উদ্বোধনের পরেই খুলে যাবে অমর একুশে গ্রন্থমেলা

প্রকাশিত: ০৯:১৩, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

আপডেট: ০৯:১৩, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: ভাষা শহীদদের স্মৃতি বিজড়িত ভাষার মাস ফেব্রুয়ারির প্রথম দিন আজ শুক্রবার- ১ ফেব্রুয়ারি বিকেল ৩টায় এ গ্রন্থমেলা উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’র এবারের এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সম্মানিত হিসেবে তার পাশে থাকবেন পশ্চিমবঙ্গের প্রখ্যাত কবি শঙ্খ ঘোষ এবং মিশরের লেখক, গবেষক ও সাংবাদিক মোহসেন আল-আরিশি।
লেখক-প্রকাশক-পাঠক আর সাহিত্যপ্রেমীদের দীর্ঘ এক বছরের সকল অপেক্ষার পালা শেষ করে বাংলা একাডেমি ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শুরু হতে যাচ্ছে মাসব্যাপী বাঙালির প্রাণের মেলা ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৯’। ইতোমধ্যে শেষ হয়েছে গ্রন্থমেলার আয়োজনের সকল প্রস্তুতি। মেলার দুই প্রাঙ্গণ বাংলা একাডেমি সেজেছে বর্ণিল রূপে, পাশের সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে লেগেছে সাজসজ্জার রোশনাই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি প্রাঙ্গণ থেকে দোয়েল চত্বর-সর্বত্রই এখন যেন উৎসবের আবহ। এমনই উৎসবের আবহে আজকের রাত পোহালেই শুরু হতে যাচ্ছে বাঙালির প্রাণের মেলা ‘অমর একুশে গ্রন্থমেলা’।
এ মঞ্চেই ২০১৮ সালের বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেবেন প্রধানমন্ত্রী। সেই সঙ্গে তিনি ‘সিক্রেট ডকুমেন্টস্ অব ইন্টেলিজেন্স ব্রান্স অন ফাদার অব দ্যা নেশন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-ভলিউম-২, ১৯৫১-১৯৫২ (SECRET DOCUMENTS OF INTELLIGENCE BRANCH ON FATHER OF THE NATION BANGABANDHU SHEIKH MUJIBUR RAHMAN (VOLUME-2, 1951-1952)-এর মোড়ক উন্মোচন করবেন। এছাড়াও এ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেওয়া হবে বাংলা একাডেমি প্রকাশিত মোহসেন আল-আরিশি রচিত বইয়ের অনুবাদ ‘শেখ হাসিনা : যে রূপকথা শুধু রূপকথা নয়’ বইটি।
উদ্বোধনের পরেই সর্বসাধারণের জন্য খুলে যাবে মেলার দুই প্রাঙ্গণের প্রবেশপথ। তারপর থেকেই মূলত শুরু হবে আপামর বাঙালির প্রাণের মেলা। যা চলবে-মাতৃভাষা রক্ষায় বাঙালির আত্মদানের মাস ‘ফেব্রুয়ারি’ জুড়েই। বইমেলার এপ্রান্ত থেকে ওপ্রান্তের বাতাসে ভেসে বেড়াবে নতুন বইয়ের ঘ্রাণ। এসব বই নিয়ে জমবে লেখক-প্রকাশক-পাঠক আর সাহিত্যপ্রেমীদের মধ্যে আলোচনা-আড্ডা। যা চলবে ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। ছুটির দিন ব্যতীত প্রতিদিন বিকেল তিনটা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত। ছুটির দিন বেলা ১১টা থেকে রাত নয়টা এবং ২১ ফেব্রুয়ারি সকাল আটটা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত মেলা চলবে।

এবারের মেলার প্রস্তুতিসহ মেলার অন্যান্য বিষয়ে বিস্তারিত তুলে ধরতে বৃহস্পতিবার (৩১ জানুয়ারি) সকালে অনুষ্ঠিত হয়েছে সংবাদ সম্মেলন। মেলার আয়োজক বাংলা একাডেমি’র আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে এই সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন একাডেমির মহাপরিচালক কবি হাবীবুল্লাহ সিরাজী।
এবারের গ্রন্থমেলা আয়োজন নিয়ে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক বলেন, বায়ান্ন’র চেতনা থেকে একাত্তর। যার ভেতরে জড়িয়ে আছে ৫৪, ৬২, ৬৬ ও ৬৯। বাঙালির স্বাধিকার থেকে স্বাধীনতা অর্জনের এই পথচলাকে এবার উদযাপন করা হবে মেলাজুড়ে। তিনি বলেন, এর জন্য এবারের মেলার প্রতিপাদ্য নির্ধারণ করা হয়েছে ‘বিজয় : বায়ান্ন থেকে একাত্তর (নব পর্যায়)’। সেইসঙ্গে, ২০২০ সালে জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ও ২০২১ সালে বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনের যাত্রাও শুরু হবে এ মেলা থেকে।

নতুন অনেক কিছু সংযোজন করে অন্যান্য-বারের চেয়ে এবার আরও সুন্দর ও পরিশীলিতভাবে মেলা অনুষ্ঠিত হবে বলে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক আশা করেন।

এই বিভাগের আরো খবর

চলছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব

নিজস্ব প্রতিবেদক: টঙ্গীর তুরাগ তীরে...

বিস্তারিত
বিশ্বের সবচেয়ে যানজটের শহর

ডেস্ক প্রতিবেদন: বিশ্বের সবচেয়ে...

বিস্তারিত
রাজধানীতে হঠাৎ বৃষ্টি

নিজস্ব প্রতিবেদক: পশ্চিমা লঘুচাপের...

বিস্তারিত
বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ৪৯ নারী এমপি নির্বাচিত

নিজস্ব প্রতিবেদক: একাদশ জাতীয় সংসদের...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *