ঢাকা, শুক্রবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৮, ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-16

, ৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

ধর্মীয় উসকানি দিয়ে বিশৃঙ্খলা করতে চাইছে সরকার: রিজভী

প্রকাশিত: ০৩:১১ , ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০৩:১২ , ০৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক: ধমীর্য় উসকানি দিয়ে সরকার দেশে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে যায় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ অভিযোগ করেন।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে সরকার ধর্মীয় উসকানি দিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইছে বলে অভিযোগ করেছেন রিজভী। আজকের সংবাদ সম্মেলনে মূলত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সমালোচনা করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ এ যুগ্ম মহাসচিব। আবহমান বাংলাদেশের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিকে বিনষ্ট করে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির মাধ্যমে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে নেমে পড়েছেন ওবায়দুল কাদের এমন মন্তব্য করে রুহুল কবির রিজভী বলেন, এটা ‘অশুভ চক্রান্তের ইঙ্গিতবাহী’।

“শান্তি ও সহাবস্থানের মধ্য দিয়ে ধর্ম, বর্ণ, ভাষা নির্বিশেষে জনগণের নিবিঘেœ বসবাসের ওপর আওয়ামী নেতাদের বক্তব্য মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করার শামিল। তারা ক্ষমতায় থাকার জন্য রাষ্ট্রসমাজের স্থিতিকে ভেঙে ফেলতে গভীর ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। ব্যর্থতার অন্ধগলিতে পথ হারিয়ে তারা এখন চক্রান্তের ওপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছে। সেই জন্য তারা সাম্প্রদায়িকতার ধ্বজা তুলে কোনো খারাপ দৃষ্টান্ত স্থাপন করতে চাইছে।”

ওবায়দুল কাদেরকে উদ্দেশ্য করে রিজভী বলেন, “ওবায়দুল কাদের সাম্প্রদায়িক হামলার আশঙ্কা করছেন কেন? তাহলে কি তারাই সাম্প্রদায়িক হামলা করে কোনো রাজনৈতিক স্বার্থ হাসিল করবেন কি না?” এখনো বর্তমান সংবিধানে যতটুকু ধর্মীয় সম্প্রদায়ের অধিকার আছে, তাঁর বক্তব্য সেই অধিকারকেও বিপন্ন করার উসকানি। জনবিচ্ছিন্ন সরকার ধর্মীয় উসকানি দিয়ে সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইছে। আমরা তাদের পরিষ্কার বলতে চাই, কোনো প্রকার উসকানি দিয়ে লাভ হবে না। এ দেশের সব ধর্মীয় সম্প্রদায় অটুট ভ্রাতৃত্বের বন্ধনে ঐক্যবদ্ধ। বরং আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে মন্দির, গির্জা ও প্যাগোডায় সবচেয়ে বেশি আক্রমণ হয়েছে। এই আমলেই সংখ্যালঘুরা সবচেয়ে বেশি নির্যাতিত ও নিরাপত্তাহীন”’

গত ১৯ আগস্ট ভোলা সরকারি কলেজ আয়োজিত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় এলে এক লাখ মানুষকে হত্যা করা হবে।

আজকের সংবাদ সম্মেলনে বাণিজ্যমন্ত্রীর এ বক্তব্যেরও সমালোচনা করেন রিজভী। তিনি বলেন, এ তথ্য কোন পরিসংখ্যান ব্যুরো থেকে সংগ্রহ করেছেন? কোন অপকর্মের কারণে আপনাদের এ আশঙ্কা? বিএনপি তো এর আগে অনেকবার ক্ষমতায় এসেছেন; কিন্তু কোথাও তো রক্তক্ষরণের কোনো দৃষ্টান্ত নেই। কোন অন্যায় অপরাধের কারণে এত ভয় পাচ্ছেন?

এই বিভাগের আরো খবর

পুলিশের গাড়িতে হামলায় প্রমাণ হয় বিএনপি সহিংসতা পরিহার করেনি

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপি পুলিশের গাড়ির উপর হামলা করে আবারও প্রমাণ করেছে তারা জঙ্গি এবং সহিংসতার পথ পরিহার করেনি। শুক্রবার সকালে ধানমণ্ডির...

ভোটযুদ্ধে তারকারা

নিজস্ব প্রতিবেদক: এবার সংসদ নির্বাচনে রেকর্ড সংখ্যক তারকা আওয়ামী লীগ থেকে প্রার্থী হওয়ার আবেদন করেছেন। এদের মধ্যে কেউ কেউ বেশ আগে থেকেই...

নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র চলছে : প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদন : নির্বাচন বানচাল করতে বিএনপি আগুন সন্ত্রাসসহ নানা ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ...

বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সহিংসতা দুর্ভাগ্যজনক: এরশাদ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপি কার্যালয়ের সামনে সংঘর্ষের ঘটনা দলটির নির্বাচনে না যাওয়ার ইঙ্গিত বহন করে, এমনই মনে করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is