ঢাকা, রবিবার, ২৬ মে ২০১৯, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

2019-05-25

, ২০ রমজান ১৪৪০

নিয়ম না মেনে ব্যবহার করায় ক্যান্সারসহ নানা রোগে আক্রান্ত কৃষকরা

প্রকাশিত: ১১:১২ , ০৭ মে ২০১৯ আপডেট: ১২:২৭ , ০৭ মে ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: নিয়মের তোয়াক্কা না করে খাদ্যশস্যে বিষ ছিটানোয় ক্যান্সার, কিডনি, ফুসফুস জনিত রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন কৃষকরা। এছাড়াও অতিরিক্ত ঘাম, চোখের দৃষ্টি কমে যাওয়া ও চোখ জ্বালা করাসহ দীর্ঘ মেয়াদি নানা রোগেও আক্রান্ত হচ্ছেন। পাশাপাশি চিকিৎসকরা বলছেন, দেশে ১০ ভাগ মানুষ কীটনাশকের বিষক্রিয়ার কারনে ক্যান্সারে আক্রান্ত হন। কৃষিবিদদের পরামর্শ বিষের ব্যাবহার বন্ধ করে প্রাকৃতিক উপায়ে এসব পোকাকে ধ্বংসের পদ্ধতি বেছে নিতে হবে।

সেলিম মোল্লা। নিজের জমিতে ঝিঙ্গা চাষ করেছেন। ফসলকে পোকার হাত থেকে বাঁচাতে ও অধিক ফলনের আশায় ছিটাচ্ছেন বিষ। কিন্তু তার শরীরে নেই জামা, হাতে নেই গ্লাভস, বা নাকে-মুখে নেই কোন মাস্ক। প্রায় ১৫ বছর ধরে জমিতে এভাবেই বিষ ছিটিয়ে আসছেন।

অন্যান্য কৃষকরাও সেলিমের মত। অনেকে না জেনে অনেকে জেনে শুনেই এমন স্বাস্থ্যের ঝুঁকি নিচ্ছেন। বিষ বিক্রেতারাও এ নিয়ে সচেতন না।

ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশন-ডব্লিউএইচওর জরিপ অনুযায়ী, প্রতিবছর কীটনাশকের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ায় প্রায় ৩০ লাখ মানুষ ক্যান্সার, কিডনি, ফুসফুসসহ মারাত্মক সব রোগে আক্রান্ত হয়। এর মধ্যে প্রতি বছর মারা যায় ২ লাখ ২০ হাজার মানুষ। চিকিৎসকরা বলছেন, দেশে ১০-১৩ ভাগ মানুষ কীটনাশকের বিষক্রিয়ার কারনে ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়।

কৃষিবিদরা বলছেন, বিষ প্রয়োগে ফসলের জন্য ক্ষতিকর পোকার পাশাপাশি উপকারি পোকাও ধ্বংস করে ফেলা হচ্ছে। তাই উপকারী পোকাদের বাঁচিয়ে, কৃত্রিম ভাবে তাদের প্রজনন বাড়িয়ে এসব ক্ষতিকর পোকা ধ্বংস করা যেতে পারে।

তাদের মতে, বিষ প্রয়োগে সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি, এর ব্যবহার কমিয়ে আনতে হবে। মানুষকে প্রাকৃতিক উপাদান ও উপায়ের ওপর  নির্ভরতা বাড়ানোর পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা। 

এই বিভাগের আরো খবর

বিষের বাজারেও ভেজাল আছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: দেশে বছরে বিষের যে চাহিদা, তা অর্থমূল্যে আড়াই হাজার কোটি টাকার। যার পুরোটাই আমদানি করতে হয় বিভিন্ন দেশে থেকে। অন্যদিকে...

দেশে ক্রমেই বড় হচ্ছে বিষের বাজার

নিজস্ব প্রতিবেগ: বিষ কথাটায় সাধারণত নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া হয়, কিন্তু নিজেদের স্বার্থে জেনে না জেনে বিচিত্র বিষের ব্যবহারে অভ্যস্ত মানুষ।...

ফল রপ্তানীতে সুপরিকল্পনা ও উদ্যোগ চান ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিবেদক : দেশের ফল বাণিজ্য অভ্যন্তীণ বাজার কেন্দ্রিক। সাম্প্রতিক দশকগুলোতে কিছু দেশীয় ফল বিদেশে রপ্তানী হলেও পরিমাণ খুব কম। তাই...

চাহিদা-পুষ্টিগুণ বিবেচনায় ফল চাষ পদ্ধতিতে এসেছে পরিবর্তন

নিজস্ব প্রতিবেদক : মৌসুমী ফলের উৎপাদন ক্রমেই বাড়ছে। চাহিদা এবং পুষ্টিগুণ বিবেচনায় চাষ পদ্ধতিতেও পরিবর্তন হচ্ছে। অপ্রচলিত এবং বিলুপ্ত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is