ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৪ আশ্বিন ১৪২৬

2019-09-19

, ১৯ মহররম ১৪৪১

মৃত্যুর গতি জানালেন বিজ্ঞানীরা

প্রকাশিত: ১২:২৫ , ৩১ আগস্ট ২০১৯ আপডেট: ১২:২৫ , ৩১ আগস্ট ২০১৯

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: প্রতিটি জীবের মৃত্যুর স্বাদ নিতে হয়। কেউ আগে আর কেই পরে। এই মৃত্যু কি খুব ধীরে হয় নাকি স্লথ। তবে কবিরা তাদের কবিতায় লিখেই থাকেন, মৃত্যু ধীরে আসে। কিন্তু সত্যিই কি তাই? মৃত্যু কি শ্লথ গতিতে প্রবেশ করে মানব শরীরে? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার স্ট্যানফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের স্কুল অফ মেডিসিন-এর বিজ্ঞানীরা।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাদ্যম ‘মিরর’- এর এক প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, গবেষকরা জানিয়েছেন, শরীরে মৃত্যু প্রবেশ করার পরে ফুটবল স্টেডিয়ামে ‘মাস ওয়েভ’যেমনভাবে দেখা দেয়, তেমন গতিতেই নাকি জীবকোষগুলি একে একে মারা যেতে শুরু করে। আর এই তরঙ্গের গতি অতি দ্রুত। প্রতি মিনিটে ৩০ মাইক্রোমিটার। যতক্ষণ না পর্যন্ত দেহের সব কোষ মারা যাচ্ছে, ততক্ষণ এই ওয়েভ চলতে থাকে।

গবেষক দলের অন্যতম সদস্য জেমস ফেরেল এবং জিয়নরুই চেং এক প্রকার ব্যাঙের ডিমের উপরে পরীক্ষা চালিয়ে দেখান, আণবিক স্তরে ‘ডেথ সিগন্যাল’কতটা দ্রুত গতিতে কাজ করছে। কোষগুলির মৃত্যৃ-তরঙ্গকে তাঁরা স্পষ্ট দেখিয়েছেন এবং এই তরঙ্গকে তাঁরা ‘ট্রিগার ওয়েভ’বলছেন। ব্যাঙের ডিম যেহেতু এক বৃহদাকৃতির কোষ, সেহেতু এই তরঙ্গ এখানে খালি চোখেই দৃশ্যমান।

এই গবেষণা নিয়ে ইতিমধ্যেই চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে বিশ্বে। এ থেকে ক্যানসারের মতো রোগের প্রকৃতি নির্ণয় সংক্রান্ত পদ্ধতি উপকৃত হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকেই।

এই বিভাগের আরো খবর

স্ত্রীর সাথে তর্ক যে কারণে বৃথা

অনলাইন ডেস্ক: কে কার সাথে প্রথম তর্ক বিতর্কে জড়িয়েছিল তা হয়ত জানা সম্ভব হয়নি। তবে তর্ক-বিতর্ক যে মানুষের দৈনন্দিন জীবনের একটি অংশ এ নিয়ে কোন...

চুলের যত্নে অ্যালোভেরা

অনলাইন ডেস্ক: অ্যালোভেরা বা ঘৃতকুমরী এককি উপকারী অতি পরিচিত উদ্ভিদ। অ্যালোভেরার বাংলা নাম ঘৃতকুমারী। সারাবিশ্বের একে অ্যালোভেরা হিসাবে...

সকালে যা করলে ত্বক সুন্দর থাকে

অনলাইন ডেস্ক: নিজের চেহারা সুন্দর দেখাতে কে না চায়। এজন্য কত ধরনের যত্নই না করি আমরা। অনেকের আবার ব্যস্ততার কারণে হয়ে ওঠে না তার সঠিক...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is