ঢাকা, বুধবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ১১ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-26

, ১৫ মহাররম ১৪৪০

কিংবদন্তী সংগীতশিল্পী ফিরোজা বেগমের মৃত্যুবার্ষিকী

প্রকাশিত: ০৯:৫১ , ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৯:৫১ , ০৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিনোদন প্রতিবেদক: কিংবদন্তী সংগীতশিল্পী ফিরোজা বেগমের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ২০১৪ সালের এ’দিনে না ফেরার দেশে চলে যান সুকণ্ঠী এই শিল্পী। বরেণ্য এই শিল্পী নজরুলের গানে রেখেছেন অসামান্য অবদান। পাশাপাশি গজল, ঠুমরি আর আধুনিক গানেও দখল ছিল তাঁর। স্বীকৃতি হিসেবে পেয়েছেন একুশে ও স্বাধীনতা পদকসহ দেশি-বিদেশি নানা সম্মাননা।

ফিরোজা বেগম, ভারতীয় উপমহাদেশে নজরুল সঙ্গীতের শুদ্ধ চর্চা আর প্রসারে অগ্রগণ্য এক নাম। স্বীয় গায়কি দিয়ে নজরুলের গানে যিনি যোগ করেছেন অনন্য মাত্রা। তাঁর কিন্নর কণ্ঠে বিমোহিত হননি এমন সঙ্গীতপ্রেমী খুঁজে পাওয়া যাবে না।

শৈশব থেকেই গানের প্রতি ফিরোজা বেগমের ছিল দারুণ অনুরাগ। ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়ার সময় অল ইন্ডিয়া রেডিওতে গান করে সংগীতবোদ্ধাদের নজর কেড়েছিলেন তিনি। ১৯৪২ সালে প্রথম ইসলামী গানের রেকর্ড বের হয় ফিরোজা বেগমের। এরপর ১৯৪৯ সালে নজরুলের গান নিয়ে প্রকাশিত তাঁর প্রথম রেকর্ড।

বরেণ্য এই শিল্পী কাজী নজরুল ইসলামের কাছেও গানের তালিম নেন। নজরুলের গানের পাশাপাশি গজল, ঠুমরি এবং আধুনিক গানেও অসামান্য দখল ছিল ফিরোজা বেগমের।
নজরুল সঙ্গীত চর্চায় বিশেষ অবদান এবং সেরা শিল্পীর স্বীকৃতি হিসেবে একুশে পদক, স্বাধীনতা পদক, নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বোস অ্যাওয়ার্ডসহ দেশি বিদেশি বহু পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন গুণী এই শিল্পী।

২০১৪ সালের এই দিনে না ফেরার দেশে পাড়ি জমান নজরুলের গানে নিমগ্ন শিল্পী ফিরোজা বেগম। তবে, মৃত্যুতে এতটুকু ম্লান হয়নি তার প্রতি শ্রোতা-ভক্তদের ভালবাসা। প্রয়াণ দিবসে তাইতো নানা আয়োজনে প্রিয় শিল্পীকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছেন ভক্ত শুভানুধ্যায়ীরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

দিশা ও তারা, টাইগার কার?

বিনোদন ডেস্ক: বলিউডের অ্যাকশন হিরো টাইগার শ্রফের সাথে দিশা পাটনির সম্পর্কের বিষয়টা মোটামুটি পরিস্কার সবার কাছে। ভক্তদের কাছে বেশ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is