ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-26

, ১৫ মহাররম ১৪৪০

সাউথ এশিয়ান স্যাটেলাইটের উৎক্ষেপণ বিকেলে

প্রকাশিত: ০৬:৫৬ , ০৫ মে ২০১৭ আপডেট: ০৬:৫৬ , ০৫ মে ২০১৭

আন্তর্জাতিক ডেস্ক; আজ শুক্রবার বিকেলে উৎক্ষেপিত হতে চলেছে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির স্বপ্নের ‘সাউথ এশিয়ান স্যাটেলাইট। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ উৎক্ষেপণ অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দেবেন মোদির সঙ্গে। 

২০১৪ সালে নেপালে অনুষ্ঠিত হওয়া সার্ক সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই স্যাটেলাইট উৎক্ষেপণের প্রস্তাব দিয়েছিলেন। মূলত ‘সার্ক’ গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির মধ্যে টেলি-কমিউনিকেশন, টেলি-মেডিসিন, টেলি-এডুকেশন, ডিটিএইচ পরিষেবা উন্নত করা এবং বিপর্যয় মোকাবিলায় এই উপগ্রহকে ব্যবহার করা হবে। এজন্য প্রায় ২৩৫ কোটি টাকায় এই উপগ্রহ মহাকাশে পাঠানো হচ্ছে। প্রথমে গত বছরের শেষের দিকে এই উপগ্রহ উৎক্ষেপণ করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা পিছাতে পিছাতে ৫ মে চূড়ান্ত হয়।

ভারতীয় উপগ্রহ গবেষণা সংস্থা 'ইসরো'র মুখ্য জনসংযোগ কর্মকর্তা দেবীপ্রসাদ কারণিক বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৫৭ মিনিট থেকে ২৮ ঘণ্টার কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গিয়েছে। সেইমতো আজ, শুক্রবার বিকাল ৪টা ৫৭ মিনিটে অন্ধ্রপ্রদেশের শ্রীহরিকোটার সতীশ ধাওয়ান স্পেস সেন্টার থেকে জিএসএলভি-এফ ০৯ রকেটে করে এই উপগ্রহ উৎক্ষেপিত হবে। তবে সার্ক গোষ্ঠীভুক্ত আটটি দেশের মধ্যে যেহেতু পাকিস্তান এ প্রকল্পে অংশগ্রহণ করছে না, তাই শেষ পর্যন্ত 'সাউথ এশিয়ান স্যাটেলাইট' নাম দেওয়া হয়েছে প্রকল্পটির। ইসরোর এক কর্তা বলেন, গতমাসেই এই উপগ্রহের সব যন্ত্র পরীক্ষা করা শেষ হয়ে যায়। 

সার্ক অন্তর্ভুক্ত অনেক দেশেরই (নেপাল, ভুটান, আফগানিস্তান, মালদ্বীপ) মহাকাশ গবেষণায় আলাদা করে কোনো  পরিকাঠামো নেই। সেক্ষেত্রে তারা এবিষয়ে ভিন্ন দেশের দিকেই সর্বদা তাকিয়ে থাকে। কিন্তু সার্ক অন্তর্ভুক্ত যে-দেশগুলিতে মহাকাশ গবেষণার কাজ হয় তার মধ্যে ভারত ছাড়াও পাকিস্তান, বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কা রয়েছে। এ অবস্থায় ভারতের এই উপগ্রহ প্রকল্পে কারা অংশগ্রহণ করবে, তা নিয়ে রীতিমতো আগ্রহ দেখা দিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ এবং শ্রীলঙ্কা চুক্তি স্বাক্ষর করায়, ভালোভাবেই প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হতে চলেছে বলে কেন্দ্রের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল। পাকিস্তানের মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র (স্পেস অ্যান্ড আপার অ্যাটমোস্ফিয়ার রিসার্চ কমিশন) এ প্রকল্পে একযোগে কাজ করার ইচ্ছা প্রকাশ করলেও ভারত তাতে সম্মতি না দেয়ায়, পাকিস্তানসহ অনেক দেশই বেঁকে বসেছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত পাকিস্তান ছাড়া সবদেশই ভারতের পাশে দাঁড়ানোয় প্রতিবেশীদের সঙ্গে দিল্লির সম্পর্ক আরও সুদৃঢ় হবে বলেই বিশেষজ্ঞদের দাবি। অন্যদিকে, আগামী মাসের প্রথম দিকেই জিএসএলভি-মার্ক ত্রি রকেটেরও (অত্যাধিক শক্তিশালী উৎক্ষেপক) পরীক্ষামূলক উৎক্ষেপণ করা হতে পারে বলে ইসরোর পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর বাণিজ্যিক কার্যক্রমে পরামর্শক থাইকম

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশের প্রথম স্যাটেলাইট বঙ্গবন্ধু-১ এর বাণিজ্যিক কার্যক্রমে পরামর্শক হিসেবে কাজ করবে এশিয়ার অন্যতম শীর্ষ...

হঠাৎ ব্রেক ফেল?

ডেস্ক প্রতিবেদন:  কোনো পূর্বাভাস ছাড়াই গাড়ির ব্রেক ফেল হয় বলে এর ঝুঁকি অনেক বেশি। ব্রেক ফেল করে কখনো কখনো প্রাণহানির ঘটনার খবর শোনা যায়।...

৫ ক্যামেরার ফোন আনছে নোকিয়া!

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: পাঁচ ক্যামেরার অ্যান্ড্রয়েড স্মার্টফোন আনতে পারে নোকিয়া, ডিভাইসটির ফাঁস হওয়া ছবিতে এমনটাই দেখা গেছে। চলতি বছরের...

রঙিন এক্স-রের উদ্ভাবন; চিকিৎসা বিজ্ঞানে যুগান্তকারী আবিষ্কার

ডেস্ক প্রতিবেদন: চিকিৎসা বিজ্ঞানের জগতে এক যুগান্তকারী আবিষ্কার করলেন নিউজিল্যান্ডের বিজ্ঞানীরা। রঙিন এক্স-রের উদ্ভাবন করলেন তাঁরা।...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is