প্রথম টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে হারালো বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ০২:৪৫, ০৪ নভেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১১:৫৯, ০৪ নভেম্বর ২০১৯

তৌহিদুল আলম: দেশের ক্রিকেটে যখন ঘনকালো মেঘ, ঠিক তখনই সবাইকে অবাক করে দিয়ে টি-টোয়েন্টিতে ভারতের বিপক্ষে মাইলফলক জয়টি ছিনিয়ে আনলো টাইগাররা। নানা দুর্যোগে যে ভারত সফর কয়েক সপ্তাহ আগেও অনিশ্চিত হয়ে উঠেছিলো, সেই সিরিজের প্রথম টি- টোয়েন্টিতে ৭ উইকেটে বাংলাদেশ হারিয়েছে মহাশক্তির ভারতকে। স্বাগতিক দেশটির সাথে এর আগে ৮টি টি- টোয়েন্টি ম্যাচেই হেরেছে টাইগাররা। দিল্লীতে প্রথম জয়টি ধরা দিলো এমন এক সময়ে যখন দলে নেই সাকিব, তামিমের মতো গুরুত্বপূর্ণ দু’জন খেলোয়াড়।  

দিল্লীর বাতাসে চরম দুষণ, আর গত কয়েক সপ্তাহ ধরে বাংলাদেশের ক্রিকেট দল নিয়ে নানা দুর্যোগের মধ্যেও সিরিজের প্রথম টি- টোয়েন্টিতে টাইগাররা যে খেলার শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ভারত থেকে এগিয়ে জয় আনবে এমনটা হয়তো কারো ভাবনাতেই ছিলো না।

 কিন্তু তামিম, সাকিব ছাড়াই কিছুদিন আগেও নানান আন্দোলনে, বিক্ষোভে আলোচিত বাংলাদেশের ক্রিকেটাররা এমন বিস্ময়কর জয় ভারতের বিপক্ষে আনতে পারে সেটাই রোববার প্রমাণ করলো।

ম্যাচের ১৯তম ওভারটিতে ১৮ রান তুলে নিলে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচটি যে টাইগাররা জিতে নিচ্ছে সেটা বুঝতে বাংলাদেশ ও ভারতের কোটি কোটি ক্রিকেট প্রেমির কারোরই অসুবিধা হয়নি।

মাহমুদউল্লাহ ছয় হাকিয়ে ম্যাচটি জয় করলেও তখন দরকার ছিলো মাত্র একটি রান। এর আগে তার সাথে ক্রিজে থাকা মুশফিক ম্যাচসেরা ৬০ রান তুলে দলের জয়ের ভিত গড়েছেন। আর মুশফিকের সাথে বড় পার্টনারশিপ গড়ে জয়ের দ্বারপ্রান্তে দিয়ে গিয়েছিলেন সৌম্য সরকার। ব্যাটসম্যানদের এমন অনবদ্য খেলার পরও অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ বড় কৃতিত্ব দিলেন দলের বোলারদেরকে। কেননা টস জিতে প্রতিপক্ষকে ব্যাট করতে পাঠাবার পর টাইগার বোলাররা ১৪৮ রানে বেধে ফেলেছিলো ব্যাটিং শক্তির ভারতকে।

কয়েক সপ্তাহ আগেই নানা দাবি দাওয়ায় টাইগাররা খেলা বন্ধ করে দিয়েছিলো। ধর্মঘটে যাওয়ায় অনিশ্চিত হয়েছিলো ভারত সফর। সেই মেঘ কাটতে না কাটতেই আইসিসি একটি ভুলের জন্য নিষিদ্ধ করে দলের বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিবকে। আর দলের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ব্যক্তিগত কারণে সফরে নেই। এমন সব ঘটনায় নানা আশংকা, দুর্ভাবনা ছিলো ভারত সফরের খেলাগুলো নিয়ে। যদিও রোববারের ম্যাচে টাইগারদের খেলায় কোন দুর্যোগের ছাপ দেখা যায়নি।

ক্রিকেট ইতিহাসের এক হাজারতম টি-টোয়েন্টি ম্যাচটিতে টস জিতে ফিল্ডিং বেছে নিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। প্রথম ওভারেই  রোহিতকে ফেরালেন সফিউল। সেই শুরু সাফল্যের। টাইগার বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে কোণঠাসা স্বাগতিক ব্যাটসম্যানরা। তরুণ লেগ স্পিনার বিপ্লবও শিকার করলেন দুটি উইকেট। সুযোগ হাতছাড়া করেননি বাকি বোলাররাও। আফিফের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে চাপে ভারত। তবে শিখর ধাওয়ানের ৪১ ও শেষ দিকে ক্রুনাল পান্ডিয়ার ১৫ ও ওয়াশিংটন সুন্দরের ১৪ রানের সুবাদে ভারতের পুুঁজি ছয় উইকেটে ১৪৮ রান।

 

এই বিভাগের আরো খবর

নির্দেশনা মেনেই মাঠে ফিরতে চায় ফেডারেশনগুলো

এস.এম.সুমন: করোনা ভাইরাসের প্রভাবে গত...

বিস্তারিত
২৩ সেপ্টেম্বর শ্রীলঙ্কা যাচ্ছে টাইগাররা

ক্রীড়া প্রতিবেদক: সব কিছু ঠিক থাকলে...

বিস্তারিত
অনুশীলন বাতিল করলো অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ

ক্রীড়া ডেস্ক: ইউরোপিয়ান ফুটবলের...

বিস্তারিত
ইউএইতেই হবে এবারের আইপিএল

ক্রীড়া ডেস্ক: ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার...

বিস্তারিত
ফুটবল কসরতে রেকর্ড ঝালকাঠির জুবায়েরের

ঝালকাঠি সংবাদদাতা: ফুটবল নিয়ে বিশেষ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *