ঢাকা, বুধবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৪ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-19

, ৮ মহাররম ১৪৪০

বিশ্বে `অতি ধনী' বাড়ার হারে শীর্ষে বাংলাদেশ!

প্রকাশিত: ০৫:০৭ , ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৫:০৭ , ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বৈশাখী ডেস্ক: বিশ্বের যেকোনো দেশের তুলনায় বাংলাদেশে ‘অতি ধনী’ মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে দ্রুতগতিতে বাড়ছে। লন্ডনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান ‘ওয়েলথ এক্সে’র এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। অতি ধনীদের ওপর সর্বশেষ প্রতিবেদন গত সপ্তাহে প্রকাশ করে ওয়েলথ এক্স। প্রতিবেদনে অতি ধনী বা ‘আলট্রা হাই নেট ওয়ার্থ’ (ইউএইচএনডাব্লিউ) বলে তাদেরকেই বিবেচনা করা হয়, যাদের সম্পদের পরিমাণ তিন কোটি ডলার বা তার চেয়ে বেশি। অর্থাৎ বাংলাদেশি টাকায় যাদের সম্পদ আড়াইশ কোটি টাকার বেশি, তারাই ‘অতি ধনী’ বলে গণ্য হবেন। প্রতিবেদনে দেখা যায়, বিশ্বে অতি ধনী মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ‘অতি ধনী’ মানুষের সংখ্যা প্রায় ৮০ হাজার।

দ্বিতীয় স্থানে আছে জাপান। তাদের অতি ধনী সংখ্যার মানুষের সংখ্যা প্রায় ১৮ হাজার। আর প্রায় ১৭ হাজার অতি ধনী মানুষ নিয়ে চীন আছে তৃতীয় স্থানে। তালিকায় প্রথম দশটি দেশের তালিকায় আরও আছে জার্মানি, কানাডা, ফ্রান্স, হংকং, যুক্তরাজ্য, সুইজারল্যান্ড ও ইতালি।

সবার শীর্ষে বাংলাদেশ!

অতি ধনীর সংখ্যার তালিকায় স্থান না মিললেও অতি ধনী মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে দ্রুত হারে বাড়ছে যেসব দেশে, সেই তালিকায় বাংলাদেশের স্থান সবার ওপরে। ওয়েলথ এক্সের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে অতি ধনীদের সংখ্যা বাড়ছে ১৭ দশমিক তিন শতাংশ হারে। এই তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে আছে চীন। সেখানে অতি ধনীর সংখ্যা বাড়ছে ১৩ দশমিক ৭ শতাংশ হারে। এরপর আছে যথাক্রমে ভিয়েতনাম, কেনিয়া, ভারত হংকং এবং আয়ারল্যান্ড।

ওয়েলথ এক্স তাদের প্রতিবেদনে বলছে, ‘আলট্রা হাই নেট ওয়ার্থ’ বা অতি ধনী মানুষের সংখ্যা গত ৫ বছরে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে চীন ও হংকংয়ে। এর বিপরীতে জাপান, কানাডা, ইতালি ও যুক্তরাষ্ট্রে নতুন ধনী তৈরি হওয়ার গতি ধীর হয়ে এসেছে।

ওয়েলথ এক্স জানাচ্ছে, যদি বিশ্ব পরিসরে দেখা হয়, অবাক করা ব্যাপার হচ্ছে, নতুন ধনী তৈরির ক্ষেত্রে চীন এখন আর শীর্ষে নয়। সেখানে বাংলাদেশ সবার চেয়ে এগিয়ে।

২০১২ সাল থেকে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে প্রতিবছর ১৭ শতাংশ হারে অতি ধনীর সংখ্যা বেড়েছে। ভিয়েতনাম, কেনিয়া ও ভারতও এ ক্ষেত্রে খুব বেশি পিছিয়ে নেই।

কারা এই অতি ধনী?

অতি ধনীর সংখ্যা যে বাংলাদেশে সবচেয়ে দ্রুত হারে বাড়ছে, এই তথ্যে অর্থনীতিবিদরা মোটেই বিস্মিত নন।

ঢাকার সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন বলেন, ‘এই তথ্য থেকে আমি মোটেও অবাক হইনি। কারণ গত কয়েক বছর ধরে বাংলাদেশে যে একটা গোষ্ঠীর হাতে এ ধরনের সম্পদ পুঞ্জীভূত হচ্ছে, সেটা আসলে দেখাই যাচ্ছে। এই সম্পদ তৈরির প্রক্রিয়া তো একদিনে তৈরি হয়নি। এটা কয়েক দশক ধরেই হয়েছে। এখন এটি আরও দ্রুততর হচ্ছে।’

এই বিভাগের আরো খবর

পদ্মা সেতুতে রেল লাইনেরও ভিত্তিপ্রস্তর উদ্বোধন ১৩ অক্টোবর

নিজস্ব প্রতিবেদক: সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, স্বপ্নের পদ্মা সেতুর ৫৭ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। নির্মাণ কাজের...

হাবীব-উন-নবী খান সোহেল গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব ও ঢাকা মহানগর বিএনপির (দক্ষিণ) সভাপতি হাবীব-উন-নবী খান সোহেলকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is