অবৈধ মশার কয়েলে মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক

প্রকাশিত: ০৯:৫০, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

আপডেট: ০৭:২৮, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ইউসুফ রানা: অনুমোদনহীন অসংখ্য কারখানায় অবৈধভাবে তৈরি হচ্ছে মশার কয়েল। রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে এসব কারখানা। মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক প্রয়োগ করে তৈরি কয়েল বাজারে ছাড়ছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। তারা সরকারের রাজস্ব ফাঁকি দিচ্ছে। এসব কয়েল মানব স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর বলে জানান বিশেষজ্ঞরা।

মশা তাড়াতে বাজারে প্রতিষ্ঠিত কিছু কোম্পানীর কয়েল বেশি প্রচলিত। কিন্তু কয়েলের চাহিদা বাড়ায় বাজার ছেয়ে গেছে অবৈধ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মানহীন কয়েলে।

অনুসন্ধানে জানা যায়, রাজধানীর যাত্রাবাড়ী, টঙ্গী, ভৈরব, নারায়ণগঞ্জ, সাভারসহ বিভিন্ন এলাকায় কয়েল তৈরির কারখানা গড়ে উঠে। ঘরে ঘরে গড়ে ওঠা এসব কারখানার কোনো পরীক্ষাগার কিংবা রসায়নবিদ নেই। আর রাজধানীতে এর বড় বাজার পুরান ঢাকার চকবাজার।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, কয়েলে, রাসায়নিক প্রয়োগের সুনির্দিষ্ট নীতিমালা থাকলেও তা না মেনে, উচ্চমাত্রায় রাসায়নিক প্রয়োগ করছে বেনামী কোম্পানীগুলো।

এসব কয়েল, মশা তাড়ানোর পরিবর্তে মশা মেরে ফেলছে। এমনকি তেলাপোকা, ইদুরসহ অন্যান্য প্রাণিও এসব কয়েলের ধোঁয়ায় মার যায় বলে জানান ব্যবহারকারীরা।

চিকিৎসকরা বলছেন, মশার কয়েলে মাত্রাতিরিক্ত রাসায়নিক প্রয়োগ মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।

সংশ্লিষ্টরা বলছেন, দেশের প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকার কয়েলের বাজার এখন চলে গেছে অসাধু ব্যবসায়ীদের নিয়ন্ত্রণে। তাদের মানহীন কয়েল ব্যবহারে একদিকে যেমন জনস্বাস্থ্য হুমকির মুখে পড়ছে, তেমনি রাজস্ব হারাচ্ছে সরকার।

কয়েলের বাজারে এমন নৈরাজ্য চললেও এর নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসটিআই এবং আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সসদ্যদের এ বিষয়ে তেমন কোন তৎপরতা নেই। এমনকি এ ব্যাপারে কথা বলতেও নারাজ তারা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

ছাত্র রাজনীতির সংস্কার চান সাবেক নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক: নৈতিক অবক্ষয়ের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *