আইন এড়িয়ে চলছে পুরাকীর্তি বা এ্যান্টিক সামগ্রীর বিশাল বাণিজ্য 

প্রকাশিত: ১০:২৪, ০৩ মে ২০১৯

আপডেট: ১২:০৩, ০৩ মে ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: আইন অনুযায়ী জাদুঘর ছাড়া ব্যক্তিগত পর্যায়ে প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শন বা পুরাকীর্তি কিংবা অ্যান্টিক রাখার নিয়ম নেই। তবুও বিশ্বজুড়ে এই অ্যান্টিককে ঘিরেই দৃশ্যত ও গোপনে, বৈধ ও অবৈধভাবে গড়ে উঠেছে ট্রিলিয়ন ডলার সমমূল্যের বাজার। যার প্রভাব পড়েছে দেশেও। 
হারিয়ে যাওয়া প্রাচীন সভ্যতা এবং জনপদ কেমন ছিল, সে সম্পর্কে ধারণা পেতে উনিশ শতকের গোড়ার দিকে ইংল্যান্ডে শুরু হয় প্রতœতাত্ত্বিক নিদর্শন সংগ্রহের চর্চা। প্রাথমিক পর্যায়ে অনেকেই ব্যক্তিগতভাবে বা জাদুঘরে পুরোনো দিনের দৃষ্টিনন্দন ফুলের টব, মুদ্রা, মাটির পটারির মত দুর্লভ সামগ্রী সংগ্রহ করতো। কালের আবর্তে প্রাচীন স্থাপনাগুলোও পুরাকীর্তির তালিকায় চলে আসে।
ইউরোপ জুড়ে যখন পুরাকীর্তি সংগ্রহের চাহিদা, তখন এর জনপ্রিয়তা বিবেচনা করে অ্যান্টিক সামগ্রীকে দুই ভাগে ভাগ করে তৎকালীন ইউরোপের প্রতœতত্ত্ব বিশারদরা। একভাগে রাখা হয় বিভিন্ন পৌরাণিক মূর্তি, মাটির পটারি, ঘড়ি, মুদ্রা, স্ট্যাম্প, চিত্রকর্ম বা থালা-বাটির মত তৈজসপত্র, যা স্থানান্তর সম্ভবব। অন্যদিকে, শতবর্ষী প্রাচীন স্থাপনা, গাছ, সমাধির মত অবকাঠামোগুলোকে রাখা হয় স্থায়ী পুরাকীর্তির তালিকায়।
বর্তমানে, স্থানান্তর যোগ্য পুরাকীর্তি বা অ্যান্টিক সামগ্রির চাহিদা বিশ্বজুড়ে, যার ছোঁয়া লেগেছে বাংলাদেশেও। যারা এসব নিয়ে গবেষণা করেন, তাদের মতে এসব সামগ্রীর অর্থ মূল্যের চেয়ে ঐতিহাসিক মূল্য অনেক বেশি। ফলে, ঐতিহাসিক গুরুত্ব সম্বলিত এসব পুরাকীর্তিকে ঘিরে বিশ্বজুড়ে গড়ে উঠেছে হাজার হাজার বিলিয়ন ডলারের বৈধ এবং অবৈধ বাণিজ্য। 

এই বিভাগের আরো খবর

স্কোয়াশ খেলার কোর্ট তৈরি করতে পারেনি 

এস.এম সুমন: প্রতিষ্ঠার পর ৪৪ বছরে...

বিস্তারিত
স্কোয়াশ খেলা: প্রতিযোগিতা হয় কালেভদ্রে

এস.এম সুমন: পশ্চিমা দেশগুলোর আদলে...

বিস্তারিত
রোয়িং খেলোয়াড় ও সংগঠকরা হতাশ

তৌহিদুল আলম: নিজেদের খেলা চর্চা করারই...

বিস্তারিত
রোয়িং: মনের টানে খেলেন ক্রীড়াবিদরা 

তৌহিদুল আলম: আর্থিক সঙ্কট ও পর্যাপ্ত...

বিস্তারিত
রোয়িং: ৪৫ বছরেও উল্লেখযোগ্য সাফল্য নেই 

তৌহিদুল আলম: প্রতিষ্ঠার  ৪৫ বছর...

বিস্তারিত
রোয়িং: খেলাটি সম্পর্কে ধারণা প্রতিষ্ঠা হয়নি

তৌহিদুল আলম: পশ্চিমা দেশগুলোর আদলে...

বিস্তারিত
খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলছে শরীরগঠন ফেডারেশন

ইমদাদুল্লাহ বাবু: সরকার জনগণের প্রায়...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *