ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯, ৮ শ্রাবণ ১৪২৬

2019-07-22

, ১৯ জিলকদ ১৪৪০

পেটে মেদ বাড়ার ৬ কারণ

প্রকাশিত: ১২:২৮ , ২২ মার্চ ২০১৯ আপডেট: ১২:২৮ , ২২ মার্চ ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক: মানব দেহে সব থেকে তাড়াতাড়ি মেদ জমে পেটে। পেটের বিভিন্ন অঙ্গের চারপাশে এই ‘ফ্যাট’ জমে, যার থেকে সৃষ্টি হয় নানা রোগের। হার্টের সমস্যা, ডায়াবেটিস, রক্তচাপের মতো অসুখের সূত্র পেটের এই মেদ থেকেই। যাকে সাধারণ ভাবে বলা হয় ‘বেলি ফ্যাট’।

ভুল খাদ্যাভ্যাস, নিয়মিত ব্যায়াম না করা পেটের মেদ বাড়ার অন্যতম কারণ। শুধুমাত্র খাওয়াদাওয়াই নয়, বেলি ফ্যাট হতে পারে আরও নানা কারণে। দেখে নেওয়া যাক এক ঝলকে

১। সারা দিনে ঘুরতে ফিরতে, কাজের ফাঁকে কিছু-না-কিছু খাওয়া হয়েই যায়। কিন্তু এই খাবারগুলি মুখরোচক স্ন্যাক্স হলেই গন্ডোগোল। ফাস্ট ফুড খেতে ভাল হলেও স্বাস্থ্যের জন্য একেবারেই ঠিক নয়। তার বদলে যদি ফল, আমন্ড বা স্যালাড খাওয়া যায়, তাতে উপকার হবে।

২। আমাদের আধুনিক সমাজ জীবনে বিষণœতায় ভোগার যথেষ্ট কারণ রয়েছে এবং আমাদের অনেকেরই অনেকটা সময় বিষণœতায় কাটেও। এই বিষণœতাও পেটের মেদের একটি কারণ। কারণ বিষণœতায় ভুগলে তখন দেহে কর্টিসল নামক একপ্রকার হরমোন নিঃসৃত হয়। আর এই কর্টিসল হরমোন পেটের চারদিকে চর্বি জমাতে সাহায্য করে পেটের মেদ বৃদ্ধি করে।

৩। করনেল ইউনিভারসিটির বিশেষজ্ঞদের মতে, নেগেটিভ ইমোশান থাকলে বেশি খাওয়ার প্রবণতা হয়। যা শরীরে পক্ষে খুবই ক্ষতিকারক।

৪। প্রতিটি প্রাপ্ত বয়স্ক মানুষের জন্য দৈনিক ৭-৮ ঘণ্টা ঘুমানো খুবই প্রয়োজন। তাই কম ঘুমিয়ে বেশিক্ষণ জেগে থাকলে তা কর্টিসল হরমোনের উৎপাদন বাড়ায় এবং বেশি মিষ্টি খাবার বা যেকোন খাবারের ইচ্ছাকেও বাড়ায়। তাই এটিও মেটের মেদ বৃদ্ধির অন্যতম কারণ।

৫। রোগা হতে গিয়ে অনেকেই খাওয়াদাওয়া কমিয়ে দেয়। চিকিৎসকদের মতে, খাবারের পরিমাণ কমালে সমস্যা নেই। কিন্তু, বেশিক্ষণ না খেয়ে থাকলেও পেটে মেদ জমে। এছাড়া তেষ্টা পেলে অনেকেই সফট ড্রিঙ্কস পান করে। এতে অত্যাধিক ক্যালোরি রয়েছে যা শরীরে মেদ বাড়িয়ে দেয়।

৬। অফিসে বা অন্য কোনও কাজ করার সময় এক ভাবে অনেকক্ষণ বসে থাকলেও বেলি ফ্যাট বেড়ে যায়। বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতি এক থেকে দেড় ঘণ্টা অন্তর নিজের সিট থেকে উঠে খানিক হাঁটাচলা করা উচিত।

 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is