ঢাকা, শুক্রবার, ২২ মার্চ ২০১৯, ৮ চৈত্র ১৪২৫

2019-03-22

, ১৫ রজব ১৪৪০

সিরামিক শিল্পে শ্রমিক অসন্তোষ নেই, প্রকৌশলী সংকট আছে

প্রকাশিত: ০৯:১৮ , ১৩ মে ২০১৭ আপডেট: ০৯:১৮ , ১৩ মে ২০১৭

বিশেষ প্রতিবেদন: দেশের সিরামিক শিল্পে ব্যবহৃত কাঁচামাল আমদানিনির্ভর। এ ক্ষেত্রে নানান সমস্যার কথা বললেন উদ্যোক্তারা। তবে, এ শিল্পে কোনো শ্রমিক অসন্তোষ নেই, যা নিয়ে গর্ব করেন উদ্যোক্তারা। মোট শ্রমিকের ৪০ শতাংশ নারী। অবশ্য প্রকৌশলী পর্যায়ে কিছুটা সংকট আছে। 

আমদানি করা কাঁচামাল কয়েক ধাপে প্রক্রিয়াজাত করে ছাঁচে ফেলা হয় পণ্য তৈরির জন্য। তারপর হয় নকশা, রং চাপানো, চকচকে ও প্যাকেটজাত করার কাজ। 

কোনো কোনো সামগ্রীর নকশায় স্বর্ণের মতো মূল্যবান দ্রব্যও ব্যবহার হয়। তরল স্বর্ণ দিয়ে নকশা কাটার পর সেগুলো যেসকল কাপড়ের টুকরো দিয়ে নিখুঁত করতে ঘষামাজা ও মোছা হয়, সেই কাপড়ও বিক্রি হয়। এর ক্রেতারা কাপড়ে লেগে থাকা স্বর্ণ সংগ্রহ করেন। এ শিল্পে এমন নানান কাজে যুক্ত ৫ লাখ শ্রমিক তাদের পেশায় খুশি। 

চীন, মিশর, ইরান, নিউজিল্যান্ড, ভারতসহ বেশকিছু দেশ থেকে এ শিল্পের কাঁচামাল আসে। আমদানি ক্ষেত্রেসহ আছে নানামুখি সমস্যার অভিযোগ।

নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্যখাত সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে নতুন নতুন সামগ্রী তৈরির চেষ্টা চলছে। সেসব পণ্যের জন্য লক্ষ্য বিদেশী বাজার।

সিরামিকের অন্যান্য ব্যবহারের মধ্যে রয়েছে বুলেট প্রুফ জ্যাকেট, কাটিং টুলস, স্বাস্থ্য খাতের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ, যেমন নি-ক্যাপ, টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রিতে ব্যবহৃত বিভিন্ন স্পেয়ার ইত্যাদি।

সিরামিক শিল্পে দক্ষ শ্রমিকের কোন অভাব নেই, তবে অভাব আছে দক্ষ প্রকৌশলীর। ো

একসময় সাধারণ মানুষের কাছে সিরামিক হিসেবে পরিচিত ছিলো চীন থেকে আসা তৈজসপত্র। সে-ধারণাকে পাল্টে দিয়েছেন সিরামিক শিল্পের সাথে জড়িত উদ্যোক্তারা। দেশের তৈরি সিরামিক পণ্য স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে জায়গা করে নিয়ে বিশ্বআসরে। উদ্যোক্তারা বলছেন, এ শিল্প এখন পরিণত হয়েছে একটি সম্ভাবনাময় খাতে।
 

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is