ঢাকা, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮, ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-20

, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

ঢ্যাঁড়স ও করলার পুষ্টি গুণ

প্রকাশিত: ১০:১৯ , ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ১০:১৯ , ০৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন : শাকসবজি খেলে আমাদের শরীর যেমন সুস্থ থাকে, তেমনি পুষ্টি চাহিদাও পূরণ হয়। প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় তাই নানা রকমের সুস্বাদু শাকসবজি থাকা উচিত। ঢ্যাঁড়স ও করলা এমন দু’টি সবজি যা স্বাস্থ্যের জন্য খুব উপকারী। দু’টি সবজিই রান্না করতে তুলনামূলক কম সময় লাগে। পুষ্টিগুণে ভরপুর ও স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী ঢ্যাঁড়স ও করলা পুষ্টিগুণ সম্পর্কে বিস্তারিত জানিয়েছেন ঢাকার বারডেম জেনারেল হাসপাতালের খাদ্য ও পুষ্টি বিভাগের প্রধান পুষ্টিবিদ শামসুন্নাহার নাহিদ।

ঢ্যাঁড়স :
ঢ্যাঁড়সে আঁশ আছে, যা শরীরের সুগার নিয়ন্ত্রণে রাখে। একই সঙ্গে শরীরের গ্লুকোজের মাত্রা কমিয়ে রাখে। এটি ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ভালো। রক্তশূন্যতা থাকলে উপকার পাবেন। সবুজ এ সবজিতে রয়েছে হিমোগ্লোবিন, আয়রন ও ভিটামিন কে। এ উপকরণগুলো থাকার কারণে রক্তে লাল প্লাটিলেট তৈরি করে এবং দুর্বলতা রোধ করে।

ঢ্যাঁড়স চুলের জন্য খুব উপকারী। খুশকি ও উকুন রোধ করে। ত্বকের শুষ্কতা ও চুলকানি দূর করতে বেশ কার্যকর। যাদের ওজন বেশি তারা ঢ্যাঁড়স খেতে পারেন। এটি ওজন কমাতে সহায়তা করে। ঢ্যাঁড়সে ক্যালরির পরিমাণ খুব কম, তাই এটি ডায়েট মেন্যুতে রাখতে পারেন।

যাদের দৃষ্টিশক্তির সমস্যা, তারা ঢ্যাঁড়স খেতে পারেন। এতে দৃষ্টিশক্তির উন্নতি হবে। এর মধ্যে রয়েছে ভিটামিন সি, অ্যান্টি ইনফ্লামেটোরি এবং অ্যান্টি অক্সিডেন্ট উপাদান।

করলা :
করলার তেতো স্বাদের কারণে অনেকে সবজিটি খেতে অপছন্দ করেন। তবে এ সবজিটি পুষ্টিগুণে ভরপুর। নিয়মিত তিতা করলা খাওয়ার অভ্যাস করলে নানা রকমের রোগবালাই থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। সেই সঙ্গে পাওয়া যায় প্রচুর পুষ্টি উপাদান যা শরীরের জন্য অতি প্রয়োজনীয়।

সকালে করলার রসের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে প্রতিদিন খালি পেটে খেলে রক্তের দূষিত উপাদান দূর হয়ে যায়। একই সঙ্গে অ্যালার্জিজনিত সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

করলার রয়েছে এডিনোসিন মনোফসফেট অ্যাকটিভেটেড প্রোটিন কাইনেজ। এটি এনজাইম বৃদ্ধি করে শরীরের কোষগুলোর চিনি গ্রহণের ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। তাই ডায়াবেটিস রোগীরা নিয়মিত করলার রস খেলে উপকার পাবেন। এর রস শরীরের কোষের ভেতর গ্লুকোজের বিপাক ক্রিয়াও বাড়িয়ে দেয়। ফলে রক্তের চিনির পরিমাণ কমে যায়। করলায় আছে প্রচুর পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন বা ভিটামিন এ। তাই যাদের চোখের সমস্যা আছে, তারা নিয়মিত করলা খেতে পারেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর

দুধ খাবেন কখন?

ডেস্ক প্রতিবেদন: সুষম খাবার হিসেবে এবং পুষ্টির বিচারে দুধ হল সব ধরনের খাবারের রাজা।  তবে জানেন কি দুধ পানের সঠিক সময় কোনটি? সকালে নাকি রাতে?...

থাইরয়েডের সমস্যা বুঝবেন কিভাবে

ডেস্ক প্রতিবেদন: সব সময় শরীর অবসন্ন লাগে; সারা রাত পর্যাপ্ত ঘুমানোর পরেও ক্লান্ত ভাব কিছুতেই কাটে না; অতিরিক্ত চুল পড়ে; গলা ফুলে উঠে; এ...

পেয়ারা পাতার চায়ের গুণাগুণ

অনলাইন ডেস্ক : অনেকেই জানেন না পেয়ারার পাতায়ও রয়েছে অনেক গুণ। পেয়ারার মধ্যে রয়েছে ভিটামিন এ, সি, পটাশিয়াম, লাইকোপেন। মানবসুস্থতায় এ...

ডায়াবেটিকসের ঝুঁকি কমে কফি পানে

ডেস্ক প্রতিবেদন: প্রতিদিন তিন-চার কাপ কফি পানে ঝুঁকি কমে ডায়াবেটিসের। ক্যাফেইনবিহীন কফি পান করলেও একই ফল পাওয়া যাবে। নতুন এক গবেষণায় এ তথ্য...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is