ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-12-14

, ৫ রবিউস সানি ১৪৪০

এখনো জঙ্গি হামলার ঝুঁকিতে বাংলাদেশ : যুক্তরাষ্ট্র

প্রকাশিত: ০৩:০১ , ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৩:৪৬ , ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাংলাদেশে জঙ্গি হামলা কমে আসলেও এখনো ঝুঁকি রয়ে গেছে- এমনই তথ্য উঠে এসেছে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের সন্ত্রাসবাদ বিষয়ক বার্ষিক প্রতিবেদনে। এতে বলা হয়েছে পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠনগুলো উপমহাদেশের জন্য এখনো হুমকিস্বরূপ। তবে জঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলায় বাংলাদেশ সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির প্রশংসা করা হয় প্রতিবেদনে।

মার্কিন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় স্থানীয় সময় বুধবার সন্ত্রাসবাদ সম্পর্কিত বার্ষিক প্রতিবেদন ২০১৭ প্রকাশ করে। এতে উঠে আসে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের সন্ত্রাসবাদ বিষয়ক বিভিন্ন তথ্য। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাকিস্তানভিত্তিক জঙ্গি সংগঠনগুলো গোটা উপমহাদেশের জন্য এখনো হুমকি। এমনকি যুক্তরাষ্ট্র বারবার সতর্ক করার পরও সন্ত্রাসবাদ নিরসনে কার্যকর উদ্যোগ নেয়নি ইসলামাবাদ। যা উপমহাদেশের জন্যই উদ্বেগের।

প্রতিবেদনে উঠে আসে বাংলাদেশ প্রসঙ্গও। সেখানে বলা হয়েছে, বাংলাদেশে জঙ্গি হামলার সংখ্যা কমে এসেছে। তবে ইসলামিক স্টেট এবং আল কায়েদা ইন দ্য ইন্ডিয়ান সাবকন্টিনেন্টের মতো আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠনগুলোর তৎপরতার কারণে হামলার ঝুঁকি এখনও রয়ে গেছে। তবে সন্ত্রাস দমনে সরকারের জিরো টলারেন্স নীতির প্রশংসা করা হয়েছেন মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের বার্ষিক প্রতিবেদনে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, বাংলাদেশ আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত তথ্য ইন্টারপোলের সঙ্গে আদানপ্রদান করলেও নজরদারিতে থাকা জঙ্গিদের কোনও তালিকা প্রস্তুত করেনি। যা করার তাগিদ উঠে এসেছে প্রতিবেদনে।

জঙ্গিবাদে সহায়তাকারী দেশগুলোর মধ্যে ইরান অন্যতম বলেও প্রতিবেদনে উলে­খ করা হয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

রোহিঙ্গা নিপীড়ন ‘গণহত্যা’, যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধি পরিষদে প্রস্তাবনা পাস

নিজস্ব প্রতিবেদক: যুক্তরাষ্ট্রের হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর রোহিঙ্গা নিপীড়নের ঘটনাকে ‘গণহত্যা’...

রোহিঙ্গাদের জন্য ৫০ টি বাড়ি মিয়ানমারকে হস্তান্তর করলো ভারত

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: রোহিঙ্গাদের জন্য ভারতের নির্মিত ৫০টি বাড়ি মিয়ানমারের কাছে হস্তান্তর করেছে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ। মঙ্গলবার ভারতীয়...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is