কিশোরগঞ্জে চয়ন হত্যার দায়ে ৩ জনের ফাঁসি

প্রকাশিত: ১২:১৮, ১৯ জুন ২০১৯

আপডেট: ০১:৫৬, ১৯ জুন ২০১৯

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জে চয়ন নামে একজনকে হত্যার দায়ে তিনজনের ফাঁসির আদেশ দিয়েছেন আদালত। বুধবার (১৯জুন) দুপুরে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মো. আবদুর রহিম ১৪ বছর আগের এই মামলার রায় ঘোষণা করেন।

এছাড়া এ মামলায় আরও সাতজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- আব্দুল আউয়াল, আল-আমিন ও সুফল। এদের মধ্যে আল-আমিন ছাড়া বাকিরা পলাতক রয়েছে। যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- আব্দুল করিম, সাফিয়া খাতুন, আব্দুল কাদির ফকির, সোহেল, রিপা আক্তার, মোছা. জহুরা খাতুন ওরফে অনুফা ও আব্দুর রউফ ফকির ওরফে রুপ মিয়া।

২০০৫ সালের ২ ডিসেম্বর পারিবারিক বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলার নিহত হন এরশাদুল ইসলাম চয়ন। তিনি হোসেনপুর উপজেলার টানসিদলা গ্রামের জহিরুল ইসলাম রতনের একমাত্র ছেলে ছিলেন। এরশাদুল ইসলাম চয়ন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনায় অনার্সসহ মাস্টার পাস করে রেলওয়েতে স্টেশন মাস্টার হিসেবে নিয়োগ পান। দুদিন পরই চাকরিতে যোগদান করার কথা ছিল চয়নের।

ঘটনার দিন দুপুরে আসামিরা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে চয়নদের বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালায়। তার মা ও বোনকে পিটিয়ে আহত করে। এ সময় তাদের রক্ষা করতে গেলে চয়নকে কুপিয়ে ও ছুরিকাঘাত করে গুরুতর আহত করা হয়। আশঙ্কাজনক অবস্থায় তাকে হোসেনপুর উপজেলা হাসপাতালে নেয়া হলে ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে ঘটনার দিন ৯ জনকে আসামি করে হোসেনপুর থানায় মামলা করেন। পুলিশ দীর্ঘ তদন্ত শেষে ২০০৬ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ১১ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলা চলাকালে আমিনুল হক ওরফে হিরা নামে এক আসামি মারা যাওয়ায় তাকে অভিযোগ থেকে খালাস দেয়া হয়।

এদিকে মামলার রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন নিহতের মা মোমেনা খাতুন ও বাবা জহিরুল ইসলাম রতন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

আদালতের বাইরে সম্রাট সমর্থকদের বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক: যুবলীগ ঢাকা মহানগর...

বিস্তারিত
খুলনায় বন্দুকযুদ্ধে ৪ জলদস্যু নিহত

ডেস্ক প্রতিবেদক: সুন্দরবনে র‌্যাব-৬...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *