ক্যাপসিকামের নানা গুণ

প্রকাশিত: ১১:১৬, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

আপডেট: ১১:১৬, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: ক্যাপসিকাম বা সুইট বেল পেপার, উদ্ভিদের সোলানাসিয়াই গোত্রের অন্তর্ভূক্ত যার মধ্যে লঙ্কা, গোলমরিচ ইত্যাদি রয়েছে। এগুলি নানা রকমের রং-এর হয়ে থাকে। যেমন- লাল, সবুজ, হলুদ বেগুনী।  যেখানে সবুজ আর বেগুনী ক্যাপসিকামগুলি সামান্য তেঁতো স্বাদের হয়ে থাকে, সেখানে লাল, হলুদ কমলা রং-এর গুলোমিষ্টি হয়।

ক্যাপসিকাম বিশ্বজুড়ে বিখ্যাত এবং বিভিন্ন ধরণের রান্নায় এর ব্যবহার হয়। ভারতে এই সবজি বিভিন্ন নামে যেমন, 'সিমলা মির্চ', 'ভোপালী মির্চ', 'পেড্ডা মিরাপ্পা' ইত্যাদিতে পরিচিত।

ক্যাপসিকাম শুধুমাত্র আকর্ষনীয় সুস্বাদুই নয়, বরং এর মধ্যে নানারকম পরিপোষক উপাদান যেমন ভিটামিন-, সি এবং কে, ফাইবার, ক্যারাটোনয়েডসম্যাঙ্গানিজ পটাসিয়াম ইত্যাদি রয়েছে। আমাদের শরীরের জন্য ক্যপসিকামের নাননা উপকার এখানে তালিকা করে দেওয়া হল, আসুন দেখে নেওয়া যাকঃ

. ত্বক হাড় জন্য ভালো: ক্যাপসিকামের মধ্যে ভিটামিন সি থাকায় চোখ এবং ত্বককে ভালো রাখে। ভিটামিন-কে রক্ততঞ্চনে সাহায্য করে। এটা হাড়কে মজবুত করতে সাহায্য করে।

. চোখের জন্য সহায়কঃ ক্যাপসিকামে সমৃদ্ধ পরিমাণে ভিটামিন- রয়েছে, যা চোখের জন্য বিশেষত রাত্রিকালীন দৃষ্টির জন্য ভাল। আমরা যদি নিয়মিত ক্যাপসিকাম খাই তবে এতে উপস্থিত ক্যারোটেনয়েডের কারণে, বয়স জনিত দৃষ্টিশক্তি হ্রাস বা ম্যাকিউলার ডিজেনারাইজেশনের সম্ভাবনা কমে যায়। এতে উপস্থিত ভিটামিন-সি ক্যারোটিন, একে চোখের ছানির বিরুদ্ধে একটি খুব ভাল এজেন্টে পরিণত করে।

. বাত প্রতিরোধ করে: ক্যাপসিকাম বাতের মতো সমস্যার প্রতিরোধ করে। সিনকোনা নামক জড়িবুটির সাথে ক্যাপসিকাম খেলে, তা গেঁটে বাত রিউমেটিক আর্থারাইটিসের উপশমে খুব ভাল কাজ করে।

. আয়রনের অভাবের সাথে লড়তে সাহায্য করে: ক্যাপসিকাম ভিটামিন-সি এর একটি মূখ্য উৎস, যা আয়রনের শোষণের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং এটি রক্তাল্পতার মতো রোগও প্রতিরোধ করে।

. ওজন কমাতে: যদি ওজন কমাতে চান তা হলে খেতে পারেন সবুজ ক্যাপসিকাম।

. হজমে সাহায্য করে: যারা গ্যাস্ট্রোইনটেস্টাইনাল সমস্যায় ভুগছেন, তাদের জন্য সবুজ ক্যাপসিকাম খুবই ভালো। এটি পাকস্থলীর আলসার বা ঘা সারাতেও সাহায্য করে।

. ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করে: ক্যাপসিকাম ডায়াবেটিস নিয়িন্ত্রণ করতেও কার্যকর এবং রক্তে শর্করার মাত্রা স্থির রাখে।

. ক্যানসার প্রতিরোধে: ক্যানসারের ওসুধ হিসেবে দারুণ উপকারী সবুজ ক্যাপসিকাম অথবা বেলপেপার।

. চুলের বৃদ্ধিতে: চুল পড়ার সমস্যা নিয়ে প্রায় সকলেই ভুক্তভোগী। কিন্ত ক্যাপসিকাম সেই সমস্যার সমাধান পেতে পারেন।

১০. - টুকরো ক্যাপসিকাম গরম জলে সেদ্ধ করে নিন। আর - টুকরো শুকনো ক্যাপসিকাম একসঙ্গে পেস্ট করে একটি হেয়ার প্যাক বানিয়ে নিন। এর পরে ১২-১৫ মিনিট মাথার স্ক্যাল্পে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা জল দিয়ে ফেলুন।

১১. অনাক্রমতাকে উন্নত করে: ক্যাপসিকামে উপস্থিত ভিটামিন-সি আমাদের অনাক্রমতা বা ইমিউনিটিকে উন্নত করতে সাহায্য করে। বেল পেপারের সাদা ঝিল্লিতে পাওয়া ক্যাপসায়াসিন কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় এবং এর ফলে অনাক্রমতা উন্নত হয়।

এই বিভাগের আরো খবর

বিবাহিত নারীরাই বেশি পরকিয়া করে

অনলাইন ডেস্ক: বিয়ের পর স্বামী বা...

বিস্তারিত
ওজন কমায় পাকা পেঁপে বীজ

অনলাইন ডেস্ক: অতিরিক্ত ওজন শরীরের...

বিস্তারিত
দীর্ঘদিন পেঁয়াজ সংরক্ষণের উপায়

অনলাইন ডেস্ক: পেঁয়াজের ঝাঁজে বাজার...

বিস্তারিত
সবুজ আপেল নাকি লাল আপেল ভালো?

অনলাইন ডেস্ক: কথায় আছে ডাক্তারের থেকে...

বিস্তারিত
মিষ্টি আলুর রয়েছে অনেক ঔষধি গুণ

অনলাইন ডেস্ক: মিষ্টি আলু খেতে খুবই...

বিস্তারিত
ওষুধ ছাড়া ভালো ঘুমের ১০ উপায়

অনলাইন ডেস্ক: দিনের ক্লান্তি দূর করতে...

বিস্তারিত
দাম্পত্য জীবন মধুর করতে যা করবেন

অনলাইন ডেস্ক: সুখী দাম্পত্য জীবনের...

বিস্তারিত
সঠিক সঙ্গী পেয়েছেন কি না বুঝবেন যেভাবে

অনলাইন ডেস্ক: ভালো সম্পর্ক গড়ার জন্য...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *