ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫

2018-11-14

, ৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

দৈহিক স্থুলতার কারণে বাংলাদেশে বাড়ছে কিডনি রোগির সংখ্যা

প্রকাশিত: ০৩:৪২ , ০৩ মার্চ ২০১৭ আপডেট: ০৩:৪২ , ০৩ মার্চ ২০১৭

দৈহিক স্থুলতায় দেশে কিডনি রোগির সংখ্যা ব্যাপক হারে বাড়ছে বলে জানান চিকিৎসকরা; তবে জীবনযাত্রার মান পরিবর্তনেরর মাধ্যমে মৃত্যুঝুঁকি ৬৮ শতাংশ কমানো সম্ভব। ৯ই মার্চ বিশ্ব কিডনি দিবস উপলক্ষ্যে এক আলোচনায় একথা জানান তারা। বিশ্বে এখন  কিডনি রোগীর সংখ্যা ৫০কোটি আর দেশে এর সংখ্যা প্রায় দু কোটি। দিনদিন এই রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। কায়িক পরিশ্রম এর থেকে রেহাই করতে পারে বলে মত দিলেন চিকিৎসক।

৯ই মার্চ কিডনি দিবসকে সামনে রেখে বিশ্বের অনান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও চলছে নানা আয়োজন। কিডনি এওয়ারনেস মনিটরিং এণ্ড প্রিভেনশন সোসাইটি সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। এতে উঠে আসে কিডনি রোগের ভয়াবহতা।

স্থুলতা কিডনি রোগের ঝুঁকি বাড়ায়: সুস্থ কিডনির জন্য সুস্থ জীবনধারা” এ শিরোনামের  আলোচনায় উঠে আসে মানুষের মুটিয়ে যাওয়া স্বাস্থের জন্য উদ্বেগ বাড়ছে।

চিকিৎসকরা জানালেন কেবল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রেই অতি ওজনের জন্য প্রায় ৩ লক্ষ মানুষ মৃত্যুবরণ  করেন। এ অবস্থায় বিশিষ্ট কিডনি বিশেষজ্ঞ ডাক্তার এম এ সামাদ জানালেন  প্রতিদিন অন্তত ৩০ মিনিট হাটা, শাক-সবজি ও ফলমূল খেতে পারলে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

আর জীবনযাত্রার পরিবর্তন করতে পারলে ৬৮ শতাংশ মৃত্যুঝুঁকি কমানো সম্ভব বলে জানান  চিকিৎসকরা। কিডনির চিকিৎসা অত্যন্ত ব্যয়বহুল তাই এই রোগকে দূরে রাখতে পরামর্শ দেন কিডনি ফাউন্ডেশনের সভাপতি।

অনুষ্ঠানে চিকিৎসকরা বলেন স্থূলতার সাথে কিডনি রোগের সম্পর্ক সরাসরি। বাড়তি ওজন সরাসরি কিডনির ছাকনি নষ্ট করে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

হঠাৎ অদৃশ্য হয় যে প্রাণী

ডেস্ক প্রতিবেদন: সমুদ্রে কিছু প্রাণী অদৃশ্য হতে পারে। বিষয়টি নানা প্রশ্ন জাগায়। আসলে কি এমন প্রাণী আছে? হ্যাঁ, কিছু প্রাণী রয়েছে যারা নিজের...

মাছও রাস্তা পার হয়!

ডেস্ক প্রতিবেদন : রাস্তার মাঝখানে বেশ খানিকটা জায়গা ফাঁকা। দুই পাশেই যানবাহনের ছোট সারি। হঠাৎ দেখায় মনে হদে পারে ট্রাফিক সিগনালে আটকে আছে...

কাজের ফাঁকে বিরতি নিন

ডেস্ক প্রতিবেদন: বিশ্বব্যাপী হার্ট অ্যাটাকে মৃত্যুর হার বাড়ছে। হৃদরোগের ঝুঁকিতে আছে বহু মানুষ। সাম্প্রতিক এক সমীক্ষা প্রতিবেদন বলছে,...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is