উদ্বোধনের পরও চালু হয়নি বকশীগঞ্জ ফায়ার স্টেশন

প্রকাশিত: ১১:৪৭, ১৫ জুন ২০১৯

আপডেট: ১১:৪৭, ১৫ জুন ২০১৯

জামালপুর প্রতিনিধি: জামালপুর জেলা সদর থেকে ৪০ কিলোমিটার দূরে বকশীগঞ্জ। একটি পৌরসভা ও ৭ ইউনিয়নের এ উপজেলায় মোট আড়াই লাখ লোকের বসবাস। ভারতের সীমান্তবর্তী এলাকা হিসেবে এখানে রয়েছে স্থলবন্দর, বিভিন্ন কলকারখানাসহ সরকারী ও বেসরকারী বিভিন্ন স্থাপনা।

তবে এসব স্থাপনায় নিজস্ব কোন অগ্নিনির্বাপনের ব্যবস্থায় নেই। উপজেলায় কোন ফায়ার স্টেশন না থাকায় প্রতি বছরই বিভিন্ন স্থাপনা ও কলকারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হচ্ছে। যদিও বছর কানেক আগে বকশীগঞ্জ ফায়ার স্টেশনের উদ্বোধন করা হয়েছে। তবে, প্রয়োজনীয় জনবল আর সরঞ্জাম না থাকায় এই স্টেশনটি চালু করা সম্ভব হয়নি।

২০১৩ সালের ১০ অক্টোবর বকশীগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। পরে ২০১৮ সালের ২ নভেম্বর ২ কোটি ৬৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নির্মিত পৌর এলাকার পাখিমারায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রয়োজনীয় জনবল আর সরঞ্জাম না থাকায় স্টেশনটি এখনো চালু করা। ফলে অগ্নিকাণ্ডের ঝুঁকি রয়েই গেছে এই এলাকায়।

তবে শিগগিরই ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন জামালপুর ফায়ার সার্ভিস এন্ড সিভিল ডিফেন্সের উপ-পরিচালক কোবাদ আলী সরকার। তিনি বলেন, ‘সকল সমস্যা কাটিয়ে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি দ্রুত চালু করা হবে।’

দ্রুত ফায়ার সার্ভিস স্টেশনটি চালুর মাধ্যমে জনগণের জানমাল ক্ষতির হাত থেকে রক্ষার উদ্যোগ নেয়া হবে বলে প্রত্যাশা এলাকার মানুষের।

এই বিভাগের আরো খবর

সারাদেশে নৌ ধর্মঘট

নিজস্ব প্রতিবেদক : গেজেট অনুযায়ী বেতন...

বিস্তারিত
উত্তরাঞ্চলে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধি: সিরাজগঞ্জের...

বিস্তারিত
পণ্যবাহী নৌযান শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

নিজস্ব প্রতিবেদক : চাকরি স্থায়ীকরণ,...

বিস্তারিত
নৌযান শ্রমিকদের কর্মবিরতি, লঞ্চ চলাচল বন্ধ

অনলাইন ডেস্ক: সড়ক পরিবহন আইন কার্যকর...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *