ঢাকা, রবিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ১২ ফাল্গুন ১৪২৫

2019-02-24

, ১৮ জমাদিউস সানি ১৪৪০

ব্যবসা ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাত সাইবার হুমকিতে: মাইক্রোসফট

প্রকাশিত: ১১:৩৪ , ২৬ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ১১:৩৫ , ২৬ আগস্ট ২০১৮

ডেস্ক প্রতিবেদন: এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে সাইবার নিরাপত্তার ঘাটতির কারণে ব্যবসা ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাত এক দশমিক ৭৪৫ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলারের সম্ভাব্য আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে। যা এ অঞ্চলের দেশগুলোর জিডিপি-র সাত শতাংশেরও বেশি।

মাইক্রোসফটের তত্ত্বাবধানে পরিচালিত ফ্রস্ট ও সুলিভানের একটি গবেষণা প্রতিবেদনে এসকল তথ্য উঠে এসেছে। পরে  মাইক্রোসফট ‘এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে সাইবার নিরাপত্তা হুমকির সম্যক ধারণা: ডিজিটাল বিশ্বে আধুনিক এন্টারপ্রাইজগুলোর সুরক্ষা’ শীর্ষক এ প্রতিবেদনে এসব তথ্য প্রকাশ করে। 

এ প্রতিবেদনের লক্ষ্য ব্যবসা ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে প্রভাবশালী ব্যক্তিদের এ অঞ্চলের সাইবার নিরাপত্তা লঙ্ঘনের বিষয়ে সচেতন করা এবং প্রতিষ্ঠানগুলোর সাইবার নিরাপত্তা কৌশল বাস্তবায়নে প্রয়োজনীয় ব্যবস্তা গ্রহণ করা। এ গবেষণায় ব্যবসা ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাতে মাঝারি মানের প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার (২৫০ থেকে ৪৯৯ জন কর্মী) এবং বৃহৎ প্রতিষ্ঠান ও সংস্থার কর্মীদের নিয়ে জরিপ করা হয়।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, জরিপ করা অর্ধেকের বেশি প্রতিষ্ঠানে সাইবার নিরাপত্তা লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে কিংবা তারা এ ব্যাপারে নিশ্চিত নয় অথবা তথ্য নিরাপত্তা লঙ্ঘনের ব্যাপারে তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই।

এ নিয়ে মাইক্রোসফট এশিয়ার এন্টারপ্রাইজ সাইবার সিকিউরিটি গ্রুপের পরিচালক এরিক লাম বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানগুলো এখন তাদের গ্রাহকদের সঙ্গে সংযুক্ত হতে এবং তাদের কার্যক্রমের পূর্ণ উপযোগিতা ব্যবহারে ক্লাউড ও মোবাইল কম্পিউটিং সেবা গ্রহণ করছে।’

এরিক লাম আরও বলেন, ‘প্রথাগত যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিপক্ষকে অদৃশ্য করার ফলে আক্রমণের নতুন লক্ষ্য তৈরি হয়েছে। প্রতিষ্ঠানগুলো উল্লেখযোগ্য পরিমাণ অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছে পাশাপাশি, তাদের গ্রাহক সন্তুষ্টি ও সুনাম বিপর্যয়ের মুখে পড়েছে যা সাম্প্রতিক কিছু সাইবার নিরাপত্তা লঙ্ঘনের ঘটনায় সুস্পষ্ট।’

গবেষণায় বলা হয়, আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি, সাইবার নিরাপত্তা লঙ্ঘনের ঘটনা এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলের প্রতিষ্ঠানগুলোর ভবিষ্যতের ডিজিটাল অর্থনীতির সুযোগ গ্রহণে প্রতিষ্ঠানের সম্ভাবনা ও ক্ষমতা হ্রাস করছে। 
গবেষকেরা বলছেন, সাইবার নিরাপত্তা খাতে প্রতিরক্ষার পরবর্তী প্রহরী হতে পারে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা। এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে চারটির মধ্যে তিনটি প্রতিষ্ঠান সাইবার নিরাপত্তার সুরক্ষা বৃদ্ধিতে ইতিমধ্যেই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার প্রযুক্তি গ্রহণ করা হয়েছে। 
 

এই বিভাগের আরো খবর

বাংলাদেশে ১৫ শ'রও বেশী পর্ন ও জুয়া খেলার ওয়েবসাইট বন্ধ

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: বাংলাদেশ থেকে ১৫শ’র বেশি পর্ন ও অনলাইনে জুয়া (বেটিং) খেলার ওয়েবসাইট বন্ধ করা হয়েছে। বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ...

অ্যাপলের ত্রুটি ধরিয়ে দেওয়ায় মার্কিন কিশোর পুরস্কৃত

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: বিশ্বে অন্যতম বড় তথ্য প্রযুক্তিভিত্তিক প্রতিষ্ঠান অ্যাপলের ত্র“টি ধরিয়ে দেওয়ায় কিশোরকে পুরস্কৃত করা হল। বিবিসির...

এবার রোবোট আঁকবে আপনার ছবি!

বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি ডেস্ক: এবার রোবোট আঁকবে আপনার ছবি। নির্মাতারা জানিয়েছেন, সামনে দাঁড়ালেই পেন্সিল হাতে আপনার মুখের ছবি আঁকতে পারবে আইডা...

জার্মানিতে তথ্য অপব্যবহারের অভিযোগ ফেসবুকের বিরুদ্ধে

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক: এবার জার্মানিতে ফেসবুকের বিরুদ্ধে তথ্য অপব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে। মূলত হোয়াটসঅ্যাপ এবং ইনস্টাগ্রামথকে শুরু করে...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is