ক্লাব মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের প্রধান প্রতিদন্দ্বী ওয়ান্ডারার্স ১৯৪৮ থেকে ৭০ সাল পর্যন্ত ঢাকা ফুটবল লিগে ৭ বার চ্যাম্পিয়ন হয়। এই ক্লাবে অ্যাথলেটিক, রাগবি, বাস্কেট বল ও সাইক্লিংসহ আরও নানা খেলার দল ছিল। এতিহ্যের গল্প ক্লাবের সম্পদ ছিল। 
        
ক্লাব প্রতিষ্ঠার জন্য সমাজসেবা অধিদপ্তর এবং জয়েন্ট স্টক কোম্পানির নিবন্ধন দরকার হলেও  ঢাকা ওয়ান্ডরার্স ক্লাবের জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের ছাড়পত্র ছাড়া আর কিছুই নেই। 

ঢাকা ওয়ান্ডারার্স ক্লাব বর্তমানে শুধু ফুটবল, ক্রিকেট, কাবাডি, হকি, বক্সিং, এবং সুইমিং খেলায় সীমাবদ্ধ।

এই বিভাগের আরো খবর

দুর্দিনে পত্রিকার হকাররা, ফিরছেন গ্রামে

পার্থ রহমান: করোনার দুর্যোগকালে...

বিস্তারিত
হাসপাতালগুলোতে রােগীদের চরম ভোগান্তি

আশিক মাহমুদ: হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে...

বিস্তারিত
করোনার বিরুদ্ধে ঘরে বসেই যেভাবে লড়েছি

প্রবীর বড়ুয়া চৌধুরী: চীনের উহানে...

বিস্তারিত
ওয়েব সিরিজের নামে অশ্লীল ভিডিও

ফাহিম মোনায়েম: মূলধারার সম্প্রচার...

বিস্তারিত
খোঁজ মিললো করোনায় জীবনরক্ষাকারী ওষুধের

অনলাইন ডেস্ক : করোনায় আক্রান্ত হয়ে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *