মহিষ প্রজননকেন্দ্র ভাগ্য বদলাবে লক্ষ্মীপুরের চরাঞ্চলের মানুষের

প্রকাশিত: ১০:৩৮, ২৯ জুলাই ২০১৯

আপডেট: ১০:০২, ২৯ জুলাই ২০১৯

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে স্থাপন করা হয়েছে মহিষের কৃত্রিম প্রজননকেন্দ্র। যেখানে মহিষ নিয়ে গবেষণার পাশাপাশি উন্নত জাতের মহিষ উৎপাদন করা হবে। এসব মহিষ সমবায়ের ভিত্তিতে এলাকার মানুষকে পালন করতে দেয়া হবে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এর মধ্য দিয়ে বেকার সমস্যা দূর হওয়ার পাশাপাশি বদলে যাবে এ জনপদের জীবনযাত্রার মান।

২০১৩ সালের জুলাই মাসে ১৮ কোটি ২৪ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ব্যয়ে লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মহিষের কৃত্রিম প্রজননকেন্দ্র প্রকল্পের অবকাঠামো নির্মাণের কাজ শুরু হয়। শেষ হয় ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে। এরমধ্যে সরকারের ১৩ কোটি ১৩ লাখ ৪৭ হাজার টাকা ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান মিল্কভিটা ৫ কোটি ১১ লাখ টাকা সহায়তা দেয়। 

রায়পুর মহিষ প্রজনন কেন্দ্রের জন্য ২০১৭ ও ২০১৮ সালে মুরাহ জাতের ৮৭ টি মহিষ ও ৫০টি মহিষের বাচ্চা ভারত থেকে আমদানি করা হয়। এই কেন্দ্রে আরো ১০০ মহিষ আমদানি করা হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

কেন্দ্রের তত্ত্বাবধায়ক মোঃ ফরহাদুল আলম জানালেন, উন্নতজাতের এসব মহিষ সমবায়ীদেরকে পালনের জন্য দেয়া হবে। এতে অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হবেন তারা। বাড়বে দুধ ও মাংসের উৎপাদন।

লক্ষ্মীরের বিভিন্ন চরে বিপুল পরিমাণ সরকারি খাস জমি রয়েছে। এসব খাস জমি ছাড়াও ব্যক্তিমালিকানাধীন বিভিন্ন জমিতে অর্ধশতাধিক মহিষের খামার গড়ে উঠেছে। মহিষ প্রজননকেন্দ্র এসব খামারের জন্য সুফল বয়ে আনবে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্টরা। এছাড়া জেলার বেকারদের জন্য এই কেন্দ্রটি কর্মসংস্থানের নতুন ক্ষেত্র তৈরী করবে বলে আশা লক্ষ্মীপুরবাসীর।
 

এই বিভাগের আরো খবর

আলোচনা করলে দেশে সংকট থাকত না: ফখরুল

নিজস্ব সংবাদদাতা: সরকার চায় না খালেদা...

বিস্তারিত
বালিশকান্ড: দুই ঠিকাদারকে দুদকে জিজ্ঞাসাবাদ

নিজস্ব সংবাদদাতা: রূপপুর পারমাণবিক...

বিস্তারিত
অঘোষিত পরিবহন ধর্মঘটে চরম দুর্ভোগ

ডেস্ক প্রতিবেদন: নতুন সড়ক পরিবহন আইন...

বিস্তারিত
কুমিল্লায় দুর্ঘটনায় পুলিশ নিহত, ৩ জন আহত

কুমিল্লা সংবাদদাতা: ঢাকা-চট্টগ্রাম...

বিস্তারিত
রাস্তায় গাড়ি চালাতে বাধা, চালককে মারধর

অনলাইন ডেস্ক: ধর্মঘট না মেনে সড়কে...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *