ঢাকা, সোমবার, ১৯ নভেম্বর ২০১৮, ৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-19

, ১০ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

নারী-পুরুষের অবাধ সম্পর্ক রোধে চালু হয় বিয়ে প্রথা

প্রকাশিত: ১০:৩৫ , ১২ মে ২০১৭ আপডেট: ১০:৩৫ , ১২ মে ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: পৃথিবীজুড়ে নারী-পুরুষের বন্ধনের আইনি ও সামাজিক স্বীকৃতির নাম বিয়ে। আদিম যুগে শিকার নির্ভরতা থেকে কৃষি ও সম্পদ নির্ভর জীবনে প্রবেশ করলে বিয়ে ও নিজস্ব পরিবারের ধারণা আসে মানুষের চিন্তায়। দুনিয়া জুড়ে বিয়ে সংস্কৃতির বিবর্তন চলমান প্রক্রিয়া।

সানাইয়ের সুর মানেই বিয়ের বাদ্য। এটা বাংলা ও ভারত উপমহাদেশের ঐতিহ্য। তবে ১০ হাজার বছর আগে যখন মানব সমাজে বিয়ের ধারণা তৈরি হয়, তখন ছিল না সানাই। বিয়ে প্রথার আগে ছিল নারী ও পুরুষের অবারিত সম্পর্কের সংস্কৃতি। তার পরিবর্তন ঘটাতে শুরু হয় বিয়ে ব্যবস্থা। প্রারম্ভে ছিল বহুবিবাহ প্রথা, বিয়ে করা নারীরা ছিল দাসীর মত।

হাজার হাজার বছর ধরে দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন ও সভ্যতার বিকাশের ধারাবাহিকতায় কিছু ব্যাতিক্রম ছাড়া বিশ্বজুড়ে বহুবিবাহ প্রথা থেকে মানুষ বেরিয়ে আসতে শুরু করে কয়েক শতক আগে থেকে।

পৃথিবীর সব জনপদের মতই আদি ভারত বর্ষেও এই ভূ-খন্ডের আদি ধর্ম ও সংস্কৃতির প্রভাবে নিজস্ব কিছু লোকাচার, বাধ্যবাধকতা ও দৃষ্টিভঙ্গি গড়ে উঠে বিয়েকে ঘিরে। সেগুলোর পরিবর্তনও হয়। গত দু’শ বছরের বিয়ের ইতিহাস থেকে সমাজবিজ্ঞানীরা অনেক সংস্কার খুঁজে পান।

বর্তমানে বিয়ে নারী পুরুষের বন্ধন ও পরিবার গড়ে তোলার একটি সুশৃঙ্খল উপায় হিসেবে বিবেচিত। বহু সংস্কারের পরও বহুপথ হাটা বাকী, যার প্রমাণ বাল্যবিবাহ বন্ধে এই অত্যাধুনিক সময়েও লড়াই।

বিয়ে প্রথায় কত ধরনের পরিবর্তন গত কয়েক দশকে এসেছে তা নিয়ে গবেষণা হয়েছে খুব সামান্য। তেমন একটি গবেষণায় বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ পর্যবেক্ষণ উঠে এসেছে।

বিয়ে ও পরিবার প্রথার গভীর সমাজ দর্শনের বিষয়টির চাইতে সাধারণের দৃষ্টিতে এটি একটি মহোৎসবের উপলক্ষ। অনেকের জন্য বাণিজ্যের বড় ক্ষেত্র।

এই বিভাগের আরো খবর

ঝালকাঠির আটঘরে জমে উঠেছে দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে বড় নৌকারহাট

ঝালকাঠি প্রতিনিধি: বর্ষা মৌসুমে ঝালকাঠি ও পিরোজপুর জেলার সীমান্তবর্তী আটঘরে জমে উঠেছে দক্ষিণাঞ্চলের সবচেয়ে বড় নৌকারহাট। স্থানীয়ভাবে...

গ্যাস বেলুনে হিলিয়ামের পরিবর্তে ব্যবহার হচ্ছে হাইড্রোজেন গ্যাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিপজ্জনক ও বিস্ফোরক হাইড্রোজেন গ্যাস দিয়ে বেলুন ফুলিয়ে উড়ানো হচ্ছে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে। নানা উৎসবে শিশুদের হাতে হাতে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is