ঢাকা, সোমবার, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ৬ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-18

, ১২ জমাদিউল সানি ১৪৪০

শরীয়তপুরের এবার পদ্মার ভাঙন রাজবাড়ীতে

প্রকাশিত: ০৫:৩২ , ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৫:৩২ , ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ন্যাশনাল ডেস্ক : লালমনিরহাটে তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে পানিবন্দী হয়ে পড়েছে হাজার হাজার মানুষ। এদিকে, কুড়িগ্রামে উজান থেকে নেমে আসা ঢলে ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও ধরলার পানি বৃদ্ধি পেয়ে নিæাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। অন্যদিকে, রাজবাড়ির কয়েকটি স্থানে শুরু হয়েছে তীব্র নদী ভাঙন। বিলীন হয়েছে কয়েক হাজার বসত বাড়ি ও ফসলি জমি। এছাড়া, শরীয়তপুরে অব্যাহত রয়েছে পদ্মার ভাঙন।

লালমনিরহাটে উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ী ঢলে তিস্তা ও ধরলা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। বিপদসীমার ৮ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ধরলা ও তিস্তার পানি। ফলে জেলার পাটগ্রাম, হাতীবান্ধা, কালিগঞ্জ, আদিতমারী ও সদর উপজেলার ২৫টি গ্রামের ২০ হাজার মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছে।

এদিকে, কুড়িগ্রামে উজান থেকে নেমে আসা ঢলে ব্রহ্মপুত্র, তিস্তা ও ধরলার পানি বৃদ্ধি পেয়ে নিæাঞ্চলগুলো প্লাবিত হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, গত ১২ ঘন্টায় ধরলা নদীর পানি সেতু পয়েন্টে ৯৭ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার সামান্য নীচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

অন্যদিকে, রাজবাড়ির কয়েকটি স্থানেও শুরু হয়েছে নদী ভাঙন। ইতিমধ্যেই বরাট, দেব গ্রাম, বালিয়াকান্দি, দৌলতদিয়া, কালুখালীসহ বিভিন্ন এলাকার পাঁচ শতাধিক বসত বাড়ি ও কয়েক হাজার হেক্টর ফসলী জমি নদীগর্ভে বিলিন হয়েছে প্রায়।

কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে পদ্মানদী থেকে বালি কাটার কারনেই ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। তবে এরইমধ্যে ভাঙ্গন রোধে বালু ভর্তি জিও বাগ ফেলা হয়েছে।

এছাড়া, অব্যাহত রয়েছে শরীয়তপুরে পদ্মা নদীর ভাঙন। জেলার মোক্তারেরচর, কেদারপুর, ঘরিসার ও নড়িয়া পৌরসভার ১৫টি গ্রামে প্রায় চার হাজার পরিবার গৃহহীন হয়েছে।

 

এই বিভাগের আরো খবর

লক্ষ্মীপুরে অদক্ষ অটোরিক্সা চালকের কারণে ঘটছে দুর্ঘটনা

লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি : লক্ষ্মীপুরের আঞ্চলিক সড়কগুলো দাপিয়ে বেড়াচ্ছে অটোরিক্সা। তবে, এসব অটোরিক্সার বেশিরভাগ চালকেরই নেই লাইসেন্স। অদক্ষ...

কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক

মাদারীপুর প্রতিনিধি : ঘন কুয়াশার কারণে ৫ ঘণ্টা বন্ধ থাকার পর কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল স্বাভাবিক হয়েছে। রোববার রাত তিনটা থেকে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is