ঢাকা, শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-16

, ১৪ জিলহজ্জ ১৪৪০

বিক্রেতাদের বিরুদ্ধে ইচ্ছেমতো দামে পণ্য বিক্রির অভিযোগ

প্রকাশিত: ১২:৫৭ , ১৯ এপ্রিল ২০১৯ আপডেট: ০৫:০১ , ১৯ এপ্রিল ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: শবে বরাতকে সামনে রেখে রাজধানীর বাজারে ঊর্ধ্বমুখী নিত্যপণ্যের দাম। মাছ ও মাংসের মূল্যের সাথে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে মুদিপণ্য। সরবরাহ কম হওয়াকেই এর কারণ হিসেবে বিক্রেতাদের অভিযোগ মানতে নারাজ ক্রেতারা। তারা জানান, নিয়মনীতির তোয়ক্কা না করেই ইচ্ছে অনুযায়ী পণ্য বিক্রি করছেন বিক্রেতারা। 
বর্ষবরণের উৎসব শেষে হলেও উত্তাপ কমেনি কাঁচাবাজারের। দোকানিদের এবার লক্ষ্য শবে বরাত। আর এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে তারা লুফে নিচ্ছেন বাড়তি টাকা। তাই বাজার করতে এসে ক্রেতাদেরও পরিবর্তন করতে হচ্ছে নির্ধারিত বাজার তালিকা। তাদের অভিযোগ কোন উপলক্ষ্য এলেই বিক্রেতারা বাড়িয়ে দেয় নিত্যপণ্যের দাম।
চালের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও এ সপ্তাহেও বেশ চড়া সবজির দাম। করলা, বরবটি, বেগুন, ফুলকপি, কাচাঁমরিচ, ঝিঙা, চিচিঙ্গা ও পটলসহ প্রায় সবজি ৫০ থেকে ১২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বাড়তি এই দামের জন্য বিক্রেতারা দায়ি করলেন সরবরাহ কম হওয়াকেই। যদিও তাতে সন্তুষ্ট নন ক্রেতারা।
এদিকে, মাছের বাজারের উত্তাপও কমেনি। ইলিশের দাম গত সপ্তাহের চেয়ে কমলেও বাকি মাছের দাম কেজিপ্রতি বেড়েছে ১০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত। ক্রেতারা বাজার তদারকি না হওয়াকে দায়ি করলেও বিক্রেতাদের নেই সদুত্তর। 
গরু ও খাসির মাংসের দামও বাড়লো আরেক দফা। গেল সপ্তাহের তুলনায় ২০ থেকে ৩০ টাকা পর্যন্ত বাড়তি দামে বিক্রি হচ্ছে গরু ও খাসির মাংস। ক্রেতাদের দাবি সুযোগ পেলেই দাম বাড়িয়ে দেয় ক্রেতারা। আর বিক্রেতারা দাম বৃদ্ধির জন্য দায়ি করলেন সরবরাহ কম হওয়াকে। 
এদিকে, উত্তাপ ছড়াচ্ছে মুদি পণ্যেও। পেঁয়াজ, রসুন, আদা, ছোলা, ডাল ও চিনির দাম বেড়েছে কেজিপ্রতি ৩ থেকে ১০ টাকা পর্যন্ত। এ দাম বৃদ্ধিরও কোন কারণ দেখাতে পারেন নি বিক্রেতা। আর অসন্তোষ প্রকাশ করলেন ক্রেতারা।
তবে গত সপ্তাহের চেয়ে ৫ টাকা কমেছে মুরগীর দাম। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is