পড়ার বিষয় তৈরি পোশাকশিল্প খাত

প্রকাশিত: ০৪:৫৪, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৪:৫৪, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: আমাদের দেশের অর্থনীতির বড় একটি শক্তির জায়গা হলো বস্ত্র ও তৈরি পোশাকশিল্প। অথচ আমাদের দেশের তরুণ-তরুণীরা স্বপ্ন দেখে চিকিৎসক হবে, প্রকৌশলী হবে, গবেষণা করবে, ব্যবসায়ী হবে— এ রকম অনেক লক্ষ্যের কথা শুনি। কিন্তু ‘বাংলাদেশের তৈরি পোশাকশিল্প নিয়ে কাজ করব’—স্কুল-কলেজ পর্যায়ে এমনটা বোধ হয় খুব কম ছেলেমেয়েই ভাবে।

গোটা পৃথিবীতে তৈরি পোশাক রপ্তানিতে বাংলাদেশের অবস্থান দ্বিতীয়। ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রথম মাস, অর্থাৎ গত জুলাইয়ে ৩৩১ কোটি ডলারের তৈরি পোশাক রপ্তানি হয়েছে। এই আয় গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ৯ দশমিক ৭ শতাংশ বেশি। অর্থাৎ, সামনের দিনগুলোতে হয়তো আমরা আরও ভালো করতে পারব, যদি তরুণেরা চ্যালেঞ্জটা নেন।

আমাদের দেশে টেক্সটাইল বা তৈরি পোশাক–সংক্রান্ত পেশাগুলো নিয়ে নানা মতভেদ আছে। একদল বলবে টেক্সটাইলের চাকরি মানে দরজির কাজ, কেউ মনে করে টেক্সটাইলের চাকরি মানে গার্মেন্টসের সুইং অপারেটর কিংবা মার্চেন্ডাইজার হওয়া। আদতে কিন্তু এই খাতে চাকরি, গবেষণা বা উচ্চশিক্ষার পরিসরটা অনেক বড়, সুযোগও অনেক বেশি। কেন যেন আমরা এখনো জীবনের লক্ষ্য ঠিক করতে গিয়ে এই জায়গার কথা ভাবি না।

সুযোগ সম্ভাবনা
পোশাকশিল্পই হচ্ছে বাংলাদেশের অর্থনীতির মূল চালিকা। যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ, কানাডায় আমরা আগে থেকেই রপ্তানি করতাম, এখন তার সঙ্গে চীন, ব্রাজিল, জাপান, রাশিয়া, তুরস্ক, অস্ট্রেলিয়া, ভারতও যুক্ত হয়েছে। বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সংগঠনের (বিজিএমইএ) দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, গত সাড়ে পাঁচ বছরে ১ হাজার ২৫০টি কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে, কিন্তু চালু হয়েছে নতুন ৩০০-৩৫০টি কারখানা। এর মধ্যে পরিবেশবান্ধব কারখানা ৮০টি। সব মিলিয়ে পোশাক কারখানার সংখ্যা প্রায় ৪ হাজার চারশ’।

পোশাক কারখানা ছাড়াও এই খাতে আরও নানা সুযোগ রয়েছে। সরকারি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে আছে বস্ত্র পরিদপ্তর, বাংলাদেশ তাঁত বোর্ড, বাংলাদেশ পাট গবেষণা ইনস্টিটিউট, বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস অ্যান্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন, বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস করপোরেশন ইত্যাদি। বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও কাজ করছেন অনেকে।

বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলোতে কাজের ধরনের বৈচিত্র্য আরও বেশি। ফ্যাশন ডিজাইন, মার্চেন্ডাইজিং, বিপণন, উৎপাদন, মান, কাটিং, প্রিন্টিং, ডায়িং, নিটিং, উইভিং, স্পিনিং, ল্যাব টেস্টিং, ওয়াশিং—প্রতিটি ধাপেই দক্ষ জনবল প্রয়োজন। বায়িং হাউসগুলোতে প্রোডাকশন লিডার, কোয়ালিটি লিডার, সাপ্লাই চেইন ম্যানেজমেন্টে রয়েছে কাজের সুযোগ। নিজে উদ্যোক্তা হয়েও অনেক তরুণ এই খাতে অবদান রাখছেন।

