এডিস মশার ওষুধ ক্রয়ে ব্যাপক দুর্নীতি: টিআইবি

প্রকাশিত: ০২:২২, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আপডেট: ১০:৪৮, ১৪ অক্টোবর ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীতে ডেঙ্গুর ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হওয়ার পেছনে দুই সিটি কর্পোরেশনের দায়িত্বহীনতা, অবজ্ঞা, এবং রাজনৈতিক অব্যবস্থপনাকে দায়ী করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। সংস্থার দাবি, আগে থেকে সতর্কতা থাকা সত্ত্বেও দুই সিটি কর্পোরেশন কোন কার্যকর উদ্যোগ নেয়নি। এমনকি এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ওষুধ ক্রয় নিয়েও ব্যাপক দুর্নীতির তথ্য থাকার দাবি করেছে টিআইবি।

বুধবার (২৫ সেপ্টেম্বর) সকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে মাইডাস ভবনে টিআইবি আয়োজিত ‘ঢাকা শহরে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে সুশাসনের চ্যালেঞ্জ ও উত্তরণের উপায়’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, এডিশ মশা নিয়ন্ত্রণে বাজেটের কোন ঘাটতি ছিলো না। কিন্তু অর্থের অপব্যবহার করা হয়েছে। ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে বা নিধনের জন্য একই ওষুধ কেনায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশের চেয়ে দক্ষিণ সিটি ৪০ শতাংশ বেশি টাকা খরচ করেছে বলে ট্রান্সপারেসি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) এক প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। দরপত্র পদ্ধতি, নথি ও দাখিলেও অনিয়ম দেখা গেছে। কীটনাশক কেনার আগে মাঠপর্যায়ে পরীক্ষায় অনিয়ম ও সীমাবদ্ধতা ছিল। মশক নিধন কার্যক্রমেও অনিয়ম দুর্নীতি আছে। 

ডিএসসিসি ডাকইয়ার্ড অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কস লিমিটেডের মাধ্যমে লিমিট এগ্রোপ্রোডাক্টের কাছ থেকে প্রতি লিটার কীটনাশক ৩৭৮ টাকায় সরাসরি কেনার কার্যাদেশ দেয়। একই প্রতিষ্ঠান ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) উন্মুক্ত দরপত্রে প্রতি লিটার কীটনাশক ২১৭ টাকায় দেয়ার প্রস্তাব করে। এ হিসাবে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ক্ষতি হয়েছে প্রতি লিটারে ১৬১ টাকা। অর্থাৎ ৪০ শতাংশ বেশি আর্থিক ক্ষতি করে দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন কীটনাশক কিনেছে।

এছাড়া রয়েছে লোক দেখানো অপ্রয়োজনীয় নানা ব্যয়। টিআইবি বলছে, প্রাক বর্ষা মৌসুমে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে এডিস মশার লার্ভার ঘনত্ব ছিল ২১ শতাংশ এবং দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে ছিল ২৬ শতাংশ। অথচ ২০ শতাংশের বেশি এডিস মশার লার্ভার উপস্থিতি থাকলে ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিবেচনা করা হয়। ২০১৮ সালেও দুই সিটির গড় ২০ শতাংশের বেশি ছিল। এটি ক্ষতিকর মাত্রার চেয়ে বেশি বলে তাদের অবহিত করেছিল আইসিডিডিআরবি (আন্তর্জাতিক উদরাময় গবেষণা কেন্দ্র, বাংলাদেশ)।

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন টিআইবির গবেষক মোহম্মাদ জুলকার নাইন এবং মোস্তফা কামাল।

 

এই বিভাগের আরো খবর

জামালপুরে সড়ক সংস্কার কাজে অনিয়ম

জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুরে সড়ক...

বিস্তারিত
ঘুষ ছাড়া সেবা মেলে না, ৮৯ ভাগ মানুষের মত

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঘুষ না দিলে সেবা...

বিস্তারিত
এডিস মশার ওষুধ ক্রয়ে ব্যাপক দুর্নীতি: টিআইবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীতে ডেঙ্গুর...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *