ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯, ৪ ভাদ্র ১৪২৬

2019-08-18

, ১৬ জিলহজ্জ ১৪৪০

পড়াশুনার সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র ফ্যাশন ডিজাইনিং

প্রকাশিত: ০৮:০৩ , ১৬ এপ্রিল ২০১৯ আপডেট: ০৮:০৩ , ১৬ এপ্রিল ২০১৯

ডেস্ক প্রতিবেদন: খুব বেশি দিন আগের কথা নয়, যখন বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে চিকিৎসা, প্রকৌশল, ব্যবসায় প্রশাসন কিংবা অর্থনীতির মতো বিষয়গুলোয় না পড়লে মোটামুটি জীবনে কিছুই হবে না বলে ধরে নেওয়া হতো। এখন বাজার বদলেছে, দৃষ্টিভঙ্গি বদলেছে। অর্থনীতিতে নতুন চাহিদার সঙ্গে তাল মেলাতে নতুন কিংবা আগে স্বল্প পরিচিত বিষয়গুলোয় দক্ষতা অর্জন করে এখন অনেকেই শুধু প্রতিষ্ঠিত নন, প্রথিতযশা। সারা বিশ্বেই চাকরির বাজারে সৃজনশীলতাকে গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে, বাড়ছে সৃজনশীল বিষয়গুলোয় পড়ালেখার চাহিদা।

পোশাকশিল্পের বড় বাজার:
তৈরি পোশাকশিল্প বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় চাকরির বাজার। দেশে প্রায় ১২ হাজারের বেশি পোশাক কারখানা আছে। সঙ্গে আছে বায়িং হাউস, সোয়েটার কারখানা, টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রি, মান নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠান এবং ফ্যাশন হাউস। বাংলাদেশ ২০২১ সালে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের তৈরি পোশাক রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে। অর্থাৎ আমাদের অন্তত ৫০ হাজার দক্ষ জনশক্তি দরকার হবে। এই খাতে শ্রমিকেরা ছাড়া দক্ষ জনশক্তি বলতে তাঁদেরই বোঝানো হয়, যাঁরা সাধারণত পোশাক উৎপাদন ব্যবস্থাপনা ও প্রযুক্তি, পণ্য বিক্রি, ফ্যাশন ডিজাইন, টেক্সটাইল প্রকৌশল বা প্রোডাক্ট ডিজাইনিংয়ের মতো বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর করেছেন। এই পড়ালেখার বিষয়গুলোয় তাত্তি¡ক জ্ঞানের পাশাপাশি ব্যবহারিক শিক্ষাকে বিশেষভাবে গুরুত্ব দেওয়া হয়।

বর্তমান প্রেক্ষাপটে খুবই সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র হলো ফ্যাশন ডিজাইনিং। যদিও ফ্যাশন ডিজাইনিং বলতে অনেকে শুধু পরিধেয় পোশাকের নকশা করাকেই বুঝে থাকেন। কিন্তু প্রকৃতপক্ষে ফ্যাশন ডিজাইনিংয়ের পরিধি অনেক ব্যাপক। এই বিষয়ে পাস করা একজন শিক্ষার্থীর সামনে ডিজাইনার হওয়া ছাড়াও টেক্সটাইল বিশেষজ্ঞ, ফ্যাশন স্টাইলিশ, ফ্যাশন সাংবাদিক, কারখানা ব্যবস্থাপক, প্রোডাকশন ম্যানেজার ও শিক্ষক হওয়ার পূর্ণ সুযোগ থাকে। সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের পাশাপাশি ২০০৩ সাল থেকে দেশের বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফ্যাশন ডিজাইনিং পড়ানো হচ্ছে।

 

 

এই বিভাগের আরো খবর

ডেঙ্গু প্রতিরোধে সতর্ক বিভিন্ন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান

ফারহানা জুঁথী: ডেঙ্গু প্রতিরোধে সতর্কতামূলক কার্যক্রম চালাচ্ছে রাজধানীর বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। নিজ ব্যবস্থাপনায় পরিচ্ছন্নতা কাজে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is