তিস্তার গতিপথ পরিবর্তন, চর জেগেছে সেতুর নীচে

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ২৫ আগস্ট ২০১৯

আপডেট: ১১:৫২, ২৫ আগস্ট ২০১৯

রংপুর প্রতিনিধি: পানি প্রবাহ কমে যাওয়ায় বারবার গতিপথ পরিবর্তন হচ্ছে তিস্তা নদীর। ফলে চর জেগে উঠেছে শেখ হাসিনা দ্বিতীয় সেতুর নীচে। হুমকিতে পড়েছে রংপুরের মহিপুর-কাকিনা সড়ক। সাম্প্রতিক বন্যায় নদীর বাম তীরের ৭ কিলোমিটার এলাকা ভেঙ্গে শংকরদহ গুচ্ছগ্রাম বিলিনের মুখে রয়েছে। এ অবস্থায় তিস্তা নদীর বামতীরে প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণসহ নদীর নাব্যতা বাড়ানোর দাবি জানিয়েছে এলাকার মানুষ।

রংপুরের ভেতর দিয়ে বয়ে গেছে খরস্রোতা নদী তিস্তা। নাব্যতা কমে যাওয়ায় নদী চওড়া হয়েছে ৩ থেকে ৪ কিলোমিটার। আর ভাঙনে বারবার বদলেছে গতিপথ। প্রতিবছর বর্ষায় নদী তীরের শত শত গ্রাম প্লাবিত হয়, ভাঙে বসত বাড়ি-ফসলি জমি। নিঃস্ব হয় লাখো পরিবার।

তিস্তার ভাঙনরোধে ডান তীরে নির্মিত হয় তীর রক্ষা বাঁধ। কিন্তু তিস্তা গতিপথ পরিবর্তন করে বিনবিনার চর থেকে শংকরদহ ও ইচলি পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার এলাকায় পূর্ববর্তী গতিপথে প্রবাহিত হচ্ছে। এর ফলে শেখ হাসিনা দ্বিতীয় তিস্তা সড়ক সেতুর নীচে চর পড়েছে। হুমকিতে আছে মহিপুর কাকিনা সড়কের ৩টি সেতু এবং শংকরদহ গুচ্ছগ্রাম।

এ অবস্থায় তিস্তা  সেতু ও মহিপুর-কাকিনা সড়ক রক্ষায় নদীর বাম তীরে ৭ কিলোমিটার এলাকায় বাঁধ নির্মাণের জন্য দাবি তুলেছেন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি আব্দুল্লা আল হাদী।

তবে পানি উন্নয়ন বোর্ড বলছে, নাব্যতা বাড়িয়ে নদীর প্রশস্ততা ১ কিলোমিটারে কমিয়ে এনে দুই তীরে প্রতিরক্ষা বাঁধ নির্মাণ করা হলে এ সমস্যার সমাধান হবে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

শব্দ দূষণে অতিষ্ঠ গোপালগঞ্জবাসী

গোপালগঞ্জ প্রতিনিধি: শব্দ দূষণে...

বিস্তারিত
বিশ্ব নদী দিবস আজ

অনলাইন ডেস্ক: বিশ্ব নদী দিবস আজ। নদী...

বিস্তারিত
গাছ লাগিয়ে দৃষ্টান্ত গড়লেন পাবনার এক যুবক

পাবনা প্রতিনিধি: পাবনায় নিজ খরচে গাছ...

বিস্তারিত
দেশের সব নদী দখলমুক্ত করা হবে: নৌ সচিব

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশের নদীগুলো...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *