ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা?

প্রকাশিত: ১২:৫৯, ২৪ জুন ২০১৯

আপডেট: ১০:২৫, ২৪ জুন ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশে নিবন্ধিত ফিটনেসবিহীন গাড়ি ও অবৈধ চালকের সংখ্যা জানাতে বিআরটিএকে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। আগামী ২৩ জুলাইয়ের মধ্যে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেছেন আদালত।  একইসাথে ফিটনেসবিহীন গাড়ি ও অবৈধ চালকদের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে তাও জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

সোমবার (২৪ জুন) সকালে বিচারপতি নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি একেএম হাফিজুল আলমের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই আদেশ দেন। আদালতের নির্দেশনুযায়ী, আজ (সোমবার) ফিটনেসবিহীন গাড়ি নিয়ে প্রতিবেদন জমা দেয় বিআরটিএ। পরে শুনানিতে আদালত বলেন, স্বাধীনতার এতো বছরেও দুর্নীতির হাত থেকে রেহাই পায়নি দেশ। আইনের শাসন নেই উল্লেখ করে দেশকে একটা শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে হবে বলেও মন্তব্য করেন আদালত।

এর আগে সকালে হাইকোর্টের তলবে হাজির হন বিআরটিএ'র পরিচালক মাহবুব-ই-রাব্বানী। বিআরটিএর দেয়া প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সারাদেশে ফিটনেসবিহীন গাড়ীর সংখ্যা ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৩শ’ ৬৯টি। এরমধ্যে কেবল ঢাকায় রয়েছে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৩শ’৮টি।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিন উদ্দিন মানিক। বিআরটিএ এর পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার মঈন ফিরোজী ও রাফিউল ইসলাম।

সম্প্রতি একটি দৈনিকের প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনেন অ্যাডভোকেট সৈয়দ মামুন মাহবুব। এরপর ২৭ মার্চ আদালত রুলসহ আদেশ দেন।

‘রুলে ফিটনেসবিহীন গাড়ি, রেজিস্ট্রেশনবিহীন গাড়ি ও ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাড়া গাড়ি চালানোর বিষয়ে বিবাদীদের নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না; পাশাপাশি সংবিধানের ৩২ ধারার আলোকে জীবন বাঁচার অধিকার বাস্তবায়নে কেন মটর ভেহিক্যাল আইন ১৯৮৩ এর বিধান সমূহ সঠিকভাবে পালনের জন্য কেন নির্দেশনা দেওয়া হবে না- তা জানতে চেয়েছেন।

একই সঙ্গে বিআরটিএ চেয়ারম্যান, পুলিশ মহাপরিদর্শক, ঢাকার ট্রাফিক পুলিশের উত্তর ও দক্ষিনের ডিসি এবং বিআরটিএ-এর সড়ক নিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক মাহবুব-ই-রাব্বানীক এ তথ্য জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

ওইদিন বিআরটিএ-এর সড়ক নিরাপত্তা বিভাগের পরিচালককে আদালতে হাজির থাকতে নির্দেশ দেওয়া হয়। ওই আদেশ অনুযায়ী, আজ বিআরটিএ এর পক্ষ থেকে একটি ও পুলিশের পক্ষ থেকে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা। একই সঙ্গে বিআরটিএ এর পরিচালক হাজির হন।

আদেশের পর ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল একেএম আমিনউদ্দিন মানিক জানান, ঢাকাসহ সারাদেশে রেজিস্ট্রেশন নিয়ে ফিটনেস নবায়ন না করা গাড়ি এবং লাইসেন্স নিয়ে নবায়ন না করা চালকের বিস্তারিত তথ্য জানতে চেয়েছেন হাইকোর্ট।

একই সঙ্গে সারাদেশে থাকা রেজিস্ট্রেশনধারী ফিটনেসহীন ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৩৬৯ গাড়ি এবং লাইসেন্স নিয়ে নবায়ন না করা চালকের বিরুদ্ধে আইন অনুসারে বিআরটিএ কি ব্যবস্থা নিয়েছে তাও এক মাসের মধ্যে জানাতে হবে।

আদালতে বিআরটিএ এর আইনজীবী জানান, সারাদেশে রেজিস্ট্রেশন নিয়ে ফিটনেস নবায়ন না করা গাড়ির সংখ্যা ৪ লাখ ৫৮ হাজার ৩৬৯ এবং ঢাকা শহরে ১ লাখ ৬৮ হাজার ৩০৮টি। তবে বিআরটিএ এর রেজিস্ট্রেশন ছাড়া গাড়ির সংখ্যা জানার সুযোগ নেই । এটি রিজিওনাল ট্রান্সপোর্ট কমিটি বলতে পারবে।

রুলের বিবাদীরা হচ্ছেন, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের সচিব, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব, পুলিশের আইজি, চেয়ারম্যান বিআরটিএ, ঢাকার ডিসি ট্রাফিক (উত্তর ও দক্ষিণ), বিআরটিএ ডাইরেক্টর (সড়ক নিরাপত্তা) ও দুদক চেয়ারম্যান ।

এই বিভাগের আরো খবর

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে ফেরি চলাচল শুরু

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি: নাব্যতা সংকটের...

বিস্তারিত
বগুড়ায় বাঁশের সেতু তৈরির কারিগর জাহিদুল

বগুড়া প্রতিনিধি: মানুষের যোগাযোগের...

বিস্তারিত
টাঙ্গাইলের ভাদ্রা-দপ্তিয়ার সড়কের বেহাল দশা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি: সংস্কারের এক মাস...

বিস্তারিত
১১ বছরেও সহজ শর্তে সিএনজি অটোরিকশা বিতরণ হয়নি

নিজস্ব প্রতিবেদক : পাঁচ হাজার চালককে...

বিস্তারিত
শাহজালালে পৌঁছেছে ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’

অনলাইন ডেস্ক: নির্দিষ্ট সময়ের ৪০...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *