ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ২ আশ্বিন ১৪২৬

2019-09-17

, ১৭ মহররম ১৪৪১

আজও কালজয়ী উপন্যাস ‘গডফাদার’

প্রকাশিত: ০৬:২৯ , ১১ জুন ২০১৯ আপডেট: ০৬:২৯ , ১১ জুন ২০১৯

বিনোদন ডেস্ক: ১৯৬৯ সালে রচিত মারিও পুজোর লেখা অমূল্য এক উপন্যাস ‘গডফাদার’। বছরসেরা চলচ্চিত্র ও অভিনেতাসহ ছয়টি ক্যাটাগরিতে অস্কার পাওয়া কালজয়ী চলচ্চিত্র ‘গডফাদার’। তবে অনেকেই চলচ্চিত্রায়নে যতটা চেনে, তার তুলনায় কিছুটা কম চেনে উপন্যাস হিসেবে। 

মাফিয়া পরিবারের প্রধান হিসেবে ডন ভিটো কর্লিয়ানি ও তার পরিবারকে নিয়ে রাষ্ট্র ও সমাজব্যবস্থার তুলে ধরেছেন লেখক মারিও পূজো। পিতা-মাতাকে খুন হয়েছে তারই চোখের সামনে। নিজ জীবন বাঁচাতে আমেরিকায় পালিয়ে এসে সাধারণ জীবনযাপন করা একজন মানুষ কীভাবে মাফিয়া হয়ে যায় সেই গল্প নিয়েই ‘গডফাদার’।

গডফাদারের বড় ছেলে সনি কর্লিয়নি যিনি শৈশবেই পিতার খুনের একমাত্র সাক্ষী। ত্রাস হয়ে ওঠা একজন হয়েও পরিবারের ক্ষেত্রে ব্যক্তিত্ব তার স্নেহপরায়ণ ভাই, পিতাভক্ত আর ভালোবাসার প্রেমিকা দেখলে কেউ বিশ্বাস হতে চায় না তিনিও হিংস্র।

মাফিয়া পরিবার নিয়ে উপন্যাসটিতে মানুষের লোভ, বিশ্বাসঘাতকতা আর হিংস্রতা যতটা দেখা যায়, ঠিক তেমনি দেখা যায় ভালোবাসা আর স্নেহ। মানুষের ভেতরটাকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করেছেন লেখক। চারিত্রিক বর্ণনা দিয়েছেন যেভাবে তাতে পড়ার সময় বইয়ের পাতাতে যেন ভেসে ওঠে জীবনগুলো।

সেইসাথে উপন্যাসের দুর্দান্ত কিছু সংলাপ পাঠককে আকর্ষণ না করে পারেইনা। যেমন- ‘আমি তাকে এমন প্রস্তাব দেবো যা সে ফিরিয়ে দিতে পারবে না’ কিংবা ‘তোমার শত্রুকে ঘৃণা করো না; এটা তোমার বিচারকে প্রভাবিত করবে’ এমন শক্তিশালী সংলাপ বেশ পরিচিত।

ডন কর্লিয়নি নিকট কেউ সাহায্য চাইলে সেই সাহায্যের বিনিময়ে তিনি চান বন্ধুত্ব। অন্যদিকে, উপন্যাসে পুরুষেরা যতটা সক্রিয় ভূমিকা পালন করেছে নারীরা ছিল ঠিক ততটাই নিষ্ক্রিয়, এমনকি কর্লিয়নির স্ত্রীকেও দেখা যায় এক গৃহিণীর চরিত্রে সীমাবদ্ধ জীবন। এছাড়া যৌনবস্তু হিসেবেই নারীকে যেভাবে তুলে ধরা হয়েছে সেই হিসেবে তৎকালীন অবস্থায় নারীর সত্যিকার অবস্থান তুলে ধরা হয়েছে।

মাদক ব্যবসার সাথে নিজেকে জড়াননি কখনো। আর তারই প্রেক্ষাপটে অসাবধানতায় লাগা গুলিতে সম্পূর্ণ কর্লিয়ানি পরিবারের জীবনের মোড় ঘুরে যাওয়াকে কেন্দ্র করে এগিয়ে যাওয়া ‘গডফাদার’ বইটি আজো বৈচিত্র্যময় কালজয়ী উপন্যাস।

গডফাদার উপন্যাসটি ২০০৪ সালে মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন প্রথম বাংলায় অনুবাদ করেন।

এই বিভাগের আরো খবর

উষ্ণতায় ঝুমা বৌদি!

বিনোদন ডেস্কঃ উমা থেকে ঝুমা। উমা ছিলেন স্বস্তিকা, আর ঝুমা মোনালিসা। তবে উমার থেকে যেন ঝুমা একেবারে এক কাঠি ওপরে। বাংলা ওয়েব সিরিজ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is