অতএব, শুধু যে টেক্সটাইল প্রকৌশল বা ফ্যাশন ডিজাইনের মতো বিষয়গুলো পড়েই এই খাতে কাজ করা যাবে, তা নয়। বিবিএ, কম্পিউটার প্রকৌশল, অর্থনীতি, এমনকি পরিবেশ প্রকৌশলে পড়েও বস্ত্র ও তৈরি পোশাক খাতে কাজ করা যায়। নানা ধরনের কাজের সুযোগ আছে বস্ত্র ও তৈরি পোশাকশিল্প খাতে। আগ্রহ অনুযায়ী বেছে নিতে হবে কাজের ক্ষেত্র।

কোথায় পড়বেন
বিশেষায়িতভাবে শুধু টেক্সটাইল শিক্ষার জন্য বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় একমাত্র সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। এ ছাড়া মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়সহ বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানে টেক্সটাইলে পড়ার সুযোগ আছে। বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে রয়েছে আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, প্রাইম এশিয়া ইউনিভার্সিটি, বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অব ফ্যাশন অ্যান্ড টেকনোলজি। শান্ত-মারিয়াম ইউনিভার্সিটি অব ক্রিয়েটিভ টেকনোলজিতে ফ্যাশন ডিজাইন ও প্রকৌশল এবং পোশাক প্রস্তুত উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও প্রকৌশলে স্নাতক করার সুযোগ আছে। এ ছাড়া বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ছয়টি সরকারি টেক্সটাইল কলেজ আছে।

বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন–নিয়ন্ত্রিত সরকারি–বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে টেক্সটাইল বিষয়ে তত্ত্বীয় জ্ঞানের পাশাপাশি ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্রেনিংয়ের (কারখানায় প্রশিক্ষণ) সুযোগ আছে। তাই কারও যদি আগ্রহ থাকে, তিনি অবশ্যই শিখতে পারবেন। আর যিনি কাজ জানেন, তাঁর নিশ্চয়ই বেকার থাকার কোনো কারণ নেই।

বাংলাদেশ থেকে স্নাতক শেষ করে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা, সুইডেন, জার্মানি, চীনে অনেকে উচ্চশিক্ষা নিচ্ছেন। গবেষণামূলক কাজের জন্য কেউ কেউ আংশিক, আবার অনেকে শতভাগ বৃত্তিও পাচ্ছেন। মেডিকেল টেক্সটাইল, জিও-টেক্সটাইল, ই-টেক্সটাইল, সাস্টেইনেবল টেক্সটাইল নিয়ে গবেষণার প্রচুর সম্ভাবনা আছে।

বস্ত্র ও তৈরি পোশাক খাতে কি শুধু ছেলেরা, নাকি নারীরাও পেশা গড়তে পারেন? শিক্ষকতা, গবেষণা, ফ্যাশন ডিজাইন, উৎপাদন, পরিকল্পনা, বিপণন, মার্চেন্ডাইজিংয়ে কিন্তু অনেক নারীও কাজ করছেন।

এই বিভাগের আরো খবর

ঢাকা কলেজ ছাড়লেন আবরার ফায়াজ

অনলাইন ডেস্ক: বুয়েট ছাত্র আবরার...

বিস্তারিত
ফেলোশিপে বাড়ে দক্ষতা

অনলাইন ডেস্ক:  শিক্ষার্থীরা যেমন...

বিস্তারিত
আবারো আন্দোলনে নামছে বুয়েট শিক্ষার্থীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : আবরার হত্যার বিচার...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *