ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-19

, ১৭ জিলহজ্জ ১৪৪০

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সহায়তা করবে চীন

প্রকাশিত: ০১:১২ , ০৪ জুলাই ২০১৯ আপডেট: ০৪:৩২ , ০৪ জুলাই ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: আঞ্চলিক শান্তি প্রতিষ্ঠায় একহয়ে কাজ করার বিষয়ে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ ও চীন। বৃহস্পতিবার (০৪ জুলাই) স্থানীয় সময় সকালে চীনের রাজধানী বেইজিংয়ে দুদেশের প্রধানমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়।

এ সময় রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াং। পরে বিদ্যুৎ, জ্বালানি পানিসম্পদসহ বিভিন্ন বিষয়ে দু’দেশের মধ্যে ৭টি চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়।

চীন সফরের চতুর্থ দিন বৃহস্পতিবার (০৪ জুলাই) স্থানীয় সময় সকালে দেশটির প্রধানমন্ত্রী লি কেকিয়াংয়ের সাথে সৌজন্য সাক্ষাত করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। চীনের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় দা গ্রেট হল অফ দা পিপলসে পৌঁছালে তাকে স্বাগত জানান লি কেকিয়াং। লাল গালিচা সংবর্ধনার পর শেখ হাসিনাকে অভিবাদন মঞ্চে নেয়া হলে তাকে গার্ড অব অনার প্রদান করে চীনের সশস্ত্র বাহিনীর একটি চৌকস দল।

আনুষ্ঠানিকতা শেষে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে বসেন দুদেশের প্রধানমন্ত্রী। এ সময় মিয়ানমারের সাথে আলোচনার ভিত্তিতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সার্বিক সহায়তার আশ্বাস দেন চীনের প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরত যেতে হবে। উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে বাংলাদেশের সাথে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে কাজ করার প্রতিশ্রুতিও দেন চীনের প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় চীনের প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে দুদেশের সম্পর্ক আরও এগিয়ে নেয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে পারষ্পরিক সুসম্পর্কে বিশ্বাস করে তাঁর সরকার। রোহিঙ্গা, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ দমনে বাংলাদেশ-চীন  একযোগে কাজ করার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

আঞ্চলিক পর্যায়ে শান্তি প্রতিষ্ঠায় একহয়ে কাজ করার বিষয়ে সম্মত হয় বাংলাদেশ ও চীন।

বৈঠক শেষে দুদেশের প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতিতে তথ্য-প্রযুক্তি, বিদ্যুৎ, পানিসম্পদ, পর্যটনসহ বিভিন্ন খাতে তিনটি চুক্তি ও ৩টি সমঝোতা স্মারক সই হয়। এছাড়াও রোহিঙ্গাদের খাদ্য সহায়তা দিতে একটি সমঝোতা বিনিময় হয়।

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is