বন্যা দুর্গত এলাকায় ত্রাণ না পাওয়ার অভিযোগ

প্রকাশিত: ১১:৪৬, ২১ জুলাই ২০১৯

আপডেট: ১১:৫৯, ২১ জুলাই ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন: উত্তরাঞ্চলের নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করলেও চাপ বাড়ছে দেশের মধ্যাঞ্চলে। পদ্মা ও যুমনা নদীর পানি বেড়ে মানিকগঞ্জ ও ফরিদুপরের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এদিকে, বন্যাকবলিত এলাকায় পর্যাপ্ত ত্রান না পাওয়ার অভিযোগ করেছেন বানভাসি মানুষ।

উত্তরাঞ্চলের কোন কোন জেলায় পানি কমতে শুরু করলেও প্রধান নদ-নদীর পানি এখনো বিপদসীমার উপরে। উত্তরে পানি নামতে শুরু করায়, পানি বাড়ছে পদ্মা ও যমুনায়।

গাইবান্ধায় ঘাঘট ও ব্রক্ষপুত্রের পানি কিছুটা কমলেও বাঁধ ভেঙে পানি ঢুকে পড়ায় জেলার বন্যা পরিস্থিতির আরো অবনতি হয়েছে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা। জেলা শহরসহ বিভিন্ন রাস্তাঘাট ও হাট-বাজার পানিতে ডুবে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে কয়েক লাখ মানুষ। বন্যায় এপর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে । আশ্রয় কেন্দ্র, নদীর বাঁধ ও খোলা আকাশের নিচে মানবেতর জীবন যাপন করছে বানভাসী মানুষ। এদিকে, দূর্গত এলাকাগুলোতে পৌছায়নি পর্যাপ্ত ত্রান। দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ পানি ও শৌচাগারের সংকট।

ব্রক্ষপুত্র নদের শেরপুর অংশের বন্যা নিয়ন্ত্রন বাঁধের একাধিক স্থানে ভেঙ্গে যাওয়ায় শেরপুর সদর, শ্রীবরদী ও নকলা উপজেলার আরো ১০টি গ্রাম নতুন করে প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে এক লাখ মানুষ। সদর উপজেলায় বন্যার পানিতে ডুবে তিন শিশুসহ গত এক সপ্তায় ৯ জনের প্রানহানি ঘটেছে।

জাতীয় সংসদের হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক জানান, বেতমারীতে ব্রক্ষপুত্রের বেরিবাঁধ ভাঙ্গন এলাকা পরিদর্শন করেছেন। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বন্যার্তদের জন্য কাজ করে যাচ্ছে প্রশাসন ।

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার জানান, নওগাঁর সাপাহারে জবাই বিলের বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধ পরিদর্শন করেন। এসময় দুর্গত এলাকার মানুষের ত্রাণ নিশ্চিত করতে স্থানীয় কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন তিনি।

বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে যমুনার পানি বিপদসীমার ১৩৯ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। ফলে পানিবন্দি রয়েছে জামালপুরের সদর, ইসলামপুর, দেওয়ানগঞ্জ, মেলান্দহ ও বকশীগঞ্জসহ ৭ টি উপজেলার অধিকাংশ এলাকা। পানিবন্দি প্রায় সাড়ে ৪ লাখ মানুষ।

ময়মনসিংহের হালুঘাট উপজেলার চকের কান্দা গ্রামে বন্যার পানিতে ডুবে দুই শিশুর মৃত্যু হয়েছে। পানিবন্দি রয়েছে হালুয়াঘাট ও ধোবাউড়া উপজেলার ৩০টি গ্রামের মানুষ।

কুড়িগ্রামে শহর রক্ষা বাঁধ ভেঙ্গে পানি ঢুকে পড়েছে রৌমারী, রাজিবপুর ও চিলমারী উপজেলা পরিষদসহ বেশ কয়েকটি এলাকায়।

পানি সম্পদ মন্ত্রনালয় কবির বিন আনোয়র-সচিব জানান, যমুনার তীব্র স্রোতে সিরাজগঞ্জ শহর রক্ষা বাঁধের তলদেশে ফাটল দেখা দিয়েছে। ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন তিান। মানুষকে আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দেন।

এদিকে, পানির চাপ বাড়ছে মধ্যাঞ্চলে। গোয়ালন্দ পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বিপদসীমার ৬৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছে। ডুবে আছে ফরিদপুরের নিুাঞ্চল ও চরাঞ্চল।

ফরিপুর সদরপুর উপজেলা কর্মকর্তা জানান প্রবীর গোলদার জানান, ফরিদপুরে পদ্মার পানি বেড়ে জেলার তিনটি উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নে পানি ঢুকে পড়েছে। গোয়ালন্দ পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বিদপসীমার ৬৬ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

এছাড়া, মানিকগঞ্জের আরিচা পয়েন্টে যমুনার পানি বিপদসীমার ৪৪ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার এলেঙ্গা পৌরসভার ১০ গ্রামে বন্যার পানি ঢুকে পানিবন্দি হয়ে পড়ায় ভুঞাপুর-টাঙ্গাইল সড়কের শ্যামপুরে নির্মানাধীন সেতুর ডাইভারশন কেটে দিয়েছে স্থানীয়রা। এতে করে টাঙ্গাইলের সাথে ভূঞাপুরের সড়ক যোগাযোগ বন্ধ হয়ে গেছে।

 

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

বুলবুলের তান্ডবে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১২

অনলাইন ডেস্ক: স্থলভাগে এসে দুর্বল হয়ে...

বিস্তারিত
বুলবুল নিম্নচাপে পরিণত, নামলো মহাবিপদ সংকেত

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঘূর্ণিঝড় বুলবুল...

বিস্তারিত
এবার ভূমিহীনদের ভিটে-মাটি ছাড়ার নোটিশ

জয়পুরহাট সংবাদদাতা: উন্নয়ন কাজ চলমান...

বিস্তারিত
ভৈরব-কিশোরগঞ্জ-ময়মনসিংহ সড়ক মৃত্যুফাঁদ

ভৈরব সংবাদদাতা: নানামুখী উদ্যোগ...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *