ঢাকা, সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৬ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-18

, ১২ জমাদিউল সানি ১৪৪০

সৌরজগৎ ছাড়িয়ে যাচ্ছে ভয়েজার-২

প্রকাশিত: ০৯:২৬ , ১৭ অক্টোবর ২০১৮ আপডেট: ০৯:২৬ , ১৭ অক্টোবর ২০১৮

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: ১৯৭৭ থেকে ২০১৮ সাল, ৪১ বছর ধরে কাজ করে এবার সৌরজগৎ ছেড়ে ইন্টারস্টেলার স্পেসে ঢুকতে চলেছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা প্রতিষ্ঠান নাসার তৈরি ভয়েজার ২ নভোযান। গত আগস্ট মাস থেকে ভয়েজার-২ মহাকাশযান মহাজাগতিক রশ্মি বৃদ্ধির মুখে পড়েছে। এমনটাই একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে নাসা। ভয়েজার-২ একমাত্র মহাকাশযান যা বৃহস্পতি, শনি, ইউরেনাস এবং নেপচুনের মাটিতে পা রেখেছিল।

বৃহস্পতিতে ভয়েজার নেমেছিল ১৯৭৯ সালে। শনিতে ১৯৮১ সালে, ১৯৮৩ সালে ইউরেনাসে এবং ১৯৮৯ সালে নেপচুনে গিয়েছিল ভয়েজার। এই মুহূর্তে পৃথিবী থেকে ১৭.৭ বিলিয়ন কিলোমিটার দূরে রয়েছে ভয়েজার-২। আরও সহজ করে বললে, পৃথিবী আর সূর্যের মধ্যে যে দূরত্ব, এই মুহূর্তে পৃথিবী ও ভয়েজারের মধ্যে দূরত্ব তার ১১৮ গুণ।

গবেষকেরা বলছেন, ভয়েজার-২ যে রশ্মির মুখোমুখি হয়েছে, তা সৌরজগতের বাইরে উদ্ভূত। এ রশ্মি থেকেই বোঝা যায়, মহাকাশযানটি ইন্টারস্টেলার স্পেসের কাছাকাছি পৌঁছেছে। বর্তমানে এটি হেলিওপজ এলাকা অতিক্রম করছে। ওই এলাকা সৌরঝড়ে তৈরি বুদ্বুদের প্রান্ত বা হেলিওস্ফেয়ার হিসেবে পরিচিত। এর আগে ২০১২ সালের মে মাসে ভয়েজার-১ নভোযানটিও একই ধরনের রশ্মির মুখোমুখি হয়েছিল। হেলিওস্ফিয়ারের বাইরের সীমানা, অর্থাৎ হেলিওপোজে পৌঁছানোর জন্য মহাকাশযানটির দিকে লক্ষ রাখছিলেন মহাকাশযানবিদেরা।

এনডিটিভির এক প্রতিবেদনে বলা হয়, হেলিওস্ফেয়ার হলো সূর্যের চারপাশে ও গ্রহগুলোর চারপাশের সুবিশাল বুদ্বুদ, যা সৌর উপাদান এবং চুম্বকক্ষেত্র দ্বারা প্রভাবিত। ভয়েজার-১ এর পরে এটিই মানুষের তৈরি দ্বিতীয় মহাকাশ যান, যা ইন্টারস্টেলার স্পেসে ভ্রমণ করবে।

গবেষকেরা বলছেন, ভয়েজার-২এর অবস্থান ও পরিভ্রমণপথ পৃথক। তাই এটি কখন সৌরজগৎ ছাড়িয়ে যাবে, তা ঠিক বলা যায় না। হেলিওস্ফেয়ারের সীমানা পরিবর্তিত হয়। সূর্যের ১১ বছরের চক্রে এ সীমানা পরিবর্তন হয়ে থাকে। তাই কবে নাগাদ সূর্যের বলয় থেকে ওই নভোযানটি বেরিয়ে যাবে, তা ঠিক বলা যায় না।

ক্যালিফোর্নিয়ায় নাসার জেট প্রপালশন ল্যাবরেটরির গবেষক এড স্টোন বলেছেন, আগস্টের শেষ দিক থেকেই কসমিক রে সাবসিস্টেম ভয়েজার-২ মহাজাগতিক রশ্মির বৃদ্ধি লক্ষ্য করে, যা গত বছরের থেকে ৫ শতাংশ বেশি।

তিনি বলেন, আমরা তার দিকে নজর রেখেছিলাম। দীর্ঘদিন ধরে ভয়েজার অক্লান্তভাবে নাসাকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্যের জোগান দিয়ে গেছে। মহাকাশ গবেষণার ইতিহাসে ভয়জার-২'র নাম উজ্জ্বল হয়ে থাকবে।’

এই বিভাগের আরো খবর

সৌরমণ্ডলে রয়েছে পানি আর খনিজ পদার্থের অফুরন্ত ভাণ্ডার!

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: সৌরমণ্ডলে পানি আর খনিজ পদার্থের অফুরন্ত ভাণ্ডার রয়েছে বলে জানালেন বিজ্ঞানীরা। এই প্রথম তাঁরা দেখালেন, যে...

৪৫টি দেশকে ন্যানো-স্যাটেলাইট তৈরির প্রশিক্ষণ দিবে ভারত

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: নিজেদের ন্যানো-স্যাটেলাইট তৈরির অভিজ্ঞতা ও জ্ঞানকে বিশ্বের সাথে ভাগ করে নিতে চায় ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা...

চাকরি হারালেন ২৪৩ রোবট!

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: জাপানের নাগাসাকিতে ‘হেন না’ এমন এক হোটেল যেখানে বিশ্বের সর্ব প্রথম কর্মী হিসেবে নিয়োজিত রয়েছে ২৪৩টি রোবট।...

নিবন্ধনের আওতায় আসছে মোবাইল ফোন

নিজস্ব প্রতিবেদক: সিমের পর এবার মোবাইল ফোন নিবন্ধনের আওতায় আসছে। রাজস্ব ফাঁকি ও অবৈধ আমদানি বন্ধে এই উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is