ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-24

, ১৩ মহাররম ১৪৪০

বাংলাদেশি বন্য হাতিদের প্রবেশ বন্ধ করতে চায় ভারত

প্রকাশিত: ০৩:৫২ , ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৩:৫২ , ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: মানুষের অনুপ্রবেশ বন্ধে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে কড়াকড়ি আরোপ করেছে অনেক আগেই। এবার বাংলাদেশি বন্য হাতিদের প্রবেশ বন্ধ করতে চায় ভারত।

এরমধ্যে ভারতের আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসন বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে হাতি ঠেকানোর উদ্যোগ নিয়েছে। বাংলাদেশের বনাঞ্চল থেকে যাওয়া হাতিরা ওই জেলার বিভিন্ন এলাকায় তাণ্ডব চালাচ্ছে এমন দাবি করে সীমান্তে হাতি চলাচল নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ নিয়েছে তারা।

ভারতের সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া ব্লুমস জানিয়েছে, বাংলাদেশ সীমান্তে লেবু ও বুনো মরিচ গাছ লাগানোর পরিকল্পনা করছে করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসন।
 
বন্য হাতি চলাচলের পথ সুগম রাখতে করিমগঞ্জ জেলার একটি স্থানে সীমান্ত বেড়ার ৩০০ মিটারেরও বেশি জায়গা হাতিদের চলাচলের জন্য উন্মুক্ত রাখা ছিল। এই এলাকা হাতিদের করিডোর নামে পরিচিত ছিল। তবে বাংলাদেশের বনাঞ্চল থেকে যাওয়া হাতিরা জেলার বিভিন্ন স্থানে তাণ্ডব চালানোর পর তা বন্ধ করে দিচ্ছে ওই জেলা প্রশাসন।

রোববার করিমগঞ্জ জেলা প্রশাসনের ডেপুটি কমিশনার প্রদীপ কুমার তালুকদারের নেতৃত্বে একটি দল সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেছে।

প্রদীপ কুমার বলেন, ‘দীর্ঘ কাল ধরে সীমান্ত এলাকায় হাতিদের আনাগোনা রয়েছে। হাতিরা নির্দিষ্ট একটি পথ অনুসরণ করে আর বাংলাদেশ থেকে প্রবেশ করতে তারা সীমান্ত বেড়া তছনছ করে ফেলছে। এইদিক বিবেচনায় রেখে সীমান্ত বেড়ার ৩০০ মিটারেরও বেশি জায়গা হাতিদের জন্য উন্মুক্ত রাখা ছিল। কিন্তু বন্য হাতিরা করিমগঞ্জ জেলার তান্ডব চালিয়ে কয়েকজনকে হত্যা, বাড়িঘর ও চা বাগান ধ্বংস করেছে। সেকারণে আমরা তাদের চলাফেরা বাংলাদেশের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখতে সীমান্ত এলাকায় লেবু ও বুনো ঝালের গাছ লাগানোর পরিকল্পনা করছি’।

এই বিভাগের আরো খবর

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is