ঢাকা, বুধবার, ২১ নভেম্বর ২০১৮, ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫

2018-11-21

, ১২ রবিউল আউয়াল ১৪৪০

ভাঙনের দুর্ভোগ কমাতে দীর্ঘমেয়াদী পদক্ষেপের তাগিদ বিশেষজ্ঞদের

প্রকাশিত: ১০:২৬ , ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ আপডেট: ০১:০৮ , ০৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক : গত পঁয়ত্রিশ বছরে যে পরিমাণ ভূমি নদী গর্ভে বিলিন হয়েছে, সেই তুলনায় চর জেগেছে সামান্য। নদী ভাঙ্গনে প্রতিবছর কমছে উর্বর চাষের জমি, তেমনি জনবহুল লোকালয়ও বিলীন হচ্ছে নদীর ভয়াল গ্রাসে। সরকারি পর্যায়ে নানা উদ্যোগ নেয়া হলেও ভাঙ্গন রক্ষায় তা অপ্রতুল। দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে কাজ না হলে ভবিষ্যতে অনেক নতুন এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হবার আশঙ্কা করেন বিশেষজ্ঞরা।

ট্রলার চলার এই পথই ছিলো একসময় ব্যস্ত জনপদ। ছিলো হাজার হাজার মানুষের বাস। সিরাজগঞ্জের চৌহালি উপজেলার আকশিমুলিয়া গ্রামের সিংহভাগ ভূমি বিলিন হয়েছে যমুনার ভাঙ্গনে। বছর দু-এক আগেও যে সড়ক দিয়ে মোটরযান চলতো তা অদৃশ্য এখন নদীর টানে। মাঝ নদীতে লোকালয়ের শেষ চিহ্ন হিসেবে টিকে আছে কেবল এই সেতুটি।

গত কয়েক বছর ধরে যমুনার ভাঙ্গনে বিলুপ্তির পথে অবশিষ্ট চৌহালী উপজেলাও। এরই মধ্যে উপজেলা পরিষদসহ সরকারি অন্যান্য অফিস বিলিন হয়েছে নদী গর্ভে। নতুন করেও ভাঙছে।

গবেষকদের তথ্যমতে, গত চার দশকে আবাদি ও লোকালয়ের প্রায় পৌনে দুই লাখ হেক্টর ভূমি ভাঙনে হারিয়েছে। বিপরীতে মাত্র ৬০ হাজার হেক্টর জমির চর জেগেছে। চরের জমি বালু মিশ্রিত, ব্যবহারের সুযোগ কম।

স্যাটেলাইট চিত্র পর্যবেক্ষণ করে গবেষকরা জানান, সরকারের নেয়া নানা উদ্যোগে কয়েকটি নদীর ভাঙ্গনের হার কমলেও প্রধান তিন নদী পদ্মা, মেঘনা ও যমুনার আশপাশের জেলাগুলোতে ভাঙ্গনের মাত্রা বাড়ছে। বিশেষ করে চাপাইনবাবগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, মাদারীপুর, শরীয়তপুর ও চাঁদপুরে প্রতিবছরই নতুন নতুন এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হচ্ছে।

নদী ভাঙ্গনের হাত থেকে রক্ষা পেতে জরুরী দীর্ঘ মেয়াদী উদ্যোগ চান বিশেষজ্ঞরা।

নদী ভাঙ্গনের সাথে মানুষের নিরন্তর এই আদি সংগ্রাম একেবারে বন্ধ করা হয়তো যাবেনা কখনও, কিন্তু লড়াইটায় যেন কষ্ট ও ঝুকি কিছু কমানো যায় সেটাই চান ভুক্তভোগীরা।

 

এই বিভাগের আরো খবর

পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা বিভাগীয় নির্বাচনী আসন গুলোতে, হোক তা শহরে কিংবা প্রত্যন্ত অঞ্চলে, পোষ্টার ব্যানারে ছেয়ে গেছে এরই মধ্যে। কর্মব্যস্ত...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is