ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬

2019-09-19

, ১৯ মহররম ১৪৪১

ভাস্কর্য শিল্পের প্রসারে অন্তরায় আমলাতান্ত্রিক জটিলতা

প্রকাশিত: ১০:৪১ , ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ আপডেট: ১২:০৩ , ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ফারহানা জুঁথী: দেশের নবীন- প্রবীন অনেক ভাস্কররা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পৌঁছেছেন। শুধু ঢাকা চারুকলা থেকে আড়াই শতাধিক ভাস্কর প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা নিয়ে দেশে-বিদেশে কাজ করছেন। তবে দেশে কতজন ভাস্কর্য চর্চা করেন তার আনুষ্ঠানিক কোন হিসেব নেই। অর্থ, স্থান, সঠিক নীতিমালার অভাবসহ  আমলাতান্ত্রিক জটিলতা এই শিল্পের প্রসার ও সমৃদ্ধির পথে অন্তরায়।  

রাজধানীর মতিঝিলে শাপলা ফুলের ভাস্কর্য মুক্তিযুদ্ধের একটি গণকবর চিহ্নিত করে দাড়িয়ে আছে। এমন আরেকটি ভাস্কর্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার দোয়েল। প্রাতিষ্ঠানিক জ্ঞান সমৃদ্ধ ভাস্কররা ছাড়াও স্বশিক্ষিত অনেক ভাস্কর নানা পৃষ্ঠপোষকতায় অর্থবহ ভাস্কর্য গড়েন। এমন একজন আজিজুল জলিল পাশা। এই তালিকার আরেকজন ভাস্কর প্রয়াত ফেরদৌসী প্রিয়ভাষিণী। যিনি কুড়িয়ে পাওয়া জিনিস দিয়ে ভাস্কর্য গড়তেন।

কাঠ কেটে ভাস্কর্য তৈরিতে দক্ষ স্বশিক্ষিত আরেক ভাস্কর রাসা। ভাস্কর্যকে তিনি প্রতিবাদের হাতিয়ার করেন।

একক বা যৌথ প্রচেষ্টায় কোন কোন ভাস্কর এখন কাজ করেন আন্তর্জাতিক পর্যায়েও। তরুণ শিল্পী মাহবুবুর রহমান ও তৈয়বা বেগম লিপি নানা বাধা পেরিয়ে নিত্যনতুন উপকরণ সংযোজন ও বিয়োজন করে নিজস্ব ধারা তৈরী করেছেন ভাস্কর্যে।

ব্যয়বহুল ভাস্কর্য চর্চা অব্যাহত রাখতে অনেকে ফরমায়েশি শিল্পকর্মের ওপর নির্ভরশীল। তবে তাদের শিল্পসমৃদ্ধ কাজ সমাদৃত ও পুরস্কৃত হলে পান এগিয়ে যাবার অনুপ্রেরণা।  

নিয়মিত ভাস্কর্যের কাজ করে  নিজেকে পরিচিত করেছেন এমন শিল্পী খুব কম দেশে। ভাস্কর্য দিয়ে গণমানুষের নান্দনিক বোধ জাগ্রত করা তাদের আতœতুষ্টির জায়গা।

উন্মুক্ত সব ভাস্কর্য একটি জনপদের মানুষের চিন্তা ও রুচিবোধ প্রকাশ করে। সেখানটায় পৃথিবীর বহু শিল্প সমৃদ্ধ জনপদ থেকে দেশ অনেক পিছিয়ে বলে সমালোচকদের মত। তবে সঠিক পরিকল্পনা, নীতিমালা ও অনুপ্রেরণা থাকলে দেশে আরো মানসম্পন্ন ভাস্কর ও ভাস্কর্য গড়ে উঠবে বলে তাদের বিশ্বাস।

 

এই বিভাগের আরো খবর

চট্টগ্রাম অঞ্চলে সাম্পানের মাঝি হওয়াও ছিল বড় পেশা

নিজস্ব প্রতিবেদক: চট্টগ্রাম অঞ্চলের জনপদগুলোতে কৃষিকাজ বা মাছ ধরার পাশাপাশি বড় পেশা ছিল সাম্পানের মাঝি হওয়া। তাই একসময় বিপুল জনগোষ্ঠীর...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is