জুয়ার দুর্বল আইনে উপযুক্ত সাজা নিয়েও সন্দেহ

প্রকাশিত: ০৬:৩৯, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১০:২৩, ১৪ অক্টোবর ২০১৯

এজাজুল হক মুকুল: অবৈধ ক্যাসিনো ও জুয়ার বিরুদ্ধে সরকারের অভিযানে আটক ব্যক্তিদের সাজা পাওয়া নিয়ে নানা আলোচনা চলছে। উপযুক্ত সাজা হওয়া নিয়েও রয়েছে সন্দেহ-সংশয়। কারণ জুয়া সংক্রান্ত বর্তমান আইনটি দেড়শো বছরের পুরনো অর্থাৎ ১৮৬৭ সালের। এই আইনে জুয়ার শাস্তি মাত্র একশ’ টাকার জরিমানা।

আইন বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জুয়া দেশে অবৈধ। তবে এর সঙ্গে জড়িতরা অন্য যেসব অপরাধ করছে তার সঠিক বিচার হলে প্রতিকার মিলবে। 

জুয়ার সাথে অনেকেই পরিচিত কিন্তু ক্যাসিনো শব্দের সাথে পরিচিত নন সবাই। ইউরোপ, আমেরিকা, এশিয়ার বেশিরভাগ দেশেই জুয়া খেলার জায়গা হিসেবে ক্যাসিনো জনপ্রিয়।

স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু সরকার দেশে মদ-জুয়া নিষিদ্ধ করেছিলো। ১৯৭২ সালের সংবিধানে জুয়া বন্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়ার কথাও বলা আছে। যদিও পরবর্তীকালে এ বিষয়ে আর নতুন কোনো আইন হয়নি, তাই এখনো কার্যকর রয়ে গেছে দেড়শ’ বছরের বেশি পুরনো আইন।

সম্প্রতি ঢাকার ক্রীড়া ক্লাবগুলোতে আইনশৃংখলা অভিযানে ক্যাসিনো চালানোর খবর প্রকাশিত হলে ব্যাপক আলোচনায় আসে হালে জনপ্রিয় এই জুয়া। গোয়েন্দাদের তথ্য মতে, ঢাকায় ষাটটি ক্যাসিনোর অস্তিত্ব রয়েছে। ক্যাসিনোর সরঞ্জাম ও কর্মরত বিদেশি নাগরিকরা কিভাবে এলো? আলোচনা হচ্ছে তা নিয়েও। দুর্বল আইনের কারণে অবৈধ এই ব্যবসায় জড়িতরা কি পার পেয়ে যাবে?

দুদকের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান বলেন, কিছু মানুষকে অভিযানে আটক করা হয়েছে ঘটনাস্থল থেকে। জুয়ার প্রচলিত আইনে তাদের শাস্তি নগন্য। কিন্তু জুয়া খেলার মেশিনগুলো কারা আমদানির অনুমতি দিয়েছে? রাজস্ব বোর্ড, কাস্টমস কোন আইনে এগুলোর ছাড়পত্র দিয়েছে তা খুঁজে বের করা উচিত।

সিনিয়র আইনজীবী খন্দকার মহবুব হোসন সহ অন্য আইনজীবীরা প্রচলিত আইন সংশোধন করে ক্যাসিনো ব্যবসার মূল হোতাদের শাস্তির আওতায় আনার আহ্বান জানান।  

এই বিভাগের আরো খবর

বিশ্ব মান দিবস আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক: আজ সোমবার ১৪...

বিস্তারিত
ছাত্র রাজনীতির সংস্কার চান সাবেক নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক: নৈতিক অবক্ষয়ের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *