ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫

2018-09-21

, ১০ মহাররম ১৪৪০

চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে ঈদে গরু বা খাসির মাংস খান

প্রকাশিত: ১১:২৫ , ২৫ আগস্ট ২০১৮ আপডেট: ১১:৫৩ , ২৫ আগস্ট ২০১৮

স্বাস্থ্য ডেস্ক: উৎসবের সঙ্গে খাবারের একটা বিশেষ সম্পর্ক রয়েছে। তবে সেই খাবার যেন উৎসবের আনন্দকে ম্লান করে না দেয়। বিশেষ করে ঈদের সময় খাবারের পরিমাণটা অন্য সময়ের চেয়ে বেড়ে যায়। আর ঈদুল আজহা-তে গরু, খাসিসহ বিভিন্ন প্রকার মাংস অতি পরিমাণে খাওয়া হয়ে থাকে। এ বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন প্রিভেন্টিভ মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. লেলিন চৌধুরী।

হার্টের সমস্যায়:
গরুর ও খাসির মাংস বেশ চর্বিযুক্ত খাবার। এটি অতিরিক্ত খেলে আমাদের শরীরে কোলেস্টেরল বেড়ে যেতে পারে। যাঁদের হার্টের সমস্যা রয়েছে তাঁরা অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী পরিমাণমতো মাংস খাবেন। একেবারে চর্বি ছাড়া মাংস খেতে পারলে ভালো।

ডায়াবেটিস
যাদের ডায়াবেটিস রয়েছে কোরবানির সময় তাঁদের রুটিন ভুলে গেলে চলবে না। তাঁদের প্রোটিনের চাহিদা অনুযায়ী খাবারের সঙ্গে গরুর মাংস গ্রহণ করবেন। রুটিন ভঙ্গ করলে ভোগান্তি বাড়বে। খাবারের আগে-পরে নিয়মিত মাপতে হবে ডায়াবেটিস। 

অ্যাসিডিটি
যাঁদের অ্যাসিডিটির সমস্যা রয়েছে তাঁরা খাবারের আগেই ওষুধ গ্রহণ করবেন। সতর্ক থেকে খাবার গ্রহণ করবেন। বেশি সমস্যা হলে দ্রুত চিকিৎসকের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন। বেশি বেশি পানি পান করতে পারেন। 

উচ্চ রক্তচাপ
যাঁদের ব্লাড প্রেসার রয়েছে তাঁরা চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে পরিমাণমতো গরুর মাংস খাবেন। মাপতে হবে প্রেসার। অবস্থা বেশি খারাপ হলে নিতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শ। 

অ্যাজমা বা অ্যালার্জি
যাঁরা ওজন কমাতে চান কিংবা যাঁদের অ্যাজমা বা এলার্জি রয়েছে তাঁদের সংযত থাকাই উত্তম। কারণ এক-দুইবার অতিরিক্ত মাংস খেয়ে নিজের ও স্বজনদের আনন্দ নষ্ট না করায় ভালো। দাদ আছে যাঁদের তাঁরা গরুর মাংস একেবারেই এড়িয়ে চলুন।

এই বিভাগের আরো খবর

খুশকি থেকে বাঁচুন

ডেস্ক প্রতিবেদন: চুলের স্বাস্থ্যের ক্ষেত্রে খুশকি একটা বিরাট সমস্যা। অত্যধিক চুল ঝরা, রুক্ষ চুল, বিভিন্ন ধরনের স্ক্যাল্প ইনফেকশন জন্য...

এসিতে স্বাস্থ্য ঝুঁকি

ডেস্ক  প্রতিবেদন: গরমের প্রখর তাপ থেকে মুক্তি পেতে এয়ারকন্ডিশনার ব্যবহারের তুলনা নেই। অফিসে ৮-৯ ঘণ্টা টানা সেন্ট্রাল এসি'তে থাকতে থাকতে...

সাংবাদিক রইসুল বাহার আর নেই

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: মুক্তিযোদ্ধা-সাংবাদিক আ ক ম রইসুল হক বাহার আর নেই। মঙ্গলবার- ১৮ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত ১১টায় হৃদযন্ত্রের ক্রীড়া বন্ধ...

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

Message is required.
Name is required.
Email is